Tuesday, March 30th, 2021
ছয় দিনে নির্যাতিত অর্ধশত সাংবাদিক: মামলা নেই, কাটেনি আতঙ্ক
March 30th, 2021 at 11:25 pm
“শুধু হেফাজত নয়, কোথাও আওয়ামী লীগ কোথাও বিএনপি, কোথাও জামায়াত, কোথাও প্রভাবশালী মহল, এমনকি পাতি নেতা বা ছিঁচকে প্রভাবশালীরাও যে যখন পারে আমাদের মারে। এ ব্যাপারে এখনই যদি ব্যবস্থা নেওয়া না হয় তবে এটা আরো বাড়তেই থাকবে।”
ছয় দিনে নির্যাতিত অর্ধশত সাংবাদিক: মামলা নেই, কাটেনি আতঙ্ক

বিশেষ প্রতিনিধি, ঢাকা:

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বিরোধী ইসলাম ও বামপন্থীদের বিক্ষোভের শেষ ছয়দিনে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় অর্ধশত সাংবাদিক আক্রান্ত হলেও কোনো মামলা হয়নি। এর মধ্যে শুধু ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাংবাদিকরা প্রেসক্লাবে হামলা ও নির্যাতনের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাবেদ রহিম বিজন মঙ্গলবার বিকেলে নিউজনেক্সটবিডিকে বলেন, “মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। আশা করছি, আগামীকালের মধ্যেই তা দায়ের করা হবে।” এই দিন সকালে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে হামলাকারী হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সংবাদ বয়কটের ঘোষণা দেওয়া কথাও জানান তিনি।

মোদি বিরোধী বিক্ষোভের সংবাদ ও চিত্র সংগ্রহকালে সারাদেশে প্রায় ৫০ জন সাংবাদিক আক্রান্ত হওয়ার কথা উল্লেখ করে পেশাদার সাংবাদিকদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমভিত্তিক গোষ্ঠী আমাদের গণমাধ্যম-আমাদের অধিকারের প্রধান সমন্বয়ক আহম্মদ ফয়েজ সোমবার নিউজনেক্সটবিডিকে বলেন, “এর মধ্যে সবাই যে আহত হয়েছেন, এমন নয়।”

“কাউকে ছবি তুলতে বাঁধা দেওয়া হয়েছে। আবার কারো ক্যামেরা কেড়ে নেওয়া হয়েছে,” যোগ করেন ইংরেজী দৈনিক নিউ এইজের এই সাংবাদিক।

তবে টেলিভিশনের সাংবাদিকদের সংগঠন সংগঠন ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টারের (বিজেসি) চেয়ারম্যান রেজোয়ানুল হক ও সদস্য সচিব শাকিল আহমেদ রবিবার এক বিবৃতিতে জানান, গত তিন দিনেই দেশের বিভিন্ন জায়গায় কমপক্ষে ৫০ সাংবাদিক গুরুতর জখম হয়েছেন।

“বিজেসি অত্যন্ত উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভকারীরা গণমাধ্যমকর্মীদের ‘টার্গেট’ (লক্ষ্য) করে হামলা করেছে,” বলেন তারা।

এসব ঘটনায় মামলা না হওয়ার কারণ প্রসঙ্গে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন মসিউর রহমান খান মঙ্গলবার নিউজনেক্সটবিডিকে বলেন, “আমাদের বিচার ব্যবস্থা এবং আইনের শাসনের প্রক্রিয়া খুবই বিলম্বিত ও জটিল। মূলত এ কারণেই আহত সাংবাদিক বা তাঁর পরিবার ও প্রতিষ্ঠান তাৎক্ষণিকভাবে মামলা করতে উৎসাহী হয় না।”

নয় বছরেও সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনি হত্যাকাণ্ডের বিচার না হওয়ার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, “সার্বিকভাবে দেশে যে বিচারহীনতার সংস্কৃতি গড়ে উঠেছে, তাতে সাংবাদিকরা জানে এখানে মামলা করলে কিছুই হবে না। উল্টো আক্রান্ত ব্যক্তিকেই অসুস্থ শরীর নিয়ে দৌড়াদৌড়ি করতে হবে।”

