Thursday, October 27th, 2016
মানুষ দেখলেই ভয়ে কেঁদে উঠছে শিশুটি
October 27th, 2016 at 1:20 pm
ধর্ষণের শিকার পাঁচ বছরের শিশুটি এখন মানুষ দেখলেই ভয়ে চিৎকার করে কেঁদে উঠছে। চিকিৎসকরা বলছেন, নির্মম নির্যাতনের শিকার শিশুটি শুধু শারীরিকভাবেই নয় মানসিকভাবেও বড় ধরনের আঘাত (ট্রমা) পেয়েছে।
মানুষ দেখলেই ভয়ে কেঁদে উঠছে শিশুটি

ঢাকা: দিনাজপুরে ধর্ষণের শিকার পাঁচ বছরের শিশুটি এখন মানুষ দেখলেই ভয়ে চিৎকার করে কেঁদে উঠছে। চিকিৎসকরা বলছেন, নির্মম নির্যাতনের শিকার শিশুটি শুধু শারীরিকভাবেই নয় মানসিকভাবেও বড় ধরনের আঘাত (ট্রমা) পেয়েছে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন একাধিক রোগীর স্বজন জানায়, দু’দিন ধরে মধ্যরাতেও ওসিসি থেকে এক শিশুর কান্নার আওয়াজ শুনতে পান তারা।

ওসিসির সমন্বয়কারী ডা. বিলকিস বলেন, “শিশুটি গোপনাঙ্গ থেকে শুরু করে সারা দেহে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন ও পোড়া দাগ রয়েছে। শারীরিক ও মানসিকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত শিশুটি এখন ওসিসির অন্যান্য রোগী এমনকি চিকিৎসক ও নার্সদের দেখলেও ভয়ে চিৎকার করে কেঁদে উঠছে। বেশিরভাগ সময়ই তাকে ওষুধ খাইয়ে ঘুম পাড়িয়ে রাখা হচ্ছে।”

শিশুটির সুচিকিৎসার্থে গাইনি ও অবসট্রেটিকস্ বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. ফেরদৌসি আক্তার লিপিকে প্রধান করে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের সমন্বয়ে গঠিত ৯ সদস্যের মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে ওসিসিতে এসে শিশুটির সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেন।

ডা. বিলকিস বলেন, “ভর্তির পর থেকেই শিশুটির চিকিৎসা চলছিল। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা পর্যবেক্ষণ শেষে কিছু ওষুধ পরিবর্তন করে দেন। বোর্ড সদস্যরা আবার এক সপ্তাহ পর ফলোআপ চিকিৎসা দেবেন। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের পরামর্শে শিশুটিকে অন্য রোগীদের কাছ থেকেও আলাদা করে রাখা হয়। তার বেডের পাশে একটি পর্দা টানিয়ে দেয়া হয়েছে। এছাড়া ওসিসিতে রোগীর স্বজনদের প্রবেশাধিকার সংরক্ষিত করা হয়েছে।”

৯ সদস্যের মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা হলেন, শিশু সার্জারি বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. আশরাফুল হক কাজল, মানসিক রোগ বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. আবদুল্লাহ আল মামুন, ইউরোলজি বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. আমানুর রসুল, নিউরোসার্জারি বিভাগীয় প্রধান জিল্লুর রহমান, শিশু বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. সাঈদা আনোয়ার, বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, অ্যানেসথেসিয়া বিভাগের প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ডা. মোজাফফর হোসেন।

উল্লেখ্য, পাঁচ বছরের এ শিশুকে মঙ্গলবার বেলা ১১টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস (ওসিসি) সেন্টারে ভর্তি করা হয়। শিশুটির মাথা, গলা, হাত ও পায়ে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এছাড়া শরীরে কামড়ের দাগ এবং ঊরুতে সিগারেটের ছ্যাঁকা দেয়ার ক্ষতও রয়েছে। শিশুটি সম্প্রতি তার বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। নিখোঁজের পরদিন ভোরে বাড়ির কাছে একটি হলুদ ক্ষেত থেকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করা হয়। প্রথমে স্থানীয় হাসপাতাল এবং পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল হয়ে শিশুটি এখন ঢামেক ওসিসিতে।

ওই ঘটনার পর ২০ অক্টোবর শিশুটির বাবা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। মামলার এজাহারভুক্ত আসামিরা হলেন, সাইফুল ইসলাম ও আফজাল হোসেন কবিরাজ। মামলার পর ২৪ অক্টোবর (সোমবার) রাতে দিনাজপুর শহর থেকে আসামি সাইফুল ইসলামকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

গ্রন্থনা ও সম্পাদনা: আবু তাহের


সর্বশেষ

আরও খবর

করোনায় মৃতের সংখ্যা ছাড়াল ১০ হাজার

করোনায় মৃতের সংখ্যা ছাড়াল ১০ হাজার


জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বের হলেই জরিমানা

জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বের হলেই জরিমানা


লকডাউনের নামে সরকার ক্র্যাকডাউন চালাচ্ছে: ফখরুল

লকডাউনের নামে সরকার ক্র্যাকডাউন চালাচ্ছে: ফখরুল


আসামে বন্দী রোহিঙ্গা কিশোরীকে কক্সবাজারে চায় পরিবার

আসামে বন্দী রোহিঙ্গা কিশোরীকে কক্সবাজারে চায় পরিবার


ছয় দিনে নির্যাতিত অর্ধশত সাংবাদিক: মামলা নেই, কাটেনি আতঙ্ক

ছয় দিনে নির্যাতিত অর্ধশত সাংবাদিক: মামলা নেই, কাটেনি আতঙ্ক


ঢাকা-দিল্লি ৫ সমঝোতা স্মারক সই

ঢাকা-দিল্লি ৫ সমঝোতা স্মারক সই


করোনায় আরও ৩৯ মৃত্যু

করোনায় আরও ৩৯ মৃত্যু


করোনায় আক্রান্ত শচীন

করোনায় আক্রান্ত শচীন


নাশকতা ঠেকাতে র‍্যাব-পুলিশের কঠোর অবস্থান

নাশকতা ঠেকাতে র‍্যাব-পুলিশের কঠোর অবস্থান


শুক্র ও শনিবার যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত থাকবে

শুক্র ও শনিবার যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত থাকবে