Friday, September 9th, 2016
বিউটি বোর্ডিংয়ের আড্ডায় শহীদ কাদরী
September 9th, 2016 at 6:07 pm
বিউটি বোর্ডিংয়ের আড্ডায় শহীদ কাদরী

প্রীতম সাহা সুদীপ, ঢাকা:

বিউটি বোর্ডিং, প্রাণের শহর ঢাকার ইতিহাস ঐতিহ্যের এক জলন্ত সাক্ষী। দেশের প্রথিতযশা কবি, সাহিত্যিক, বুদ্ধিজীবী, সাংবাদিক, গায়ক, অভিনেতা, রাজনীতিবিদ, চিত্রশিল্পী ও পরিচালক সহ বিভিন্ন পেশার মানুষের আড্ডার স্থান ছিলো পুরান ঢাকার এক নং শ্রীশ দাস লেনের এই দোতলা বাড়িটি।

আড্ডার পাশাপাশি এখানে চলতো বিতর্ক, সাহিত্যচর্চা, মতবিনিময় সব কিছুই। এখানে এক সময় নিয়মিত যাতায়াত করতেন নেতাজী সুভাস চন্দ্র বসু, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, কর্নেল অলি আহাদের মতো যুগান্তকারী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। বিউটি বোর্ডিংয়ের এ ক্যান্টিনে বসেই প্রতিদিন চায়ের কাপের সাথে আড্ডার ঝড় তুলতেন শহীদ কাদরী, আল মাহমুদ, শামসুর রহমান, নির্মলেন্দু গুণ, শামসুল হকের মতো কবি সাহিত্যিকেরা।

img_3968-copy

আজ তাদের অনেকেই নেই, তবে সবার স্মৃতি মাথায় নিয়ে ঠিক একই ভাবে পুরান ঢাকার বুকে দাঁড়িয়ে আছে বিউটি বোর্ডিং। ২৮ আগস্ট ৭৪ বছর বয়সে নিউ ইয়র্কে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলা সাহিত্যের অন্যতম প্রধান কবি শহীদ কাদরী। মৃত্যুর আগের দিনও কবি বলেছিলেন, ‘আমি বাংলাদেশে যেতে চাই’। শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী ৩১ আগস্ট তার মরদেহ দেশে নিয়ে আসেন কবিপত্নী নীরা কাদরী। পরদিন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় সিক্ত হন কবি। পরে সেখান থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে বাদ জোহর নামাজে জানাজা শেষে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

শুক্রবার দীর্ঘ ১৮ বছর পর স্বামীর স্মৃতি বিজড়িত আড্ডাস্থল বিউটি বোর্ডিংয়ে বেড়াতে আসেন নীরা কাদরী। অশ্রুসজল নয়নে চারপাশ ঘুরে ঘুরে দেখেন। বোর্ডিং প্রাঙ্গনে নিউজনেক্সটবিডি ডটকম’র সাথে একান্ত আলাপচারিতায় নীরা বলেন, ‘বিউটি বোর্ডিং ছিলো শহীদ কাদরীর সবচেয়ে প্রিয় স্থানগুলোর একটি। সর্বশেষ ১৯৮২ সালে তিনি এখানে এসেছিলেন।’

তখনকার আড্ডা সম্পর্কে জানতে চাইলে নীরা বলেন, ‘সেটা ছিলো অন্যরকম এক আড্ডা। সেই আড্ডায় তর্ক-বিতর্ক, সাহিত্যচর্চা, মতবিনিময় সব কিছুই চলতো। একবার বসলে সকাল থেকে বিকেল, বিকেল থেকে রাত হয়ে যেত, আড্ডা শেষ হতো না। শহীদের সাথে আড্ডায় থাকতেন সৈয়দ শামসুল হক, ফজল শাহাবুদ্দিন, শামসুর রাহমান, আবদুল্লাহ্ আবু সায়ীদ, সিকদার আমিনুল হক, আল মাহমুদ, বেলাল চৌধুরী, ইমরুল চৌধুরী, জিয়া আনসারীসহ আরো অনেকেই।