এর আগে সোমবার সচিবালয়ে  ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) একাংশের নেতাদের সঙ্গে  বৈঠকে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বলেন, “পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় সাংবাদিকদের ওপর হামলা অত্যন্ত দুঃখজনক ও অপ্রত্যাশিত।”

ডিইউজের সরকারপন্থী এই অংশের সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ নিউজনেক্সটবিডিকে জানান, বৈঠকে তাদের পক্ষ থেকেই সাংবাদিক নির্যাতনের বিষয়টি উত্থাপন করা হয়েছিল।

“শুধু হেফাজত নয়, কোথাও আওয়ামী লীগ কোথাও বিএনপি, কোথাও জামায়াত, কোথাও প্রভাবশালী মহল, এমনকি পাতি নেতা বা ছিঁচকে প্রভাবশালীরাও যে যখন পারে আমাদের মারে। এ ব্যাপারে এখনই যদি ব্যবস্থা নেওয়া না হয় তবে এটা আরো বাড়তেই থাকবে,” মন্ত্রীকে এমনটাই বলার কথা জানিয়েছেন ডিইউজে সভাপতি।

এরই প্রেক্ষিতে তথ্যমন্ত্রী স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাথে আলাপ করে সাংবাদিকদের নিরাপত্তা বাড়াতে প্রয়োজনীয় আশ্বাস দিয়েছেন। একইসঙ্গে সাম্প্রতিক সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনাগুলো খতিয়ে দেখে দোষীদের আইনের আওতায় আনার কথা জানান।

ডিইউজে মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে “স্বাধীন সংবাদ প্রবাহে মনস্তাত্ত্বিকভাবে ভীতি ও চাপ সৃষ্টির অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে” জানিয়ে সাংবাদিক নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে পহেলা এপ্রিল বিক্ষোভ সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে।

সব পক্ষই মেরেছে সাংবাদিকদের

আক্রান্ত সাংবাদিকদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, তাদের অনেকে মোদি বিরোধী হেফাজতের অনুসারীদের হামলার শিকার হয়েছেন। আবার অনেককে হেফাজত ও বাম সংগঠনগুলোকে প্রতিহতকারী ক্ষমতাসীন দলের সমর্থকরাও পিটিয়েছে।

এমন একাধিক ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও আক্রান্ত সাংবাদিক জীবন আহমেদ নিউজনেক্সটবিডিকে জানান, হেফাজত আর ক্ষমতাসীন দলের অনুসারী মারধরের পাশাপাশি অনেক সাংবাদিকের ক্যামেরা, মোবাইল, এমনকী মানিব্যাগও নিয়ে গেছে।

“দুই পক্ষের ইট-পাটকেল আর তাদের সংঘর্ষ থামাতে পুলিশের ছোঁড়া রাবার বুলেটেও অনেক সংবাদকর্মী আহত হয়েছেন,” বলেন ঢাকার ট্যাবলযেড দৈনিক মানবজমিনের এই ফটোসাংবাদিক।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় গত মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) ছাত্রলীগের হাতে মারধরের শিকার হওয়ার পাশাপাশি গত কয়েকদিনে একাধিবার ছবি তুলতে বাঁধা পাওয়া ও হেফাজতের ধাওয়ার মুখে পড়ার কথা জানান তিনি।

গত শুক্রবার রাজধানীর বায়তুল মোকাররমে হেফাজতের হামলার শিকার হওয়া একাত্তর টিভির প্রতিবেদক ইশতিয়াক ইমন নিউজনেক্সটবিডিকে বলেন, “কিছু বোঝার আগেই তারা আমাদের লক্ষ্য করে হামলা করে। আচরণে স্পষ্ট বোঝা গেছে, সাংবাদিকদের ওপর তাদের ক্ষোভ ছিল।”

সর্বশেষ রবিবার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড ও সানারপাড় এলাকায় হরতালের সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে হামলার শিকার হওয়া ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির প্রতিবেদক খালেদ রায়হান নিউজনেক্সটবিডিকে বলেন, “মারধরের এক পর্যায়ে তারা বারবার বলছিল, মেরে ফেল। তখন দৌড়ে পালাতে না পারলে আর বাঁচতে পারতাম না।”

ঢাকার দৃক পিকচার লাইব্রেরি কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের বরাত দিয়ে নিপীড়িত সাংবাদিকদের তথ্য সংগ্রহকারী আন্তর্জাতিক সংস্থা কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টস(সিপিজে) সোমবার বলেছে, বিক্ষোভকারী এবং পুলিশ কর্মকর্তাদের দ্বারা সাংবাদিকদের আক্রান্ত হওয়ার ঘটনাগুলোর তদন্ত হওয়া উচিত।

কেন আক্রান্ত হচ্ছেন সাংবাদিকরা?

ডিআরইউ নেতা মশিউর বলেন, “বাংলাদেশে মাঠ সাংবাদিকতা যে ক্রমেই কঠিন হয়ে যাচ্ছে, এ জাতীয় হামলা সে পরিস্থিতিরই একটা বহিঃপ্রকাশ।”

“তবে এটা হঠাৎ করে হয়নি। দীর্ঘদিন ধরেই রাষ্ট্রযন্ত্র ও সামাজিক-রাজনৈতিক শক্তি সাংবাদিকতাকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ বা পেশাগত মর্যাদা না দিয়ে শুধু নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করেছেন। তারই ধারাবাহিতায় এভাবে হামলার হচ্ছি আমরা,” যোগ করেন তিনি।  

ডেইউজে নেতা কুদ্দুস বলেন, “সাংবাদিক পিটালে বা সাংবাদিকের ক্যামেরা ভাংচুর করলে কিছুই হবে না, দেশে এখন এমন একটি সংস্কৃতি তৈরী হয়েছে। এক্ষেত্রে মামলা করেও কোনো প্রতিকার পাওয়া যায় না। যে কারণে সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনার ব্যাপকত্ব বেপরোয়াভাবে বেড়ে গেছে।”

“এ দেশে প্রতিষ্ঠান হিসেবে সাংবাদিকতা, আস্থা ও মর্যাদার স্থানটি সমাজে হারিয়ে ফেলেছে,” বলে জানিয়েছেন গণমাধ্যম বিশ্লেষক ও লেখক খন্দকার আলী আর রাজি।

নিউজনেক্সটবিডিকে তিনি বলেন, “অপরাধ-অপকর্ম যারা করে, তারা সহজাত প্রবণতাতেই সাংবাদিকতা চাইবে না- এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু যারা অপরাধ-অপকর্মের শিকার, তারাও সাংবাদিকতা চাইছে না। কারণ সাংবাদিকতার ব্যাপারে তাদের অভিজ্ঞতা ভাল না। তারা দেখেছে, বিপুল সংখ্যক সাংবাদিকই পক্ষপাতদুষ্ট, বিশেষ করে সরকারের সমর্থনে যায়- এমন সাংবাদিকতাই তারা করেন।”

“একটা গণতান্ত্রিক সমাজে সাংবাদিকতার যে মূল কাজ, ক্ষমতাকে সর্বক্ষণ জবাবদিহিতায় রাখা- সে কাজ এ দেশের সাংবাদিকতা করতে ব্যর্থ হওয়াতেই এই অবস্থা তৈরি হয়েছে,” যোগ করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এই সহকারী অধ্যাপক।

আতঙ্কই কাটছে না আক্রান্তদের

ঢাকার দৈনিক সংবাদের নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি ও স্থানীয় গণমাধ্যম প্রেস নারায়ণগঞ্জের প্রধান প্রতিবেদক সৌরভ হোসেন সিয়ামকে হেফাজত অনুসারীরা মারধরের পর প্রায় আধঘন্টা স্থানীয় একটি করাত কলে আটকে রেখেছিল।

