Sunday, February 9th, 2020
মুজিব বর্ষঃ স্মৃতিচারন করলেন মুক্তিযোদ্ধাদের দুই সহচর
February 9th, 2020 at 1:06 am
পাক বাহিনীর প্রধান ক্যাপ্টেন কুদ্দুসের নিকট ১৩ জন বাধ্য হয়ে আত্মসমর্পন করেন।
মুজিব বর্ষঃ স্মৃতিচারন করলেন মুক্তিযোদ্ধাদের দুই সহচর

আল মাসুদ নয়ন, বিশেষ প্রতিনিনিধি,

নালিতাবাড়ি, শেরপুরঃ যখন মুজিব বর্ষ উদযাপনের প্রস্তুতি এবং এর বাস্তাবায়ন চলছে দেশজুড়ে, তখন মুজিবপ্রেমী মুক্তিযোদ্ধারা কি ভাবছেন, কি স্মৃতিচারন করছেন- এসব নিয়েই কথা হয় প্রবীন দুই ব্যক্তির সঙ্গে, যারা প্রত্যক্ষ মুক্তিযোদ্ধা না হয়েও পরোক্ষভাবে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের এই বর্তমান সরকার মুজিব বর্ষ উদযাপন এবং এর বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছে – এসব বিষয়ে কথা বলতেই তারা উৎকণ্ঠা আর ধরে রাখতে পারেন নি। আবেগ-আপ্লুত হয়ে একের পর এক স্মৃতিচারন করতে থাকেন, বলতে থাকেন ১৯৭১ সালে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন লোমহর্ষক গল্প।

নালিতাবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডাঃ দলিল উদ্দিন
নালিতাবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডাঃ দলিল উদ্দিন

তারা ১৯৭১ সালের রণাঙ্গনে মুক্তিযোদ্ধাদের সহচর হিসেবে বিভিন্নভাবে তাদের সাহায্য-সহযোগীতা করেছেন। এমন বহু পরোক্ষ মুক্তিযোদ্ধা এদেশে রয়েছেন, যারা মুক্তিযুদ্ধে সহযোগী থেকেও নিজেদের কখনও মুক্তিযোদ্ধা দাবি করেন নি। তারা বর্তমান সরকারের সময়েও মুক্তিযোদ্ধা দাবি করে মুক্তিযোদ্ধা সার্টিফিকেটের জন্য আবেদন করেন নি। কারণ তারা দেশের স্বাধীনতা চেয়েছিলেন, তারা মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে সুবিধা পাওয়ার জন্য নিজেদের জীবন বাজি রেখে মুক্তিযোদ্ধাদের সহযোগিতা করেন নি।    

কথা হয় শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সহ-সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত সভাপতি) ডাঃ দলিল উদ্দিন এবং যোগানিয়া ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য (মেম্বার) মো. ইদ্রিস আলীর সাথে। মো. ইদ্রিস আলী দেশ স্বাধীন হওয়ার পর নালিতাবাড়ি উপজেলার ১০ নং যোগানিয়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার ছিলেন। বর্তমানে তিনি ওই ইউনিয়নেরই স্থায়ী বাসিন্দা। অন্যদিকে, নালিতাবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডাঃ দলিল উদ্দিনও একই ইউনিয়নের স্থায়ী বাসিন্দা।

তারা মুক্তিযোদ্ধাদের সাহ্যায্য এবং সহযোগিতার জন্য পাক-বাহিনী কর্তৃক কিভাবে নির্যাতিত হয়েছেন, পাক বাহিনীর ক্যাম্পে তাদের কেন বার বার ধরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে, কিভাবে সারেন্ডার করে বেঁচে আসা এবং এসেই আবার মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষে কাজ করার বিভিন্ন গল্প তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়।

নালিতাবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডাঃ দলিল উদ্দিন
নালিতাবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডাঃ দলিল উদ্দিন

ডাঃ দলিল উদ্দিন এবং ইদ্রিস আলী জানান, মুক্তিযোদ্ধাদের সাহায্য-সহযোগিতা করার জন্য তারা ৩ মাস মেঘালয়ের ঢালু ক্যাম্পেও ছিলেন। নালিতাবাড়ি দিয়ে বর্ডার পার হলেই মেঘালয়ের ঢালু এলাকা। মুক্তিযুদ্ধের সময় এখানেই ছিল মুক্তিবাহিনীর ক্যাম্প।

