Friday, November 4th, 2016
মার্কিন নির্বাচনের ১০ টি অদ্ভুত বিষয়    
November 4th, 2016 at 9:09 pm
মার্কিন নির্বাচনের ১০ টি অদ্ভুত বিষয়    

ফারহানা করিম চৌধুরী, ডেস্ক: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আর মাত্র তিনদিন বাকী। নারী বিদ্বেষী এবং অভিবাসীবিরোধী ডোনাল্ড ট্রাম্প নাকি উদার হিলারি ক্লিনটন দেশটির পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হবেন, তা দেখার জন্য মার্কিনীদের পাশাপাশি বিশ্ববাসীও রুদ্ধশ্বাসে অপেক্ষা করছেন।ব্যাপক আগ্রহ নিয়ে বিশ্ব মিডিয়াও এই নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করে যাচ্ছে। কেবল প্রেসিডেন্ট প্রার্থীই নয় বরং নির্বাচনের খুঁটিনাটি বিভিন্ন দিকও তারা পাঠক এবং দর্শকদের সামনে তুলে ধরছে। এহেন উত্তেজনাকর পরিস্থিতিতে মার্কিন নির্বাচনের অদ্ভুত কিছু বিষয় পাঠকদের সামনে উপস্থাপন করা হলো।

  • নির্বাচনের দিন মদ বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা:

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দিন মদ বিক্রি নিষিদ্ধ করে কোন আইন না থাকলেও, কোন কোন অঙ্গরাজ্যের কিছু শহর এবং কাউন্টিতে এই বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এক্ষেত্রে ইন্ডিয়ানার নাম উল্লেখ করা যেতে পারে। মূলত ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যের ১৮টি শহর এবং ৭টি কাউন্টিতে স্থানীয় অধ্যাদেশ অনুযায়ী ৮ নভেম্বর অর্থাৎ প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দিন মদ বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।এছাড়া কেন্টাকি এবং সাউথ ক্যারোলাইনা অঙ্গরাজ্যেও নির্বাচনের দিন মদ বিক্রি নিষিদ্ধ।

  • অজ্ঞেয়বাদীরা নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে না

যদিও যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্র ব্যবস্থায় গির্জা এবং রাষ্ট্রকে পৃথক অবস্থানে রাখা হয়েছে, তবে কিছু কিছু অঙ্গরাজ্যে নির্বাচনে অংশ নিতে হলে প্রার্থীদের অন্তত ঈশ্বরের উপর আস্থা রাখতে হয়।

টেক্সাসের সংবিধান অনুযায়ী, প্রার্থীর যোগ্যতা হিসেবে ধর্মীয় পরীক্ষা নিষিদ্ধ করা হলেও অন্তত ঈশ্বরের উপর তাকে বিশ্বাস রাখতে হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া টেনেসি, সাউথ ক্যারোলাইনা, নর্থ ক্যারোলাইনা, মিসিসিপি, মেরিল্যান্ড এবং আরকানসাসে যারা ঈশ্বরে বিশ্বাস করবেন না তারা নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারবেন না।

  • ভোটিং স্টিকার

মার্কিন ভোটারদের কাছে বিনামূল্যে ভোটিং স্টিকার বিলি করা, কখন থেকে জাতীয় প্রবণতায় পরিণত হয়েছে তা স্পষ্ট নয়। তবে ভোটের দিন নির্বাচন কেন্দ্রের বাইরে ভোটারদের হাতে ‘আমি ভোট দিয়েছি’ লেখা স্টিকার শোভা পায়।

ফ্লোরিডাভিত্তিক কোম্পানি ‘ন্যাশনাল ক্যাম্পেইন সাপ্লাই’ এর দাবি, বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে যেসব আসল ভোটিং স্টিকার পাওয়া যায়, সেগুলি তারাই ডিজাইন করেছে। ১৯৮৬ সালে কোম্পানিটি দেশজুড়ে প্রথমবারের মতো আমি ভোট দিয়েছি( আই ভোটেড) লেখা স্টিকার প্রকাশ করে।

তবে কিছু কিছু অঙ্গরাজ্য এবং স্থানীয় কাউন্টি তাদের নিজস্ব ভোটিং স্টিকার ডিজাইন করে থাকে। জর্জিয়ার ভোটারদের পিচ ফলের আকৃতির ভোটিং স্টিকার দেয়া হয়। আবার খরচ কমানোর কথা বলে শিকাগো শহরে ভোটিং স্টিকার বিলুপ্ত করা হয়েছে।

গবেষকদের ধারণা, ভোটারদের ভোটদানে আকৃষ্ট করার জন্য মার্কিন নির্বাচনে এই ভোটিং স্টিকারের প্রচলন করা হয়েছে।