পরে সিয়াম ফেসবুকে লিখেছিলেন, “তাদের কাছে আমার (ধর্মীয়) পরিচয় নিশ্চিত করতে হয়েছে। চার কালেমার দুই কালেমা মুখস্থ বলতে হয়েছে।”

“রাতের বেলা ঘুমাতে গেলে চোখে ভাসে তাদের জেরা, করাত কলের ভেতরের তাদের হুঙ্কার৷ তাদের কাছ থেকে বেঁচে ফিরতো পারবো কিনা সেই শঙ্কার কথা মনে উঠলেই..” এটুকু বলেই থেমে যান তিনি। নিউজনেক্সটবিডিকে জানান, শরীরের ব্যাথায় ওই ঘটনার মানুসিক আঘাতও কাটিয়ে উঠতে পারেননি তিনি।

শরীরের ব্যাথা আর আতঙ্কে গত দুই রাত ধরে ঘুমাতে না পারার কথা জানিয়েছেন ইন্ডিপেন্ডেট টিভির খালেদও। এছাড়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাংবাদিকরা কখনো এত নগ্ন হামলার শিকার হয়নি উল্লেখ করে বিজন বলেন, “এখানকার সংবাদকর্মীদের মধ্যে দীর্ঘদিন এই ঘটনার আতঙ্ক থেকে যাবে।”

সারাদেশে আক্রান্ত হয়েছেন যারা

হেফাজতের হরতাল চলাকালে রবিবার একদিনেই কমপক্ষে ২০ সাংবাদিক আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির খালেদ এবং দৈনিক সংবাদ ও প্রেস নারায়ণগঞ্জের সৌরভ ছাড়াও বৈশাখী টিভির আশিক মাহমুদ,  গাজী টিভির রুবিনা ইয়াসমিন ও মাহমুদুর রহমান, নিউজ টোয়েন্টিফোরের মৌ খন্দকার, নিউ এইজ পত্রিকার মোক্তাদির রশিদ রোমিওসহ কমপক্ষে ১৩ জন সংবাদকর্মী হামলার শিকার হন। 

নোয়াখালীতে হেফাজত সমর্থকরা স্থানীয় টিভি সাংবাদিক ফোরামের কার্যালয়ে হামলা করলে একাত্তর টিভি ও জাগো নিউজের মিজানুর রহমান, বাংলা টিভির ইয়াকুব নবী ইমন ও  মনির হোসেন এবং এশিয়ান টিভি ও আলোকিত বাংলাদেশের মানিক ভূঁইয়া আহত হন।

একই দিন ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব ভবনেও হামলা চালায় হেফাজতকর্মীরা। তাদের হামলায় প্রেসক্লাব সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামি ও আমাদের নতুন সময় পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি আবুল হাসনাত রাফি আহত হন।

এছাড়া এইদিন ঢাকায় বিভিন্ন গণমাধ্যমের গাড়ি ভাংচুরের শিকার হয়েছে। সিলেটের  মেজরটিলা বাজার এলাকার দৈনিক আমাদের অর্থনীতি পত্রিকার সিলেট প্রতিনিধি ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল সিলেটভয়েসের জেষ্ঠ্য আব্দুল আহাদের ব্যক্তিগত মোটরসাইকেল ভাংচুর করেছে হরতাল সমর্থকরা।

গত শুক্রবার বায়তুল মোকাররম এলাকায় সংঘর্ষ চলাকালে একাত্তরের ইমন ছাড়াও ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টারের প্রবীর দাস ও এমরান হোসেন, প্রথম আলোর হাসান রাজা, বাংলাদেশ প্রতিদিনের জয়িতা রায়, বিডিনিউজের মাহমুদ জামান অভি, সারাবাংলার হাবিবুর রহমান, বাংলাভিশনের দীপন দেওয়ান, বাংলানিউজের শেখ জাহাঙ্গীর আলম, দেশ রূপান্তরের রুবেল রশীদসহ কমপক্ষে ১৩ জন সাংবাদিক আহত হন।

