Sunday, October 2nd, 2016
বেড়েই চলেছে রিকশা ভাড়া
October 2nd, 2016 at 7:15 pm
বেড়েই চলেছে রিকশা ভাড়া

ময়ূখ ইসলাম, ঢাকা: রাজধানী জুড়ে দিন দিন যেমন রিকশা বাড়ছে, তেমনি বাড়ছে রিকশার ভ্রমণের ভাড়াও। যাত্রীরা বলছেন দূরত্বের তুলনায় রিকশাচালকরা দ্বিগুণ ভাড়া হাঁকান, বিপরীতে রিকশা চালকদের যুক্তি ভাড়া মোটেই বেশি নেন না তারা। তবে তারা বলেছেন, বেড়েছে রিকশা ভাড়া।

প্রতিদিন রিকশায় যাতায়াত করেন বেসরকারী চাকুরীজীবী মহসিন আলম। রিকশা ভাড়া নিয়ে এই যাত্রীর বিস্তর অভিযোগ। তিনি নিউজনেক্সটবিডি ডটকম’কে বলেন, ‘সময়ের অভাবে প্রায় প্রতিদিন রিকশায় উঠতে হয়, তবে যেখানে হেঁটে যেতে ৫-৭ মিনিট লাগে সেখানকার রিকশা ভাড়া চায় ২৫-৩০টাকা!’ তিনি আরো জানান, ২০১১ সালের দিকে যে দূরত্বে ১৫ টাকা ভাড়া ছিলো, সেখানে যেতে এখন লাগে ৩০-৩৫ টাকা।

এদিকে রিকশার ভাড়া বেশি নেওয়ার বিষয়ে ভিন্নমত রিকশাওয়ালাদের। তারা বলছেন, দিন দিন থাকার ভাড়া, রিকশার জমা, নিত্য প্রয়োজনীয় সব কিছুর দাম বাড়ছে। এজন্য আয় বাড়াতেই ভাড়া বাড়াতে হয়। এমাজুদ্দিন নামে এক রিকশাচালক বলেন, ‘রাস্তা জ্যাম থাকে, তাই এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যেতে সময় বেশি লাগে, তারপর আমার থাকা-খাওয়ার খরচ বেশি। তাও আমরা যে ভাড়া নেই তা বেশি বলা যায় না।’  

আলোকচিত্রঃ জীবন আহম্মেদ

কথা হলো আরেক রিকশাচালক সাত্তার আলীর সঙ্গে। তার কথা, ‘যখন সবকিছুর দাম বাড়ছে তখন রিকশাভাড়া তো বাড়বেই। ভাড়া না বাড়ালে তো জীবন চালানো যাবে না।’

অনেকেই আবার বলছেন, মানুষ অল্প রাস্তা না হেঁটে রিকশায় উঠছে, কারণ রাস্তা গুলোর অবস্থা ভালো নয়। এমন মতামতে পক্ষের কেউ কেউ বলেন, ঢাকার রাস্তায় হাঁটার মত পরিবেশ নেই, পরিবেশ ঠিক করে যদি রিকশার জন্য আলাদা রুট ঠিক করা যায় তাহলে ঢাকাবাসির জন্য ভালো হয়।

এদিকে সেই আশির দশকে সিটি করপোরেশন ঢাকা শহরে রিকশার লাইসেন্স দেয়া বন্ধ করেছে। তবুও বিভিন্ন সংগঠনের কার্ড (লাইসেন্স) লাগিয়ে রিকশা চালকরা চলছেন রাজপথে।

জানা গেছে, ঢাকা সিটি করপোরেশন ১৯৮৬ সালের পর রিকশার লাইসেন্স প্রদান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ওই সময় পর্যন্ত ৮৭ হাজার ৮১১টি লাইসেন্স দেওয়া হয়েছিল। সিটি করপোরেশন বিভক্ত হওয়ার পর ২৮ হাজার ৮৩০টি রিকশা ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের আওতায় যায়। বাকিগুলো দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের অধীনে রয়েছে। এর বাইরে ঢাকার সাথে সংযুক্ত ১২টি ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে আরও ৫০ হাজারের মতো বৈধ লাইসেন্সধারী রিকশা রয়েছে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান গণযোগাযোগ কর্মকর্তা জাকির হোসেন নিউজনেক্সটবিডি ডটকম’কে জানান, ১৯৮৬ সালের পর থেকে আর কোনো লাইসেন্স দেয়া হয়নি। তবে ক্রমবর্ধমান রিকশার বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে ডিএমপি কাজ করছে বলে জানান তিনি।

