Saturday, October 1st, 2016
বিস্মৃতির অতলে বাংলার প্রথম সার্বজনীন দূর্গা পূজার স্থান
October 1st, 2016 at 11:55 am
বিস্মৃতির অতলে বাংলার প্রথম সার্বজনীন দূর্গা পূজার স্থান

ডেস্ক: পঞ্চদশ শতকের শেষ ভাগের কথা। মুঘল ভারতের মসনদে তখন সম্রাট আকবর। বাংলার বারো ভুঁইয়ার অন্যতম রাজা রাজশাহীর কংস নারায়ণ তাহেরপুরের তাহের খানকে যুদ্ধে পরাজিত করেন। যুদ্ধজয়ের স্মৃতি অম্লান রাখতে রাজ পুরোহিত রমেশ শাস্ত্রীর পরামর্শে তিনি দুর্গাপূজার আয়োজন করেন। কথিত আছে, তার আহ্বানে মা দুর্গা স্বর্গ থেকে সাধারণ্যে আবির্ভূত হন। সেই সময় ৯ লাখ টাকা ব্যয়ে কংস নারায়ণ প্রথম দুর্গাপূজার আয়োজন করেন, সেই প্রতিমা ছিল সোনার তৈরি। ১৪৮০ খ্রিস্টাব্দের (৮৮৭ বঙ্গাব্দে) বাংলা আশ্বিন মাসে রাজপ্রাসাদের আঙিনায় (বর্তমানে তাহেরপুর কলেজ মাঠ) মহাষষ্ঠী তিথিতে দেবীর বোধন হয়। তখন থেকেই পূজামণ্ডপ সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করা হয়। কংস নারায়ণ কৃত এই পূজাই বাংলার তথা ভারতীয় উপমহাদেশের প্রথম সার্বজনীন দূর্গাপূজা।

তাহেরপুরে এর আগেও দুর্গাপূজা হয়েছে তবে তা এত প্রচার এবং জননন্দিত হয়নি। এসময় পূজা সার্বজনীন ছিল না; আয়োজন হতো পারিবারিকভাবে। প্রথমবারের পূজার আনুষ্ঠানিকতা ছিল বিপুল। উৎসব চলেছিল এক মাস ধরে। এরপর থেকে রাজপরিবার প্রতিবছর আশ্বিন মাসে এ পূজার আয়োজন করতে থাকেন, পরবর্তীতে যা সার্বজনীন উৎসবে রূপ নেয়।

তাহেরপুর দুর্গাপূজার উৎপত্তিস্থল হলেও বর্তমান প্রজন্মের অনেকেই জানেন এই কীর্তি এবং গৌরবের কথা। এরপর সাড়ে পাঁচ শতাব্দি কেটে গেলেও আজও পায়নি তাহেরপুর পুণ্যভূমির স্বীকৃতি । প্রথম দুর্গাপূজার সেই স্থানটি এখন অনাদরে অবহেলায় ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। যদিও এলাকাবাসী ধর্মীয় মূল্যবোধ থেকে তা সংরক্ষণ করে আসছেন।

এলাকাবাসী স্থানটিকে ধর্মীয় তীর্থস্থান ও পর্যটনকেন্দ্র গড়ে তোলার দাবি জানিয়ে আসছেন দীর্ঘদিন ধরে। পুরাকীর্তি হিসাবে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি আদায়ের জন্য হিন্দু ধর্মাবলম্বীর নেতারা অনেক চেষ্টা করেও সফল হননি।

সরকারও এব্যাপারে উদাসীন বলেই হারিয়ে যাচ্ছে আমাদের গর্বিত এবং সমৃদ্ধ অতীত। প্রায় সাড়ে পাঁচশত বছর আগে এই উপমহাদেশে প্রথম দূর্গা পূজার সূচনা হয় সে স্থানটি এখন সেটি অনাদারে আর অবহেলায় হারিয়ে যেতে বসেছে।

গ্রন্থনা ও সম্পাদনা: পিএ


সর্বশেষ

আরও খবর

প্রধানমন্ত্রীপরিচয়ে তাজউদ্দীন ইন্দিরার সমর্থন আদায় করেন যেভাবে!

প্রধানমন্ত্রীপরিচয়ে তাজউদ্দীন ইন্দিরার সমর্থন আদায় করেন যেভাবে!


সামার অফ সানশাইন

সামার অফ সানশাইন


ঢাকার ১৫ মাইলের মধ্যে মিত্রবাহিনী

ঢাকার ১৫ মাইলের মধ্যে মিত্রবাহিনী


যুক্তরাষ্ট্রের হুমকীর মুখেও অটল ভারত

যুক্তরাষ্ট্রের হুমকীর মুখেও অটল ভারত


বেসামাল প্রেসিডেন্ট, গভর্নর দিশেহারা

বেসামাল প্রেসিডেন্ট, গভর্নর দিশেহারা


পালানোর চেষ্টা ব্যর্থ নিয়াজির

পালানোর চেষ্টা ব্যর্থ নিয়াজির


২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪, জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু

২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪, জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু


করোনা সংক্রমন ঠেকাতে ব্রিটিশ সরকারের নতুন আইন লঙ্ঘন করলে সর্বোচ্চ  ১০ হাজার পাউন্ড জরমিানা

করোনা সংক্রমন ঠেকাতে ব্রিটিশ সরকারের নতুন আইন লঙ্ঘন করলে সর্বোচ্চ ১০ হাজার পাউন্ড জরমিানা


ভাইরাসের সাথে বসবাস

ভাইরাসের সাথে বসবাস


মুজিববর্র্ষে লন্ডনে জয় বাংলা ব্যান্ডের রঙ্গিন ভালবাসা

মুজিববর্র্ষে লন্ডনে জয় বাংলা ব্যান্ডের রঙ্গিন ভালবাসা