Saturday, January 18th, 2020
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আহমদীয়া মসজিদ ঘিরে উত্তেজনা, আতংকে চারশো পরিবার
January 18th, 2020 at 1:40 pm
আগামী সোমবার আবারও আহমদীয়া বিরোধী কর্মসূচী দিয়েছে কওমী মাদ্রাসা সংগঠন 'তাহাফুজে খতমে নবুয়ত'
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আহমদীয়া মসজিদ ঘিরে উত্তেজনা, আতংকে চারশো পরিবার

নিজস্ব প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়াঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে আহমদীয়া মুসলিম সম্প্রদায়ের একটি মসজিদ দখলের হুমকির আসার পর, শুক্রবারের (১৭ জানুয়ারি) জুম্মার নামাজের আগে উত্তেজনাপূর্ণ পরিস্থিতি তৈরি হয় বলে জানা গেছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে মসজিদটি ঘিরে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীদের দেয়া তথ্য থেকে  জানা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার দু’টি কওমী মাদ্রাসার শিক্ষক-ছাত্রদের সংগঠন ‘তাহাফুজে খতমে নবুয়ত’-এর ব্যানারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের কান্দিপাড়া এলাকায় আহমদীয়া সম্প্রদায়ের এই মসজিদটি দখলের উদ্দেশ্যে শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর একটি সমাবেশের ডাক দেয়। তবে,  পুলিশ এবং স্থানীয় প্রশাসন কঠোর ব্যবস্থা নেয়ায় শেষ পর্যন্ত আর তাদের পক্ষে তেমন কিছু করা সম্ভব হয়নি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আহমদীয়া সম্প্রদায়ের এই মসজিদ নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই ওই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছিল। সেখানকার আহমদীয়া সম্প্রদায়ের সদস্যরা জানান, গত মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) শহরের কান্দিপাড়া এলাকায় তাদের দু’দিনব্যাপী বার্ষিক জলসা শুরু হয়; এরই অংশ হিসেবে সন্ধ্যায় শিশুদের একটি অনুষ্ঠান চলাকালীন সময়ে হঠাৎ করেই “কাদিয়ানিরা মাদ্রাসার ছাত্রকে মারধর করেছে” বলে মিথ্যা গুজব ছড়িয়ে আহমদীয়াদের মসজিদ বায়তুল ওয়াহেদে অতর্কিত হামলা চালানো হয়। সেই সময় মসজিদের সামনে থাকা আহমদিয়া মুসলিম জামাতের একটি মাইক্রোবাসে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয় এবং মসজিদ সংলগ্ন আহমদীয়া সম্প্রদায়ের সদস্যদের বেশ কয়েকটি বাড়িও হামলার শিকার হয় বলে স্থানীয়রা জানান।

এই ঘটনার পরপরই স্থানীয় দু’টি কওমী মাদ্রাসা থেকে ‘তাহাফুজে খতমে নবুয়ত’-এর ব্যানারে শুক্রবার মসজিদটি দখল করা হবে বলে হুমকি দিয়ে সমাবেশ ডাকা হলে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বসবাসরত আহমদিয়া সম্প্রদায়ের পরিবারগুলোর মধ্যে ব্যাপক আতংকের সৃষ্টি হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আহমদীয়া মুসলিম জামাতের নায়েবে আমির মনজুর হোসেনের ভাষ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার ওই মসজিদে আক্রমণের পর থেকেই আহমদীয়া সম্প্রদায়ের পরিবারগুলোর মধ্যে চরম আতংক ছড়িয়ে পড়ে। আর হামলার পর মসজিদ দখলের হুমকি আসায় তারা নিজেদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন এবং স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের কাছে নিরাপত্তা চেয়ে আবেদন করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসন ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়, যার ফলে শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর দু’টি কওমী মাদ্রাসার ছাত্র-শিক্ষকরা মাদ্রাসার ভেতরে বড় ধরনের জমায়েত করলেও, আহমদিয়াদের ওই মসজিদটির কাছে আসার সাহস পায়নি। মনজুর হোসেন বলেন, “এখন পুলিশের তৎপরতার কারণে মসজিদ দখল করতে পারে নাই; কিন্তু আমাদের বিরুদ্ধে তারা আবারও কর্মসূচি দিয়েছে, ফলে আমাদের ভয় থেকেই যাচ্ছে।”

আহমদীয়া মুসলিম জামাতের এই মসজিদটির দুই পাশে দু’টি কওমী মাদ্রাসা রয়েছে। ১৯৮৭ সালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে আহমদীয়া মুসলিম জামাতের অন্য আরেকটি মসজিদ এভাবেই গুজব ছড়িয়ে দখল করে নেয়া হয়েছিল, যা এখনও আহমদীয়া সম্প্রদায়ের দখলে আসেনি বলেও জানা যায়। এসব মিলিয়ে সেখানে অনেক আগে থেকেই দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলছে বলে জানা যায়।