  • বুথে সময়সীমা নির্ধারণ

প্রাইমারি নির্বাচনের সময় ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যের ভোটাররা বুথে তিন মিনিট থাকার সময় পান। তবে সাধারণ নির্বাচন এবং পৌর নির্বাচনে মাত্র দুই মিনিট সময় পান।

আলাবামা অঙ্গরাজ্যে ভোটাররা বুথে ভোট দেয়ার জন্য ৪ মিনিট সময় পান। তবে যদি ভোটারদের সাহায্যের প্রয়োজন হয়, তাহলে ভোটদান শেষ করার জন্য তাদের অতিরিক্ত ৫ মিনিট দেয়া হয়। তবে সাহায্যের প্রয়োজন না হলে তাদের অতিরিক্ত এক মিনিট সময় দেয়া হয়।

এছাড়া ভোট দেয়ার জন্য যদি ভোটারদের কোন লাইন না থাকে তাহলে ভোটদাতা যতখুশি তত সময় নিতে পারবেন।

  • নির্বোধদের ভোটদানে নিষেধাজ্ঞা

কেন্টাকি অঙ্গরাজ্যের সংবিধানে নির্বোধ এবং পাগলদের ভোট প্রদান করা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তবে একজন ভোটার ভোট দানে অযোগ্য কিংবা অক্ষম কি না তা নির্ধারণ করবেন একজন বিচারক।

মূলত ওহাইও, নিউ মেক্সিকো এবং মিসিসিপির সংবিধানেও নির্বোধ এবং পাগলদের ভোট দেয়ার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তবে এক্ষেত্রে নির্বোধ এবং পাগল বলতে মানসিক প্রতিবন্ধীদের বোঝানো হয়েছে।

তবে শারীরিক প্রতিবন্ধী ভোটাররা বন্ধু, আত্মীয় স্বজনদের সহায়তায় ভোট দিতে পারেন।

  • ভোটারদের একাধিকবার ভোটাধিকার

নির্বাচনের দিন অর্থাৎ ৮ নভেম্বরের আগে যেসব ভোটার আগাম ভোট দিয়েছেন, তারা চাইলে ভোট পরিবর্তন করতে পারবেন। অর্থাৎ কেউ যদি প্রথমে ট্রাম্পকে ভোট দেন পরবর্তীতে অনুশোচনায় ভুগেন, তিনি চাইলে ভোট পরিবর্তন করে হিলারিকে তা দিতে পারেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অন্তত ৭টি অঙ্গরাজ্য সুস্পষ্টভাবে  ভোটারদের ব্যালট পরিবর্তনের এই সুযোগ দিয়েছে। এই রাজ্যগুলো হলো, মিনেসোটা, পেনসিলভানিয়া, উইসকনসিন, নিউইয়র্ক, কানেকটিকাট এবং মিসিসিপি।

এই বিষয়টির প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে সম্প্রতি রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প উইসকনসিন রাজ্যের ভোটারদের প্রতি আবেদন জানিয়ে বলেছেন, তারা যদি তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হিলারিকে ভোট দিয়ে অনুতপ্ত হন তাহলে তা পরিবর্তন করতে পারেন।

উইসকনসিন রাজ্যে আগাম ভোটদাতারা নির্বাচনের আগে তিনবার তাদের প্রদত্ত ভোট পরিবর্তনের সুযোগ পান। তবে এক্ষেত্রে একটি মাত্র ভোটই গণনা করা হয়।

  • রাজনৈতিক কুকুরছানা

জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক রাজনৈতিক দল ‘নেক্সটজেন ক্লাইমেট’ ভোটকেন্দ্রে কুকুরছানা নিয়ে আসার পরিকল্পনা করেছে। এক্ষেত্রে আইওয়া, নর্থ ক্যারোলাইনা, পেনসিলভানিয়া, নেভাদা এবং নিউ হ্যাম্পশায়ারের তরুণ ভোটারদের আকৃষ্ট করাই তাদের মূল উদ্দেশ্য।

বিজনেস ইনসাইডারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, নেক্সটজেন ক্লাইমেট পরীক্ষা করে দেখতে পেয়েছে, যেসব ভোটকেন্দ্রে স্বেচ্ছাসেবক এবং ভোটকর্মীরা কুকুরছানা নিয়ে গেছে সেখানে ভোটারদের উপস্থিতি বেশি ছিল।

এছাড়া তরুণ প্রজন্মের ভোটারদের আকৃষ্ট করতে নেক্সটজেন জনপ্রিয় মোবাইল অ্যাপ যেমন, পোকেমন গো এবং টিন্ডারকে কাজে লাগাচ্ছে।

