Wednesday, August 24th, 2016
‘পৃথিবীর বাহিরে মহাবিশ্বে জীবনের অনুসন্ধান’
August 24th, 2016 at 12:56 pm
‘পৃথিবীর বাহিরে মহাবিশ্বে জীবনের অনুসন্ধান’

পৃথিবী ছাড়া এই মহাবিশ্বের অন্য কোথাও প্রাণের অস্তিত্ত্ব আছে কি? প্রায় প্রতিটি মানুষের মনকে আলোড়িত করে এই প্রশ্ন। ভিন্যগ্রহ বা উপগ্রহে প্রাণের অস্তিত্ত্ব নিয়ে আজ পর্যন্ত বহু গবেষণা হয়েছে, লেখা হয়েছে অসংখ্য বই, তৈরি হয়েছে সিনেমা, ডকুমেন্টারী, টিভি প্রোগ্রাম, কিন্তু এখন পর্যন্ত পৃথিবী ব্যতীত মহাবিশ্বের কোথাও প্রাণের অস্তিত্ত্বের সন্ধান সুনিশ্চিতভাবে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

যদিও এ ব্যাপারে অধিকাংশ গবেষণা পাশ্চাত্য কেন্দ্রিক, তবে বাংলাদেশেও মহাকাশ বিজ্ঞানের এ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি নিয়ে আগ্রহের কোন কমতি নেই। আর তারই প্রেক্ষিতে মহাবিশ্বে ভিনগ্রহ ও উপগ্রহে প্রাণের অস্তিত্ত্ব থাকার ব্যাপক সম্ভাবনার বিস্তারিত নিয়ে সম্প্রতি বের হয়েছে তরুন বাংলাদেশি লেখক ওবায়দুর রহমানের নতুন বই ‘দি সার্চ ফর একস্ট্রা টেরেসট্রিয়াল লাইফ ইন দি ইউনিভার্স’ (The Search for Extra Terrestrial life in the Universe)।  ইংরেজি ভাষায় লেখা এই বইটিতে লেখক ওবায়দুর রহমান বৈজ্ঞানিক দৃষ্টিকোন থেকে মূলত এটাই তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন যে- এই মহাবিশ্বের যে কোন প্রান্তে প্রাণের অস্তিত্ব থাকাটা একই সাথে যুক্তিসংগত এবং স্বাভাবিক।

‘দ্যা সার্চ ফর একস্ট্রা টেরেসট্রিয়াল লাইফ ইন দি ইউনিভার্স’ বইটিতে রয়েছে মোট পাঁচটি অধ্যায়, যাতে লেখক প্রজ্ঞার সাথে মহাবিশ্বে প্রাণের সম্ভাবনা সংশ্লিষ্ট বহু তাত্ত্বিক এবং গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সাবলিল ভাবে তুলে ধরেছেন। তিনি তার অনুসন্ধানী লেখনীতে তুলে ধরেছেন পৃথিবী ছাড়াও মহাবিশ্বের অন্যান্য গ্রহ-উপগ্রহে জীবনের উপস্থিতির বৈজ্ঞানিক সম্ভাবনা। মহাবিশ্ব কেন্দ্রিক বহু বিষয় এ বইটিতে এসেছে; যেমন- পৃথিবী ছাড়া আমাদের সৌরজগতের অন্যান্য গ্রহ ও উপগ্রহে প্রাণের অস্তিত্ত্ব থাকার সম্ভাবনা, সৌরজগতের বাইরে পৃথিবীর মত প্রাণের অনুকুল পরিবেশ ও আবহাওয়া সম্পন্ন গ্রহ থাকার সম্ভাবনা, সেই সম্ভাবনাময় গ্রহগুলোর বিস্তারিত বিবরণ ইত্যাদি। বইটিতে আরো পাওয়া যাবে পৃথিবীতে প্রাণের আবির্ভাবের ইতিহাস এবং তার বিস্তারিত ব্যাখ্যা, যা থেকে পাঠক মহাবিশ্বের অন্য গ্রহতে কিভাবে প্রাণের উদ্ভব ও বিস্তারণ হতে পারে সে ব্যাপারে ধারণা পাবেন। বইটি যেকোন বিজ্ঞানমনস্ক পাঠকের জন্য হয়ে উঠবে এক বৈচিত্রময় ও রোমাঞ্চকর যাত্রার অভিজ্ঞতা।

লেখক ওবায়দুর রহমান তার সুলেখনির মাধ্যমে বৈজ্ঞানিক দৃষ্টিকোণ থেকে ভিনগ্রহে প্রাণের অস্তিত্ত্ব থাকার সম্ভাবনার পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন একাডেমিক বিষয় যেমন পদার্থবিদ্যা, জ্যোর্তিবিদ্যা, জীববিদ্যা, রসায়ন, ইতিহাস, ধর্ম, জীবনের বিবর্তন ও মহাকাশ বিজ্ঞান সহ অনেক জটিল বিষয় পাঠকের কাছে উপস্থাপন করেছেন অত্যন্ত দক্ষতার সাথে। ‘অতিরিক্ত স্থলজ জীবন’ বা একস্ট্রা টেরেসট্রিয়াল লাইফ এর প্রেক্ষিতে বইটিতে উঠে এসেছে সেই রহস্যময় ইউএফও (UFO) বা অসনাক্ত উড়ন্ত বস্তুর মতো রোমাঞ্চকর ঘটনাগুলোর ব্যাখ্যা। লেখক এর সাথে আরও উপস্থাপন করেছেন প্রাচীন মহাকাশচারী তত্ত্ব বা এনসিয়েন্ট এস্ট্রোনাট থিয়োরির মত বিষয়ের বিজ্ঞান সম্মত বিশ্লেষণ। লেখক তার এই বইটিতে মহাবিশ্বে প্রাণের অস্তিত্ত্ব খোঁজার বৈজ্ঞানিক প্রচেষ্টা নিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন বিখ্যাত সংস্থার, যেমন যুক্তরাষ্ট্রের নাসা (NASA) এবং সেটি (SETI) কর্তৃক গৃহীত  বিভিন্ন উদ্যোগের কথা তুলে ধরেছেন। বিবরণ দিয়েছেন রেডিও টেলিস্কোপ ও স্পেস প্রোবদের কথা যাদের মাধ্যমে মহাবিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রাণের অস্তিত্ত্ব সম্বন্ধে জানা যাবে; এছাড়াও পৃথিবীর বাইরে যদি অন্য কোন সভ্যতা খুঁজে পাওয়া যায়, তাহলে তাদের সাথে কিভাবে যোগাযোগ করা সম্ভব হবে সে সম্বন্ধেও বিস্তারিত তথ্য দিয়েছেন তার এই বইটিতে।

গত শতাব্দির আগে থেকেই বিজ্ঞানীরা নিরলস ভাবে অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছেন দূর মহাবিশ্বের অন্য কোন গ্রহ, উপগ্রহে জীবনের অথবা অন্য কোন সভ্যতার সন্ধানে। যদিও এ ব্যাপারে এখন পর্যন্ত নির্দিষ্ট কোন উত্তর বা প্রমাণ মানুষের কাছে এসে পৌঁছেনি। তবে অনেকের মতই লেখক ওবায়দুর রহমান নিশ্চিত যে পৃথিবীর বাইরে প্রাণের অস্তিত্ব থাকার সম্ভাবনা অত্যন্ত দৃঢ়। নিঃসন্দেহে বইটিতে উপস্থিত এ সংক্রান্ত বিশ্লেষণগুলো পাঠককে মহাবিশ্বে প্রাণের অস্তিত্ত্ব সম্পর্কে অধির আগ্রহী করে তুলবে।

নিঃসন্দেহে বইটি লেখকের নিবেদিত গবেষণার এক বহিঃপ্রকাশ। ‘বিগ ব্যাং তত্ত্ব’ থেকে মহাবিশ্বের বিস্তৃতি এবং পৃথিবীতে জীবনের বিবর্তন, সবকিছুই এসেছে লেখক ওবায়দুর রহমানের অনন্য এই বইটিতে। অত্যন্ত তথ্যপূর্ণ এবং মহাকাশ বিজ্ঞানের বিস্ময়কর সব ঘটনাবলী নিয়ে লেখা এই বইটি পাঠককে ব্যাপক ভাবে অবগত ও আলোকিত করবে এ ব্যাপারে লেখক সুনিশ্চিত। আরো চমকপ্রদ বিষয় হচ্ছে, বইটি সহজপাঠ্য এবং প্রাঞ্জল ভাষায় লেখা, তাই যে কোন বয়সের পাঠকের কৌতুহল নিবৃত করার ক্ষমতা রয়েছে বইটির। লেখক ওবায়দুর রহমানের আশা যে তার এ বই ‘দ্যা সার্চ ফর একস্ট্রা টেরেসট্রিয়াল লাইফ ইন দি ইউনিভার্স’ পাঠক সমাজে সমাদৃত হবে। বইটি লেখকের তৃতীয় বই। বইটি প্রকাশ করেছে স্লীক পাবলিকেশন্স (Sleek Publications)।

প্রতিবেদন ও সম্পাদনা: এস. কে. সিদ্দিকী


সর্বশেষ

আরও খবর

মুক্তিযুদ্ধে যোগদান

মুক্তিযুদ্ধে যোগদান


স্বাধীনতার ঘোষণা ও অস্থায়ী সরকার গঠন

স্বাধীনতার ঘোষণা ও অস্থায়ী সরকার গঠন


শিশু ধর্ষণ নিয়ে লেখা উপন্যাস ‘বিষফোঁড়া’ নিষিদ্ধ!

শিশু ধর্ষণ নিয়ে লেখা উপন্যাস ‘বিষফোঁড়া’ নিষিদ্ধ!


১৯৭১ ভেতরে বাইরে সত্যের সন্ধানে

১৯৭১ ভেতরে বাইরে সত্যের সন্ধানে


সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণে এলেন বেলারুশের সাংবাদিকেরা!

সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণে এলেন বেলারুশের সাংবাদিকেরা!


লুণ্ঠন ঢাকতে বারো মাসে তেরো পার্বণ

লুণ্ঠন ঢাকতে বারো মাসে তেরো পার্বণ


দ্য লাস্ট খন্দকার

দ্য লাস্ট খন্দকার


১৯৭১ ভেতরে বাইরে সত্যের সন্ধানে

১৯৭১ ভেতরে বাইরে সত্যের সন্ধানে


নিউ নরমাল: শহরজুড়ে শ্রাবণ ধারা

নিউ নরমাল: শহরজুড়ে শ্রাবণ ধারা


তূর্ণা নিশীথা

তূর্ণা নিশীথা