কওমী মাদ্রাসা দু’টির ফোরাম ‘তাহাফুজে খতমে নবুয়ত’-এর নেতারা অবশ্য আহমদীয়াদের ওই মসজিদটি দখল করার কোনো হুমকি দেয়ার কথা অস্বীকার করেছেন। তাদের দাবি, জুম্মার নামাজের পর মাদ্রাসার ভিতরে তাদের জমায়েত থাকলেও, তারা অন্য কোনো কর্মসূচি পালন করেন নাই।

‘তাহাফুজে খতমে নবুয়ত’-এর নেতা সাজেদুর রহমান বলেন, মসজিদ দখলের কথা তাদের কোনো কোনো নেতার বক্তব্যে এসেছিল, কিন্তু সেটা কোনো সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত ছিলো না। তবে, আহমদীয়াদের বিরুদ্ধে আগামী সোমবার (২০ জানুয়ারি) তাদের একটি মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করার কথা আছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। সাজেদুর রহমান বলেন, “আহমদীয়াদের অমুসলিম ঘোষণার দাবিতে আগের আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় এখন আমরা কর্মসূচি দিয়েছি। তারা আমাদের কয়েকজনকে মারধর করেছিল বলেও তাদের বিরুদ্ধে আমরা কিছু অভিযোগ পেয়েছি। এখানে কারও কিছু দখলের বিষয় নেই। আমাদের কথা হচ্ছে, আহমদীয়ারা কোনো মসজিদই করার অধিকার রাখে ‍না, কেননা তারা মুসলমান নয়।”

ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে আহমদীয়া মুসলিম সম্প্রদায়ের প্রায় চারশো পরিবার বসবাস করে এবং কান্দিপাড়া এলাকার বায়তুল ওয়াহেদ নামের ওই মসজিদটি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় তাদের কেন্দ্রীয় মসজিদ হিসেবেই তারা ব্যবহার করেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন টেলিফোনে নিউজনেক্সটকে জানান, ওই এলাকায় সুন্নী ও আহমদীয়া দুই পক্ষই দীর্ঘ সময় ধরে পাশাপাশি বসবাস করলেও, তারা প্রায়ই পাল্টাপাল্টি নানা ধরনের অভিযোগ করে থাকেন। তবে গত কয়েকদিন ধরে উত্তেজনা বেড়ে যাওয়ায় সেখানে পুলিশ পাহারা বসানো হয়েছে। পরিস্থিতি এখন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আছে এবং যে কোনো ধরনের সংঘাত মোকাবেলায় স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রয়েছে বলেও দাবি করেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।

এফ.এ


সর্বশেষ

আরও খবর

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার করলো জাতীয় রাজস্ব বোর্ড

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার করলো জাতীয় রাজস্ব বোর্ড


মিরপুরে খালে পড়ে নিখোঁজ ব্যক্তিকে ৬ ঘণ্টা পর জীবিত উদ্ধার

মিরপুরে খালে পড়ে নিখোঁজ ব্যক্তিকে ৬ ঘণ্টা পর জীবিত উদ্ধার


কুমিল্লার ঘটনায় কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না: প্রধানমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না: প্রধানমন্ত্রী


ফেসবুকে কিডনি বেচাকেনা, চক্রের ৫ সদস্য গ্রেপ্তার

ফেসবুকে কিডনি বেচাকেনা, চক্রের ৫ সদস্য গ্রেপ্তার


সেই ভুয়া অতিরিক্ত সচিবের বিরুদ্ধে মামলা করবেন মুসা বিন শমসের

সেই ভুয়া অতিরিক্ত সচিবের বিরুদ্ধে মামলা করবেন মুসা বিন শমসের


হাসপাতালে ভর্তি হলেন খালেদা জিয়া

হাসপাতালে ভর্তি হলেন খালেদা জিয়া


শান্তিতে নোবেল পেলেন দুই সাংবাদিক

শান্তিতে নোবেল পেলেন দুই সাংবাদিক


কিউকমের প্রতারণায় গ্রেপ্তার আরজে নীরব ১ দিনের রিমান্ডে

কিউকমের প্রতারণায় গ্রেপ্তার আরজে নীরব ১ দিনের রিমান্ডে


আফগানিস্তানে মসজিদে বোমা বিস্ফোরণে আহত শতাধিক

আফগানিস্তানে মসজিদে বোমা বিস্ফোরণে আহত শতাধিক


পাকিস্তানে ভূমিকম্পে কমপক্ষে ২০ জন নিহত

পাকিস্তানে ভূমিকম্পে কমপক্ষে ২০ জন নিহত