১৯৭১ সালে মুক্তিযোদ্ধাদের সহযোগিতা করার কারনে পাক বাহিনী তাদের উপর হামলা চালায়। এ সময় নালিতাবাড়ি এলাকায় তৎকালীন পাক বাহিনীর প্রধান ক্যাপ্টেন কুদ্দুসের নিকট বিএডিসি অফিসের নিচতলায় ডাঃ দলিল উদ্দিন, ইদ্রিস আলী, ইউনুস আলী, ইনসান আলীসহ ১৩ জন বাধ্য হয়ে আত্মসমর্পন করেন। তখন ক্যাপ্টেন কুদ্দুস তাদের অবহিত করেন, পাকিস্তানের পক্ষে কাজ করার জন্য, তখন তারা বাধ্য হয়ে পাকিস্তানের পক্ষে কাজ করতে স্বীকারোক্তি দিলে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

এরপর, তাদের ছেড়ে দেওয়া হলেই, তারা ফিড়ে এসে আবার মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষে কাজ করতে শুরু করেন। মুক্তিযোদ্ধাদের নকশা দেওয়া, রাস্তা চিনিয়ে দেওয়া, পাক বাহিনীর অবস্থান জানিয়ে দেওয়া, মুক্তিবাহিনীর থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করাসহ বিভিন্নভাবে তারা মুক্তিযোদ্ধাদের সহযোহিতা করতে থাকেন।

এরপর, ডাঃ দলিল উদ্দিনকে আবারো পাক বাহিনীর ক্যাম্পে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়। তাকে মুক্তিফৌজ সন্দেহে ক্যাম্পে নিয়ে তার উপর নির্যাতন চালায় পাক-বাহিনী, বলেন নালিতাবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সহ-সভাপতি ডাঃ দলিল উদ্দিন।

তিনি বলেন, ক্যাম্পে নিয়ে গেলে আমাকে লঘু শাস্তি দেওয়া হয়। অতপরঃ আমাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। জিজ্ঞাসাবাদ করার পর আমাকে মুক্তিযোদ্ধা বলে অবহিত করে। আমি মুক্তিযোদ্ধা নই এই মর্মে পাক-বাহিনীকে অনেক বোঝানোর পর, আমি বিএডিসি’তে চাকরি করার সুবাধে সেইবারও আমাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এভাবেই চলতে থাকে মুক্তিযুদ্ধ। প্রায় দীর্ঘ নয় মাস পর বাংলার মানুষ স্বাধীনতা ছিনিয়ে আনে।

এএমএন/     

সাক্ষাৎকারটির ভিডিও দেখুনঃ-


সর্বশেষ

আরও খবর

সাগরে ৪ নম্বর সংকেত, বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে আরও দুই দিন

সাগরে ৪ নম্বর সংকেত, বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে আরও দুই দিন


দু-তিন দিনের মধ্যে আলুর দাম কমবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

দু-তিন দিনের মধ্যে আলুর দাম কমবে: বাণিজ্যমন্ত্রী


সারা দেশের নৌ ধর্মঘট প্রত্যাহার

সারা দেশের নৌ ধর্মঘট প্রত্যাহার


অতিরিক্ত মূল্যে আলু বিক্রির দায়ে বরিশালে চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা

অতিরিক্ত মূল্যে আলু বিক্রির দায়ে বরিশালে চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা


করোনায় প্রাণ গেল আরও ২১ জনের

করোনায় প্রাণ গেল আরও ২১ জনের


শিশু ধর্ষণের মামলায় দ্রুততম রায়ে আসামির যাবজ্জীবন

শিশু ধর্ষণের মামলায় দ্রুততম রায়ে আসামির যাবজ্জীবন


মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে নির্দেশ মন্ত্রিসভার

মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে নির্দেশ মন্ত্রিসভার


ভোট সুষ্ঠু হয়েছে; দাবি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের

ভোট সুষ্ঠু হয়েছে; দাবি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের


বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার খসড়া তালিকায় গ্লোব বায়োটেকের ভ্যাকসিন

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার খসড়া তালিকায় গ্লোব বায়োটেকের ভ্যাকসিন


আপাতত বন্ধ হচ্ছে না ইন্টারনেট-ক্যাবল টিভি

আপাতত বন্ধ হচ্ছে না ইন্টারনেট-ক্যাবল টিভি