Rain Rikshaw

অনুসন্ধানে জানা যায়, রিকশাচালকরা সরকারি কোনো সংস্থা বা সিটি করপোরেশনের কাছ থেকে নিবন্ধন না পেয়ে বিভিন্ন সংগঠনের কাছ থেকে ‘অনুমোদন’ নিয়ে থাকে। নির্ধারিত ফি এর বিনিময়ে এই সমিতি থেকে বিক্রি করা হয় সিরিয়াল নম্বর সংবলিত নিবন্ধন কার্ড। আর এ সব কার্ড পেছনে লাগিয়েই চলছে অনিবন্ধিত রিকশাগুলো।

রিকশাচালকদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ছয়মাস মেয়াদী এ নিবন্ধন কার্ডের জন্য দুইশ থেকে পাঁচশ টাকা পর্যন্ত নেওয়া হয়। আর রিকশার পেছনে লাগিয়ে দেয়া হয় নম্বরপ্লেট। বাংলাদেশ রিকশা ও ভ্যান ফেডারেশন, ঢাকা বিভাগ রিকশা ও ভ্যান মালিক সমিতি, মহানগর রিকশা মালিক লীগ, রিকশা ও ভ্যান মালিক শ্রমিক লীগ, মুক্তিযুদ্ধ সমন্বয় পরিষদ, মুক্তিযুদ্ধ সমন্বয় পরিষদ-ঢাকা বিভাগ, এমন সব নামেই বেশির ভাগ নম্বর প্লেট দেখা যায়।

বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা (ইউআরপি) বিভাগের ২০১৪ সালের এক গবেষণায় দেখা যায়, রাজধানীতে অনিবন্ধিত রিকশার সংখ্যা প্রায় ১০ লাখ।

এর আগে ২০১২ সালে বেসরকারি সংস্থা ওয়ার্ল্ড ফর বেটার বাংলাদেশ (ডব্লিউবিবি) ট্রাস্টের এক গবেষণায় বলা হয়, রাজধানীতে অনিবন্ধিত রিকশার সংখ্যা ৮ লাখের বেশি।

সম্পাদনা: তুসা


সর্বশেষ

আরও খবর

দ্য ডেইলি হিলারিয়াস বাস্টার্ডস

দ্য ডেইলি হিলারিয়াস বাস্টার্ডস


আসামে বন্দী রোহিঙ্গা কিশোরীকে কক্সবাজারে চায় পরিবার

আসামে বন্দী রোহিঙ্গা কিশোরীকে কক্সবাজারে চায় পরিবার


ছয় দিনে নির্যাতিত অর্ধশত সাংবাদিক: মামলা নেই, কাটেনি আতঙ্ক

ছয় দিনে নির্যাতিত অর্ধশত সাংবাদিক: মামলা নেই, কাটেনি আতঙ্ক


দক্ষ লেখক, রাজনীতিক; ক্ষমতার দাবা খেলোয়াড়ের মৃত্যু

দক্ষ লেখক, রাজনীতিক; ক্ষমতার দাবা খেলোয়াড়ের মৃত্যু


সমাজ ব্যর্থ হয়েছে; নাকি রাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে?

সমাজ ব্যর্থ হয়েছে; নাকি রাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে?


বঙ্গবন্ধুর মুক্তির নেপথ্যে

বঙ্গবন্ধুর মুক্তির নেপথ্যে


সামরিক ডাইজেষ্ট: আকাশে উড়ছে কমব্যাট ঘাস ফড়িং

সামরিক ডাইজেষ্ট: আকাশে উড়ছে কমব্যাট ঘাস ফড়িং


যুদ্ধ এবং প্রার্থনায় যে এসেছিলো সেদিন বঙ্গবন্ধুকে নিয়েই আমাদের স্বাধীনতা থাকবে

যুদ্ধ এবং প্রার্থনায় যে এসেছিলো সেদিন বঙ্গবন্ধুকে নিয়েই আমাদের স্বাধীনতা থাকবে


বঙ্গবন্ধু কেন টার্গেট ?

বঙ্গবন্ধু কেন টার্গেট ?


ঢাকার ১৫ মাইলের মধ্যে মিত্রবাহিনী

ঢাকার ১৫ মাইলের মধ্যে মিত্রবাহিনী