  • দ্বন্দ্বযুদ্ধ নিষিদ্ধ

কাউকে দ্বন্দ্বযুদ্ধের জন্য চ্যালেঞ্জ জানানোর বিষয়টি শুনতে সেকেলে লাগতে পারে। কিন্তু তারপরেও কোন প্রার্থী যদি সেটা করার চেষ্টা করেন তাহলে টেনেসিতে সেটা সম্ভব নয়। টেনেসিতে দ্বন্দ্বযুদ্ধের আহ্বান করলে কর্মকর্তাদের শাস্তি দেয়া হয় এবং তাদের পদবি কেড়ে নেয়া হয়।

  • মহাকাশে ভোট

১৯৯৭ সালে জর্জ ডাব্লিউ বুশ(জুনিয়র) যখন টেক্সাসের গভর্নর ছিলেন, তখন মহাকাশচারীদের মহাকাশ থেকে ভোট দেয়ার অনুমতি দেয়া হয়।

এক্ষেত্রে মহাকাশচারীরা ইমেইলের মাধ্যমে ব্যালট পেপার পান। ব্যালটটি নাসার জনসন স্পেস সেন্টারের মিশন কন্ট্রোল সেন্টার থেকে পাঠানো হয়। ভোট দেয়া শেষ হলে ব্যালটটি কাউন্টি ক্লার্ক অফিসে পাঠিয়ে দেয়া হয়। চলতি বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে মার্কিন মহাকাশচারী কেট রুবিনস ইন্টারন্যাশনাল স্পেস সেন্টার থেকে আগাম ভোট প্রদান করেন।

  • অভিষেক বাইবেল

যদিও মার্কিন সংবিধানে নির্বাচিত প্রেসিডেন্টদের বাইবেল নিয়ে শপথ করার কোন নিয়ম নেই। কিন্তু দেশটির প্রথম প্রেসিডেন্ট জর্জ ওয়াশিংটন এই ঐতিহ্যের সূত্রপাত করেন। তিনি তার অভিষেক অনুষ্ঠানে ব্যক্তিগত বাইবেল ব্যবহার করে শপথ নিয়েছিলেন।

তবে ১৮২৫ সালে প্রেসিডেন্ট জন কুইন্সি অ্যাডামস শপথ নেয়ার সময় মার্কিন আইনের বই ব্যবহার করেন। প্রেসিডেন্ট থিওডোর রুজভেল্ট ১৯০২ সালে তার প্রথম মেয়াদের অভিষেকে কোন বই ব্যবহার করেননি। কিন্তু অন্যান্য মার্কিন প্রেসিডেন্টরা শপথ নেয়ার সময় প্রতীকীভাবে বাইবেলে হাত রেখে শপথ নিয়েছেন।

বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তার দ্বিতীয় মেয়াদের অভিষেকের সময় আব্রাহাম লিংকন এবং মার্টিন লুথার কিং জুনিয়রের বাইবেল ব্যবহার করেন।

সূত্র: বিবিসি, সম্পাদনা: তুহিন


সর্বশেষ

আরও খবর

ঢাকা-দিল্লি ৫ সমঝোতা স্মারক সই

ঢাকা-দিল্লি ৫ সমঝোতা স্মারক সই


করোনায় আরও ৩৯ মৃত্যু

করোনায় আরও ৩৯ মৃত্যু


করোনায় আক্রান্ত শচীন

করোনায় আক্রান্ত শচীন


নাশকতা ঠেকাতে র‍্যাব-পুলিশের কঠোর অবস্থান

নাশকতা ঠেকাতে র‍্যাব-পুলিশের কঠোর অবস্থান


শুক্র ও শনিবার যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত থাকবে

শুক্র ও শনিবার যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত থাকবে


মতিঝিলে মোদিবিরোধী বিক্ষোভ, শিশুবক্তা রফিকুলসহ অন্তত ১০ জন আটক

মতিঝিলে মোদিবিরোধী বিক্ষোভ, শিশুবক্তা রফিকুলসহ অন্তত ১০ জন আটক


ঈদের পর স্কুল-কলেজ খোলার ইঙ্গিত শিক্ষামন্ত্রীর

ঈদের পর স্কুল-কলেজ খোলার ইঙ্গিত শিক্ষামন্ত্রীর


৮ মাস পর দেশে করোনায় এক দিনে সর্বোচ্চ ৩৫৫৪ শনাক্ত

৮ মাস পর দেশে করোনায় এক দিনে সর্বোচ্চ ৩৫৫৪ শনাক্ত


শেখ হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্রে ১৪ জঙ্গিকে ফায়ারিং স্কোয়াডে মৃত্যুদণ্ড

শেখ হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্রে ১৪ জঙ্গিকে ফায়ারিং স্কোয়াডে মৃত্যুদণ্ড


শবে বরাতের ছুটি ৩০ মার্চ

শবে বরাতের ছুটি ৩০ মার্চ