Saturday, July 2nd, 2016
মরে যাচ্ছে ‘ডেড সি’!
July 2nd, 2016 at 6:07 pm
মরে যাচ্ছে ‘ডেড সি’!

ডেস্ক: জর্ডান এবং ইসরায়েলের সীমান্তে অবস্থিত ডেড সি সম্পর্কিত সবচেয়ে চমকপ্রদ তথ্যটি হলো এর পানি এতটাই ঘন যে তাতে কেউ চাইলেও ডুবতে পারে না! কিন্তু সম্প্রতি বিবিসি জানিয়েছে, সেই মৃত সাগর দিন দিন সঙ্কুচিত হয়ে মারা যাচ্ছে!

তিরিশ বছর আগে যখন ইজরায়েলের এনগেডি রিজর্টটি তৈরি হয়েছিল তখন ডেড সির পানি ছিল তার দেয়ালের গা ঘেঁষে। কিন্তু এখন এই সমুদ্র এত দ্রুত সঙ্কুচিত হয়ে আসছে যে তার পানি দেখতে হলে পর্যটকদের জন্য তৈরি এক ট্রেনে পাড়ি দিতে হয় প্রায় ২ কিলোমিটার। তবে ডেড সি-র প্রাচীন সব গুণাবলী অবশ্য এখনো অটুট রয়েছে। 

এখনো খনিজ সমৃদ্ধ এবং স্বাস্থ্যকর কাদামাটি গায়ে মাখা যায় কিংবা ঘন লবণাক্ত পানিতে নামা যায়। তাতে ভেসে ভেসে বইও পড়া যায়। ডেড সি-র পানিতে এভাবে ভেসে থাকার আগ্রহেই সেখানে যান অনেক পর্যটক। ত্বকের পরিচর্যায় ডেডি সি সৈকতের খনিজ সমৃদ্ধ কাদামাটি গায়ে মাখা পর্যটকদের দারুণ পছন্দ।

বেশ কয়েক বছর হলো ডেড সির আশেপাশের চেহারা খুব দ্রুত পরিবর্তন হচ্ছে। গতবছরও এখানে পর্যটকদের জন্য থাকার জায়গা, দোকানপাট সহ আরো অনেক ধরনের সুযোগ সুবিধা ছিল। কিন্তু এখন তার কিছুই আর বলতে গেলে নেই। কারণ পুরো এলাকা জুড়ে তৈরি হচ্ছে সিংকহোল। প্রাকৃতিক ভাবে তৈরি হওয়া মাটির গর্তে দেবে যাচ্ছে পুরো ভবনও। গত কয়েক বছরে পুরো এলাকায় কয়েক হাজার চোরাবালির মত সিংকহোলে দেবে গেছে প্রচুর স্থাপনা।

হারিয়ে যাচ্ছে এমন দারুণ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। ডেড সির চারপাশে হাঁটলেই মনে হয় যে ভূতত্ত্বের ব্যবহারিক দিকটি আপনি নিজ চোখে দেখছেন। লবণের তৈরি মাটি পায়ের নীচে পড়ে ক্রিস্টালের মত চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে পড়ছে। কিন্তু কেনো মৃত্যু ঘটছে ডেড সির? কারণটা হলো যে জর্ডান নদী থেকে এখানে পানি আসে, সেই নদীর পানি সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

যদিও এই সমস্যা সমাধানের একটি পরিকল্পনা আছে। লোহিত সাগর থেকে মরুভূমির ওপর দিয়ে একটি পাইপলাইন তৈরি করা। যেই প্রকল্পটি হবে অনেক ব্যয়বহুল। তবে পরিবেশবাদী গোষ্ঠি ইকোপিসের সালাম আব্দুর রহমান বলছেন, এই অর্থ ব্যয় করাটা যুক্তিসঙ্গত। কারণ ডেড সি রক্ষা করতে পারলে একটি ইঙ্গিত পাওয়া যাবে যে মানুষ পরিবেশের রোগ সারিয়ে সুস্থ করে তুলতে পারে!

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/টিএস


সর্বশেষ

আরও খবর

প্রধানমন্ত্রীপরিচয়ে তাজউদ্দীন ইন্দিরার সমর্থন আদায় করেন যেভাবে!

প্রধানমন্ত্রীপরিচয়ে তাজউদ্দীন ইন্দিরার সমর্থন আদায় করেন যেভাবে!


সামার অফ সানশাইন

সামার অফ সানশাইন


ঢাকার ১৫ মাইলের মধ্যে মিত্রবাহিনী

ঢাকার ১৫ মাইলের মধ্যে মিত্রবাহিনী


যুক্তরাষ্ট্রের হুমকীর মুখেও অটল ভারত

যুক্তরাষ্ট্রের হুমকীর মুখেও অটল ভারত


বেসামাল প্রেসিডেন্ট, গভর্নর দিশেহারা

বেসামাল প্রেসিডেন্ট, গভর্নর দিশেহারা


পালানোর চেষ্টা ব্যর্থ নিয়াজির

পালানোর চেষ্টা ব্যর্থ নিয়াজির


২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪, জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু

২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪, জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু


করোনা সংক্রমন ঠেকাতে ব্রিটিশ সরকারের নতুন আইন লঙ্ঘন করলে সর্বোচ্চ  ১০ হাজার পাউন্ড জরমিানা

করোনা সংক্রমন ঠেকাতে ব্রিটিশ সরকারের নতুন আইন লঙ্ঘন করলে সর্বোচ্চ ১০ হাজার পাউন্ড জরমিানা


ভাইরাসের সাথে বসবাস

ভাইরাসের সাথে বসবাস


মুজিববর্র্ষে লন্ডনে জয় বাংলা ব্যান্ডের রঙ্গিন ভালবাসা

মুজিববর্র্ষে লন্ডনে জয় বাংলা ব্যান্ডের রঙ্গিন ভালবাসা