Sunday, January 5th, 2020
রাজনৈতিক বিতর্কের ঘেরাটোপে নির্বাচন, উপেক্ষিত ঢাকাবাসীর দূর্দশা
January 5th, 2020 at 9:12 pm
ঢাকাবাসীর অগণিত সমস্যার কথা ভুলে গিয়ে, দুই সিটির নির্বাচনের আগে বিভিন্ন ধরনের রাজনৈতিক ইস্যুতে তর্কে জড়িয়ে পড়েছে প্রধান দুই রাজনৈতিক দল।
রাজনৈতিক বিতর্কের ঘেরাটোপে নির্বাচন, উপেক্ষিত ঢাকাবাসীর দূর্দশা

বিশেষ প্রতিনিধি,

ঢাকাঃ ঢাকাবাসীর অগণিত সমস্যার কথা ভুলে গিয়ে, দুই সিটির নির্বাচনের আগে বিভিন্ন ধরনের রাজনৈতিক ইস্যুতে তর্কে জড়িয়ে পড়েছে প্রধান দুই রাজনৈতিক দল। প্রার্থী চূড়ান্ত হবার পর থেকেই প্রার্থীদের পারিবারিক পরিচয়, নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার, নির্বাচনী প্রচারে প্রার্থীদের বাধা দেয়া ‍ও পুলিশী হয়রানিসহ বিভিন্ন ইস্যুতে পরস্পরবিরোধী বক্তব্য দিচ্ছেন দুই দলের শীর্ষস্থানীয় নেতারা। পাশাপাশি কাউন্সিলর পদে উভয় দলের প্রচুর বিদ্রোহী প্রার্থী থাকার বিষয়টিও চিন্তিত হয়ে পড়েছেন দলগুলোর নীতিনির্ধারকেরা। আর এসবের প্রভাবে যাদের উদ্দেশ্য করে নির্বাচন, সেই ঢাকাবাসী ভোটারদের সমস্যা ও দুঃখদুর্দশাগুলো রয়ে যাচ্ছে আলোচনার বাইরে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে মেয়র পদে বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্য শেখ ফজলে নূর তাপসকে মনোনয়ন দেয়া প্রসঙ্গে “আওয়ামী লীগ পরিবারতন্ত্রের রাজনীতি শুরু করেছে” বলে গত শনিবার (৪ জানুয়ারি ২০২০) এক অনুষ্ঠানে মন্তব্য করেছিলেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এর রেশ ধরে পাল্টা জবাব দেয়া শুরু করেন আওয়ামী লীগ নেতারা। রোববার ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, “বেগম খালেদা জিয়া, তারেক জিয়া এরা কোন পরিবারের নেতা আমরা জানতে চাই। বিএনপির মূল নেতৃত্বই তো একটি পরিবার থেকে এসেছে। এটা বেগম জিয়া ও তার সন্তান তারাই তো হর্তা কর্তা বিধাতা। এখানে মির্জা ফখরুল ইসলাম তো তাদেরই ইয়েস ম্যান হিসেবে কাজ করেন।” রাজনৈতিক দল হিসাবে বিএনপিতে গণতন্ত্র নেই বলেই তারা যথা সময়ে দলের সম্মেলন করতে পারে না বলেও মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের। অন্যদিকে, আসন্ন ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির দুইজন প্রার্থীই পরিবারতন্ত্রের ফসল বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। রোববার ঢাকায় একটি অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, “বিএনপি পরিবারতন্ত্রের প্রধান পৃষ্ঠপোষক এবং তারা পরিবারতন্ত্র লালন করে। সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইশরাক হোসেনকে কোন যোগ্যতায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে মেয়র পদে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে? তিনি কি আগে কখনো রাজনীতি করেছেন? নাকি সাদেক হোসেন খোকার ছেলে বলেই তাকে এ পদে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। তাবিথ আউয়ালের বাবা বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান। প্রথমবার যখন মনোনয়ন দেয়া হয়, তখন তিনি কোন যোগ্যতায় পেয়েছিলেন? ভাইস চেয়ারম্যানের ছেলে যোগ্যতায়। …বেগম খালেদা জিয়া তো তার দলের মধ্যে পুরোপুরি পরিবারতন্ত্র চালু করেছেন। তার বোন খুরশিদ জাহান হককে তিনি প্রথমে মহিলা দলের নেতৃত্ব দেন, দলের ভাইস চেয়ারম্যান বানান এরপর তাকে তিনি মহিলা ও শিশু বিষয় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বানান। তার ভাই সাঈদ ইস্কান্দরকে তিনি এমপি বানান এবং দলে তার জন্য বিশেষ সম্পাদকের পদ তৈরি করা হয়েছিল। তার আরেক ভাই শামীম ইস্কান্দর কোনো গুরুত্বপূর্ণ পদে না থাকলেও বিমানের ব্যবসা বাণিজ্য থেকে শুরু করে সবকিছু তিনিই নিয়ন্ত্রণ করতেন।”

