Saturday, July 2nd, 2016
বাড়ি ফিরছেন রবিউল তবে প্রাণহীন
July 2nd, 2016 at 6:06 pm
বাড়ি ফিরছেন রবিউল তবে প্রাণহীন

মানিকগঞ্জ: গুলশানের হলি আর্টিজানে জঙ্গিদের গুলিতে নিহত ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার রবিউল করিমের মৃত্যুর খবরে তার গ্রামের বাড়ি মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার কাটিগ্রামে চলছে শোকের মাতম। এবার আর আপনজনদের সাথে গ্রামের বাড়িতে ঈদ করা হলো না তার।

এদিকে ছেলের মৃত্যুতে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছে রবিউলের মা করিমন নেছা। গ্রামের বাড়িতে রবিউলের মায়ের সঙ্গে বসবাসরত দাদির অবস্থাও অভিন্ন। গত ২৪ জুন গ্রামে দুঃস্থদের মধ্যে কাপড় বিতরন করে তিনি কথা দিয়েছিলেন ৩ জুলাই তিনি গ্রামে ফিরবেন এবং সম্ভব হলে স্বজনদের সঙ্গেই ঈদ করবেন। কিন্ত ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস!

গত ১ জুলাই ঢাকা থেকে রবিউলের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী উম্মে সালমা বেগম (২৯) বাবার বাড়ি দেপাশাই গ্রামে আসেন। তিনি পৌঁছানোর পরপরই এক হৃদয়বিদারক পরিস্থিতি তৈরি হয়। রবিউলের পাঁচ বছরের সন্তান সাজেদুল করিম সামিও চেয়ে চেয়ে দেখছে তার মায়ের বুক ফাটা আর্তনাদ। বাবা হারানোর মর্ম এখনও বুঝে উঠতে পারেনি ছোট্ট এই বালক।

এলাকাবাসীর অতিপরিচিত মানুষ ছিলেন পুলিশ কর্মকর্তা রবিউল করিম। তার অকাল মৃত্যুতে এলাকাবাসীও শোকাহত। শনিবার ভোর থেকেই রবিউলের বাড়িতে ভিড় করতে শুরু করে এলাকাবাসী। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মানুষজনের ভিড়ও বাড়তে থাকে। বেলা ১১টার দিকে রবিউলের স্ত্রী উম্মে সালমা বেগম তার একমাত্র ছেলে সাজেদুল করিম সামিকে নিয়ে শ্বশুর বাড়ি কাটিগ্রামে আসেন। এখানে আসার পর পরই তিনি স্বামী শোকে অচেতন হয়ে পড়েন। এরপর দুপুর ১২টার দিকে মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার মাহফুজুর রহমান ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকির হাসানসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা নিহতের বাড়িতে এসে পরিবারের সদস্যদের স্বান্তনা জানান।

নিহতের স্বজনরা জানায়, ১৯৯৭ সালে স্থানীয় কাটিগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক পাস করার পর ধামরাই উপজেলার ভালুম আতাউর রহমান খান কলেজ থেকে ১৯৯৯ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন রবিউল। এরপর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শেষ করার পর সাংসারিক চাহিদা মেটানোর জন্যে পারি জমান ইতালিতে। সেখানে দুই বছর থাকার পর আবার বাংলাদেশে চলে আসেন। এরপর ৩০ তম বিসিএসে পাস করার পর গত ২০১২ সালের ৩ জুন যোগদান করেন বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে।

রবিউল ইসলামের পিতা মৃত আব্দুল মালেক ব্যক্তি জীবনে কেয়ার বাংলাদেশের একজন ফিল্ড অফিসার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। রবিউল ইসলামের ছোট ভাই সামছুজ্জামান একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত রয়েছেন। রবিউল ইসলামের গ্রামের বাড়িতে মা করিমুননেসা ও দাদি বসবাস করেন। রবিউলের স্ত্রী উম্মে সালমা বেগম বর্তমানে ৮ মাসের অন্তঃস্বত্তা। সামি নামে তাদের ৫ বছরের একটি ছেলেও আছে। চলতি মাসের ৩ তারিখে, অর্থাৎ আগামীকাল অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তার সন্তানদানের তারিখ নির্ধারিত ছিল। কিন্তু অনাগত সেই সন্তানের মুখ দেখার সৌভাগ্য হলো না রবিউলের।

সরকারি চাকরির পাশাপাশি রবিউল করিম একজন শিক্ষানুরাগীও ছিলেন। নিজস্ব অর্থায়নে এলাকায় একটি বুদ্ধি প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য স্কুল প্রতিষ্ঠা করেছেন তিনি। গত ২৪ জুন শুক্রবার গ্রামের মানুষের মাঝে যাকাতের কাপড় ও লুঙ্গি বিতরণ করেই ফিরে যান কর্মস্থলে। ফিরে আসার কথা তিন রাখছেন ঠিকই, তবে ফিরছেন প্রাণহীন লাশ হয়ে।

পুলিশ সুপার মাহফুজুর রহমান জানান, শনিবার বাদ আছরের পর রাজারবাগ পুলিশ লাইনে তার প্রথম জানাযজা অনুষ্ঠিত হবে। তারপর ঢাকা থেকে মরদেহটি সরাসরি মানিকগঞ্জের গ্রামের বাড়িতে আনা হবে। রাষ্ট্রীয়ভাবে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। তার পর গ্রামের বাড়ি কাটিগ্রামে লাশ দাফন করা হবে।

রবিউলের মামা নুরল হক জানান, রবিউলের বাবা আব্দুল মালেক গত ১৫ বছর আগে মারা যান। রবিউলের মরদেহ তার গ্রামের বাড়ি কাটিগ্রামের কবরস্থানে বাবার কবরের পাশেই দাফন করা হবে।

নিউজনেক্সটবিডিডটকম/শাবি/এসকেএস/জাই


সর্বশেষ

আরও খবর

৪২ ও ৪৩তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

৪২ ও ৪৩তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ


করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত

করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত


মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী

মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী


আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার

আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার


পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি

পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি


বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে

বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে


অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ

অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ


মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার

মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার


অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর

অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর


বিরোধী নেতাদের কটাক্ষ করতেন না বঙ্গবন্ধু: রাষ্ট্রপতি

বিরোধী নেতাদের কটাক্ষ করতেন না বঙ্গবন্ধু: রাষ্ট্রপতি