ঠিক কোন সময়টাতে বিউটি বোর্ডিংয়ে শহীদ কাদরীর আড্ডা শুরু হয় এমন প্রশ্নের জবাবে কবিপত্নী বলেন, ‘সেই সময়টা ছিল সোনায় মোড়ানো। ১৯৫৬ সালের কথা, তখন কবির বয়স মাত্র ১৪ বছর। ওই সময়টাতেই তার প্রথম কবিতা ‘এই শীতে’ প্রকাশিত হয়েছিল। পরবর্তীতে ৬৭/৬৮ সালে প্রায় প্রতিদিনই তিনি এখানে আড্ডা জমাতেন।’

img_4034-copy

বিউটি বোর্ডিংয়ের আড্ডার স্মৃতিচারণ করে লেখক আদনান সৈয়দ বলেন, ‘আড্ডায় শহীদ কাদরীর গুরু ছিলেন প্রয়াত খালেদ চৌধুরী। ঢাকার রাস্তায় সন্ধ্যা প্রদীপ জ্বলার সাথে সাথেই বিউটি বোর্ডিং এর আলো জ্বলতো কিছু আড্ডাবাজ কবি সাহিত্যিকদের অনন্য আড্ডায়। খালেদ চৌধুরী ছিলেন সেই আড্ডার মূল আকর্ষন। প্রচণ্ড মেধাবী, আড্ডাবাজ এই খালেদ চৌধুরী ইনস্টেন্ট গল্প জমাতে পারতেন। শহীদ কাদরীও ছিলেন চরম আড্ডাবাজ। দু’জনেই তাৎক্ষনিক গল্প বানিয়ে আসর গরম করে ফেলতেন।’

তিনি বলেন, ‘খালেদ চৌধুরীর মৃত্যুর পর এক স্মৃতিচারণে শহীদ কাদরী একটা ঘটনার কথা উল্লেখ করেছিলেন। তিনি বললেন, একদিন আড্ডায় আমি দেখলাম খালেদ একটা গল্পই বার বার কইরা কইতাছে। আমিতো খালেকের সামনে বসা। যেই খালেদ গল্পটা দ্বিতীয়বার বলতে যাইবো আমি মুখে কিছু না বইল্লা একটা আঙুল তুইল্লা খালেকরে সাবধান কইরা দিলাম। এইভাবেই আমরা একজন আরেকজনরে সাবধান করতাম।’

পঞ্চাশ উত্তর বাংলা কবিতায় আধুনিক মনন ও জীবনবোধ সৃষ্টিতে যে ক’জন কবি উল্লেখযোগ্য তাদের মধ্য অন্যতম শহীদ কাদরী। আধুনিক নাগরিক জীবনের সুখ-দুঃখ, প্রেম, স্বদেশচেতনার পাশাপাশি বিশ্ব-নাগরিক বোধের সম্মিলন ঘটে তারই কবিতায়। ‘উত্তরাধিকার’, ‘তোমাকে অভিবাদন প্রিয়তমা’, ‘কোথাও কোন ক্রন্দন নেই’ ও ‘আমার চুম্বনগুলো পৌঁছে দাও’ এই চারটি কাব্যগ্রন্থ দিয়েই বাংলার জনপ্রিয় কবিদের একজন হয়ে উঠেন শহীদ কাদরী।

১৯৭৩ সালে তাকে বাংলা একাডেমি ও ২০১১ সালে একুশে পদক দেয়া হয়। ১৯৪২ সালের ১৪ আগস্ট কলকাতায় জম্ম নেয়া শহীদ কাদরী সাতচল্লিশে দেশভাগের পর বাংলাদেশে আসেন। ১৯৭৮ সালের পর থেকেই বাংলাদেশের বাইরে ছিলেন তিনি। জার্মানি, ইংল্যান্ড হয়ে ১৯৮৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ী হন তিনি।

সম্পাদনা: সজিব ঘোষ, তুসা


সর্বশেষ

আরও খবর

করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত

করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত


ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মজনুর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মজনুর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড


মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী

মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী


আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার

আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার


পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি

পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি


দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির

দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির


বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে

বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে


অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ

অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ


মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার

মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার


অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর

অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর