Monday, July 4th, 2022
মাদকাসক্ত ছেলেগুলোর গল্প
November 14th, 2016 at 10:32 pm
মাদকাসক্ত ছেলেগুলোর গল্প

ওমর ফারুক: 

হাসপাতালে একদিন একজন মায়ের কথা শুনে আমি কথা হারিয়ে ফেলেছিলাম। ‘প্যাটে ধরসি বইলাই, নাইলে গলা টিপ্পা মাইরাই ফ্যালতাম।’

মাদকাসক্ত ছেলের কথা শোনাচ্ছেন একজন প্রৌঢ়া। অনেক বছর ধরে ছেলে নেশায় ডুবে আছে। জমিজমা, বাড়িঘর, মা-বৌয়ের সোনাদানা সব বিক্রি করে নেশার টাকা জুগিয়েছে। এখন আর বিক্রি করারকিচ্ছু নেই। বয়স্কা মা মাদকাসক্ত ছেলেকে নিয়ে ঘুরছেন রিহ্যাব থেকে রিহ্যাবে। বাবা অন্যের বাড়িতে কাজ করেন।

মায়ের কাছে সব সন্তানের জন্য সমান মমতা। পৃথিবীতে এমন কোন মা নেই, এমন মা হবেনও না, এমন নারীর জন্মও হবে না, যিনি মনের সুখে সন্তানের গলা টিপে মেরে ফেলতে চান বা চাইবেন। একজন মা কতটা বীতশ্রদ্ধ হলে পরে নিজের রক্তমাংসে গড়া সন্তানের গলা টিপে মেরে ফেলার চিন্তা করতে পারেন! আমি এমপ্যাথি দিয়ে যতই অনুভূতিটাকে বোঝার চেষ্টা করি না কেন, মাতৃত্বের চিরন্তন মমতা যেখানে সন্তানের রক্ষাকবচ হয়ে উঠতে পারেনি, বাহ্যিক সমানুভুতির প্রাচুর্য সেখানে বাঁধাপ্রাপ্ত হবেই। সেই মায়ের জায়গায় নিজের মায়ের কথা ভাবলাম। কোনদিন নাদেখা-নাশোনা মাদকাসক্ত যুবকটি আমার ভাই। ভাবামাত্রই শরীর ঝাঁকুনি দিল। দীর্ঘদিনের অনভ্যস্ত চোখদুটো ঝাপসা হয়ে উঠল।

একটি মাত্র সন্তান, সেও কিনা নেশায় আচ্ছন্ন! সন্তানের কথা শোনাতে শোনাতে প্রৌঢ়া মা দেয়াল ঘেঁসে ধপ করে মেঝেতে বসে পড়লেন। নাকের পানি, চোখের পানি একাকার। ইচ্ছে করছিল মায়ের সাথে গিয়ে একটু কাঁদি। ফরমাল পোশাক পড়া, চোখে চশমাঅলা গম্ভীরমুখো সাইকোথেরাপিস্ট আমি। আমার কাঁদতে নেই।

স্রষ্টার শ্রেষ্ঠ সৃষ্টি মানুষ। তবুও কতটা ঠুনকো তাঁর আত্মসংযম। জাহানারা ইমামের একটা বইয়ে পড়েছিলাম, একটা মানুষের এতই তাকদ থাকে যে, যদি জানে সে কোথায় যাচ্ছে, সারা কায়নাত তাঁকে পথ করে দেয়। আমার মনে হয় কথাটা বিপরীতভাবেও সত্য। একজন মানুষ যদি ভাঙনের পথে পা বাড়ায়,পুরো কায়নাত সাজিশ করতে বসে যায়, সে ভাঙবেই।

একটি মাদকাসক্ত ছেলের পরিণতি দেখে তিন কন্যা সন্তানের জননী কেন বলেন না, ভাগ্যিস আমার কোলে কোন ছেলে ছিল না? আপাদমস্তক নেশায় বুঁদ হয়ে থাকা ছেলের অগৌরবের জীবন দেখে একজন কাকবন্ধ্যা নারী কেন স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন না? ভবিষ্যতের অবলম্বন, যে পুত্র বাবা-মায়ের তিলতিল করে জমিয়ে রাখা সময়, স্বপ্ন, প্রত্যাশা এবং অর্থের শ্রাদ্ধ করে মাদকাসক্ত হয়ে উঠে, তার জন্য কেন এত প্রার্থনা? হৃদয় নিংড়ানো এত মমতা কেন? পুত্রবাৎসল্যের কাছে পিতৃত্ব বা মাতৃত্ব কি কেবলই অসহায়ের? নিরঙ্কুশ মততার? কাঠিন্যের নয় কেন?

মাদকাসক্ত মানুষদের সাহায্য করা আমার পেশাগত দায়। কিন্তু ব্যক্তিগতভাবে কোন দায় নেই। ‘আমি তার আপন মানুষ’ এই সাম্পর্কিক অনুভূতি যদি তার ভেতর কোন দায়িত্ববোধের জন্ম না দেয়, ‘সে আমার আপন মানুষ’ ভেবে আমিই বা কেন যক্ষের মত দায়িত্ববোধের ভান্ডারটিকে পাহারা দিয়ে রাখব? তুমি যে ভাঙনের পথে এলে,সে ভাঙন প্রান্তরেই ঘটুক সৃষ্টি সুখের উল্লাস। নেশা যত গাঢ়ই হোক না কেন, ইচ্ছাশক্তির কাছে যেখানে ঈশ্বরও নেমে আসে, সেখানে নব উপলব্ধির উন্মোচন উৎকট কৌতুক নয়। মানুষ জানে না,সে কত ক্ষমতাবান। জানে না, সে কত সংযমী হয়ে উঠতে পারে। পৃথিবীতে এমন কোন নেশার আবিষ্কার সম্ভব হয়নি যে নেশা সংযমের নেশাকে অতিক্রম করে যেতে পারে।

omar-farukলেখক: ওমর ফারুক, ট্রেইনি ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিস্ট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।


সর্বশেষ

আরও খবর

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব


আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন

আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন


চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ

চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ


তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন

তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন


যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার

যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার


আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০

আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০


সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি

সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি


চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার

চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার


সাংবাদিকতা বিরোধী আইন হবে না: মন্ত্রী

সাংবাদিকতা বিরোধী আইন হবে না: মন্ত্রী


সেনাবাহিনীতে নিরপেক্ষ মূল্যায়ন চান প্রধানমন্ত্রী

সেনাবাহিনীতে নিরপেক্ষ মূল্যায়ন চান প্রধানমন্ত্রী