Monday, July 4th, 2022
মেট্রোরেল: তার সরাতেই ভোগান্তি
November 11th, 2016 at 12:31 pm
মেট্রোরেল: তার সরাতেই ভোগান্তি

ঢাকা: মেট্রোরেলের মূল কাজ শুরুর আগে বৈদ্যুতিক তার সরাতে রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি হচ্ছে। ছোট হয়ে আসা রাস্তায় দুর্বিসহ হয়ে উঠছে প্রতিদিনের যাতায়াত। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছে মিরপুরবাসী।

জনদুর্ভোগ কমাতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ রাতে কাজ করার কথা জানালেও দুর্ভোগ না কমায় এলাকা ছাড়ার কথা ভাবছে কেউ কেউ। সূচি অনুযায়ী আগামী বছরের জুন থেকে ঢাকা মেট্রো রেল প্রকল্পের মূলকাজ শুরুর কথা রয়েছে। এর আগে এ বছরের নভেম্বর থেকে শুরু হয় প্রকল্প এলাকার বিভিন্ন সেবাসংস্থার অবকাঠামো সরানোর কাজ।

ভূগর্ভস্থ বৈদ্যুতিক সঞ্চালন তার প্রতিস্থাপনের জন্য এরই মধ্যে বেগম রোকেয়া সরণীর তালতলা থেকে মিরপুর ১০ নম্বর পর্যন্ত সড়কের একপাশ খুঁড়ে ফেলা হয়েছে। তিন লেনের মাঝের একটি লেন বন্ধ করে দেয়া হয় ব্যারিকেড দিয়ে। দুপাশের লেন দিয়ে বিপুল সংখ্যক গাড়িকে ধীরে ধীরে চলতে হয়। ফলে প্রতিদিন সকাল-বিকাল তৈরি হচ্ছে যানজট। ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে অফিসগামী যাত্রীদের।

এদিকে এলাকাবাসী আশংকা করছে, মেট্রোরেলের কাজ পুরোদমে শুরু হলে এ পথের ভোগান্তি আরো বেড়ে যাবে। তারা জানায়, বিদ্যুতের লাইন সরানোর জন্য খোঁড়াখুঁড়িতে যদি এ অবস্থা হয়, তাহলে মেট্রোরেলের কাজ ধরলে এ রাস্তাও মগবাজার-মালিবাগের মতো হয়ে যাবে। রাস্তায় চলা যাবে না। দীর্ঘমেয়াদী যানজটের কথা ভেবে মিরপুর এলাকা থেকে বাসা বদলে ফেলার কথা ভাবছেন কেউ কেউ।

ঢাকা মেট্রোরেল প্রকল্পের পরিচালক মো. মোফাজ্জেল হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, “জনগণের ভোগান্তির কথা বিবেচনা করে রাস্তার নিচের তার সরানোর কাজ আমরা রাতে করছি। আগারগাঁও থেকে মিরপুর ১০ নম্বর পর্যন্ত এমআরটির লাইন-৬ এর অ্যালাইনমেন্ট বরাবর থাকা ১৩২ কেভি ভূগর্ভস্থ তার সরানোর কাজ এখন চলছে।  পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ এ কাজটি করছে। বিদ‌্যুতের তার সরিয়ে রাস্তার এক পাশে না নিয়ে গেলে মেট্রোরেলের পাইলিং করা যাবে না।”

ভূগর্ভস্থ তার স্থানান্তর প্রকল্পের পরিচালক মো. শফিকুর রহমান বলেন, “বিদ্যুতের তার সরানোর জন্যই রাস্তা খুঁড়তে হচ্ছে। ১ নভেম্বর উদ্বোধনের পর ৫ তারিখ খনন শুরু হয়। সঞ্চালন লাইন সড়কের মাঝখান থেকে সড়কের বাঁপাশে নিয়ে আসা হবে। এখন নতুন সড়ক খুঁড়ে নতুন লাইন বসিয়ে পরে পুরোনো লাইন তুলে ফেলা হবে। আমরা রাতে কাজ করছি। রাত সাড়ে ১০টার দিকে কাজ শুরু হয়ে সকাল ৭টা পর্যন্ত চলে। যানবাহন আর লোকজন রাস্তায় বের হওয়ার আগেই দিনের কাজ শেষ করা হয়।”

গ্রন্থনা ও সম্পাদনা: আবু তাহের


সর্বশেষ

আরও খবর

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব


আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন

আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন


চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ

চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ


ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার

ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার


তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন

তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন


অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?

অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?


যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার

যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার


আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০

আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০


সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি

সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি


চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার

চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার