Friday, August 5th, 2016
বড় হুজুরকে দেখেননি জেএমবি সদস্যরাও
August 5th, 2016 at 9:05 pm
বড় হুজুরকে দেখেননি জেএমবি সদস্যরাও

প্রীতম সাহা সুদীপ, ঢাকা: নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) নতুন আমির হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন শায়খ আবুল কাশেম। যদিও জঙ্গি সংগঠনটির সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা তাকে বড় হুজুর নামেই চেনেন। জেএমবির আটক কয়েকজন নেতা পুলিশকে জানিয়েছেন সংগঠনের দু’একজন ছাড়া কেউ বড় হুজুরকে দেখেননি। তবে তার নির্দেশেই সকল কর্মকাণ্ড পরিচালিত হচ্ছে।

আড়ালে থাকা এই জেএমবি নেতার খোঁজে এবার মাঠে নেমেছে গোয়েন্দারা। ইতিমধ্যেই গাইবান্ধায় তার অবস্থান শনাক্ত করতে পেরেছেন আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। কাউন্টার টেরোরিজম এবং ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের একটি বিশেষ দল গত দু’দিন ধরে গাইবান্ধা ও বগুড়ায় তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে বড় হুজুরের অবস্থান জানার চেষ্টা করছেন। আবুল কাশেমকে খুঁজে না পেলেও গাইবান্ধায় তার অবস্থান মোটামুটি নিশ্চিত বলে জানিয়েছেন তারা।

গোয়েন্দা সূত্র জানিয়েছে, জেএমবির আমির মাওলানা সাইদুর রহমান গ্রেফতার হওয়ার পর থেকেই জঙ্গি সংগঠনটির আধ্যাত্মিক নেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন শায়খ আবুল কাশেম। পরে তাকে সংগঠনের আমিরের দায়িত্ব দেয়া হয়।

monirol

কাউন্টার টেরোরিজম এবং ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের প্রধান, ডিআইজি মনিরুল ইসলাম নিউজনেক্সটবিডি ডটকমকে বলেন, ‘মাওলানা সাইদুর রহমান গ্রেফতার হওয়ার পর থেকে আবুল কাশেম ওরফে বড় হুজুর জেএমবির প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন বলে আমাদের কাছে তথ্য আছে। তাকে নেপথ্যে রেখেই জেএমবির সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছিল।’

তিনি বলেন, ‘সব সময় আড়ালে থাকা এই জেএমবি নেতা যাতে দেশ ত্যাগ করতে না পারে সে লক্ষ্যে দেশের সকল ইমিগ্রেশন পয়েন্টে আবুল কাশেম সম্পর্কে অবহিত করা হয়েছে।’

মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘নতুন ধারার জেএমবি সদস্যদের অন্যতম মাস্টারমাইন্ড হিসেবে কাজ করছেন তামিম চৌধুরী। এই গ্রুপে আরও মাস্টারমাইন্ড রয়েছেন। তাদের আইনের আওতায় আনতে ধারাবাহিক অভিযান চলছে। গুলশান, শোলাকিয়া এবং কল্যাণপুরের ঘটনায় নতুন ধারার জেএমবির শক্তি অনেকটাই ক্ষয় হয়ে গেছে। তাদের প্রতিহত করতে পুলিশের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।’

Tamim-00-newsnextbd-

সূত্র জানায়, গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁ ও শোলাকিয়ায় হামলার মাস্টার মাইন্ড তামিম আহমেদ চৌধুরী গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের আস্তানায় গিয়ে শায়খ আবুল কাশেমের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন। সেখানে নতুন ধারার জেএমবির কয়েকজন নেতাও উপস্থিত ছিলেন।

পরবর্তীকালে বড় হুজুরকে ঢাকাতেও আনা হয়। ঢাকার বিভিন্ন ঘরোয়া বৈঠকে শায়খ আবুল কাশেম সংগঠনের নেতাদের উদ্দেশে বয়ান দেন। এছাড়া গাইবান্ধার সাঘাটা, বগুড়ার সারিয়াকান্দি এবং দিনাজপুরের রাণীর বন্দরে আঞ্চলিক জঙ্গি নেতাদের সঙ্গেও তার বৈঠক হয়। শুধু তাই নয় জঙ্গি তৈরির জন্য একাধিক বইও লিখেছেন আবুল কাশেম, যা নতুন জঙ্গিদের পড়তে দেয়া হয়।

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/পিএসএস


সর্বশেষ

আরও খবর

উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে শাবি শিক্ষার্থীদের আমরণ অনশন

উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে শাবি শিক্ষার্থীদের আমরণ অনশন


এবারের বিজয় দিবসে দেশবাসীকে শপথ পড়াবেন প্রধানমন্ত্রী

এবারের বিজয় দিবসে দেশবাসীকে শপথ পড়াবেন প্রধানমন্ত্রী


জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম মারা গেছেন

জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম মারা গেছেন


নির্বাচনী সহিংসতায় ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু

নির্বাচনী সহিংসতায় ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু


নটরডেম ছাত্রের মৃত্যু: তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন ডিএসসিসির

নটরডেম ছাত্রের মৃত্যু: তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন ডিএসসিসির


আগামী বছর দেশে টিকা উৎপাদন শুরু হতে পারে: সালমান এফ রহমান

আগামী বছর দেশে টিকা উৎপাদন শুরু হতে পারে: সালমান এফ রহমান


মুশফিককে বিসিবির কারণ দর্শানোর নোটিশ

মুশফিককে বিসিবির কারণ দর্শানোর নোটিশ


জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে খালেদা জিয়া: মির্জা ফখরুল

জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে খালেদা জিয়া: মির্জা ফখরুল


বিএনপি যত খুশি গালি দিক, কিছু করার নেই: আইনমন্ত্রী

বিএনপি যত খুশি গালি দিক, কিছু করার নেই: আইনমন্ত্রী


কড়াইল বস্তিতে ছয় হাজার টিকা দিল ডিএনসিসি

কড়াইল বস্তিতে ছয় হাজার টিকা দিল ডিএনসিসি