একইদিন শুক্রবার চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে হেফাজতের সাথে পুলিশের সংঘর্ষের সময় আহত হন দৈনিক পূর্বকোণ পত্রিকার হাটহাজারী থানা প্রতিনিধি খোরশেদ আলম।  

এর আগে বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বাম ছাত্রসংগঠনগুলোর বিক্ষোভে  হামলার পর সংঘাতের খবর সংগ্রহে গিয়ে ছাত্রলীগের হামলার শিকার হন প্রথম আলোর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি আসিফ হিমাদ্রী, অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলা ট্রিবিউনের প্রতিনিধি আবিদ হাসান রাসেল ও ইত্তেফাক অনলাইনের সহ সম্পাদক সাকিব আব্দুল্লাহ।

ওই দিন নাজিফা নাওমীক নামের এক ফ্রিল্যান্স নারী ফটোসাংবাদিকে রড দিয়ে পিটিয়ে তাঁর ক্যামেরা ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ পাওয়া যায়।

গত মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রগতিশীল ছাত্রজোট আয়োজিত কর্মসূচিতে ছাত্রলীগের হামলা চলাকালে মানবজমিনের জীবন, জুমা প্রেসের কাজী সালাহউদ্দিন, ইউএনবির জাবেদ হাসান চৌধুরীসহ কমপক্ষে ছয়জন সংবাদকর্মী আহত হন।

এছাড়া বৃহস্পতিবার থেকে রবিবারের মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দায়িত্ব পালনকালে ডেইলি স্টারের মাসুক হৃদয়, একুশে টিভির মীর মোহাম্মদ শাহীন, এটিএন নিউজের সুমন রায়, লাখোকণ্ঠের বাহাদুর আলম, ডেইলি ট্রাইব্যুনালের প্রইফতেহার রিফাত ও এনটিভির সাইফুল ইসলাম হামলায় আহত হন বলে সেখানকার প্রেসক্লাব জানিয়েছে।


সর্বশেষ

আরও খবর

কুমিল্লার মূল অভিযুক্ত পালিয়ে বেড়াচ্ছে, দ্রুতই গ্রেপ্তার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার মূল অভিযুক্ত পালিয়ে বেড়াচ্ছে, দ্রুতই গ্রেপ্তার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ


দেবীগঞ্জের অগ্নিকাণ্ড নিছক দূর্ঘটনা: ইউএনও

দেবীগঞ্জের অগ্নিকাণ্ড নিছক দূর্ঘটনা: ইউএনও


সাম্প্রদায়িক নৈরাজ্যে আক্রান্ত ২৩ জেলা

সাম্প্রদায়িক নৈরাজ্যে আক্রান্ত ২৩ জেলা


ওয়েবসাইট বন্ধ করে দিয়েছে ইভ্যালি কর্তৃপক্ষ

ওয়েবসাইট বন্ধ করে দিয়েছে ইভ্যালি কর্তৃপক্ষ


ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জনের মৃত্যু


পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার করলো জাতীয় রাজস্ব বোর্ড

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার করলো জাতীয় রাজস্ব বোর্ড


মিরপুরে খালে পড়ে নিখোঁজ ব্যক্তিকে ৬ ঘণ্টা পর জীবিত উদ্ধার

মিরপুরে খালে পড়ে নিখোঁজ ব্যক্তিকে ৬ ঘণ্টা পর জীবিত উদ্ধার


কুমিল্লার ঘটনায় কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না: প্রধানমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না: প্রধানমন্ত্রী


ফেসবুকে কিডনি বেচাকেনা, চক্রের ৫ সদস্য গ্রেপ্তার

ফেসবুকে কিডনি বেচাকেনা, চক্রের ৫ সদস্য গ্রেপ্তার