এদিকে আগেরদিন পরিবারতন্ত্র নিয়ে বিতর্কের সূত্রপাত করলেও, রোববার বিএনপি মহাসিচব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দুই সিটি নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারে নিয়ে দলটির আপত্তির কথা জানান। এদিন বিকেলে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ইভিএমে ভোট গ্রহণের সমালোচনা করে বিএনপি বলছে, নির্বাচন কমিশন ইভিএমের মাধ্যমে ডিজিটাল পদ্ধতিতে নিঃশব্দ ভোট কারচুপির ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে। এটাকে তাদের ‘ভোটধিকার হত্যার নিঃশব্দ প্রকল্প’ বলেও উল্লেখ করেন তিনি। তিনি আরও বলেন, “এবার কমিশন ইভিএমের মাধ্যমে ডিজিটাল পদ্ধতিতে নিঃশব্দ ভোট কারচুপির ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে। যাতে রাতে বা দিবালোকে ভোট ডাকাতির মতো কোন হইচই থাকবে না। সবাই দেখবে সব ঠিকঠাক মতো চলছে; কিন্তু ডিজিটাল কারচুপির মাধ্যমে অতি সহজভাবে ভোট ডাকাতি সুচারুরূপে সম্পন্ন করা সম্ভব হবে।”

এসবের বাইরে বিএনপির অনেক কাউন্সিলর প্রার্থীর বিরুদ্ধে অতীতের বিভিন্ন মামলা, একজন কাউন্সিলর প্রার্থীকে গ্রেফতার করা এবং বিভিন্ন স্থানে বিএনপি প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচারে বাধা দেয়াসহ নানাবিধ অভিযোগ নিয়েই আলোচনায় ব্যাস্ত আছেন দলটির শীর্ষ নেতারা। ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রচারের উদ্দেশ্যে দুটো পরিচালনা কমিটি গঠন করলেও, অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বের কারণে এসব কমিটির সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠে নামতেও গড়িমসি করছেন বলে দলটির বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গেছে।

অন্যদিকে আওয়ামী লীগ তাদের প্রার্থীদের প্রচারের ক্ষেত্রে ঢাকাবাসীর বিভিন্ন সমস্যা, বিশেষ করে ডেঙ্গু, যানজন, জলাবদ্ধতা, পানি ও পয়ঃনিষ্কাষনসহ বিভিন্ন নাগরিক সুবিধা নিয়ে কথা না বলে বিএনপি বিরোধী প্রচারেই বেশী মনোযোগ দিচ্ছে। দলের দুই মেয়র প্রার্থীকেও তাদের প্রচারনায় নগরবাসীর সমস্যার চেয়ে বিএনপির প্রতি বিদ্বেষ প্রকাশ করতে দেখা গেছে।

অসংখ্য সমস্যায় জর্জরিত ঢাকাবাসী গত কয়েক বছরে ডেঙ্গুরোগে অগণিত মৃত্যু, অপরিসীম যানজন, বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতা, ওয়াসার দুর্গন্ধযুক্ত পানি, যত্রতত্র রাস্তা খোঁড়াখুড়িসহ বিভিন্ন বিষয়ে মেয়র প্রার্থীদের সুনির্দিষ্ট বক্তব্য আশা করলেও, এখন পর্যন্ত কোনো প্রার্থীকেই এসব নিয়ে তেমন কোনো সুনির্দিষ্ট বক্তব্য কিংবা ওয়াদা করতে দেখা যায়নি। বিষয়টি নিয়ে রাজধানীবাসীর মধ্যে ক্ষোভ ও উষ্মা লক্ষ্য করা গেছে। অনেকেই এই নির্বাচনকে রাজনৈতিক দলগুলোর জন্য গুরুত্বপূর্ণ হলেও ঢাকাবাসীর জন্য ‘যেই লাউ সেই কদু’ হিসেবেই্ দেখছেন।

ঢাকা দক্ষিণ সিটির একজন নাগরিক কৃষিবিদ ও পরিবেশকর্মী ড. কাশফিয়া আহমেদ বিষয়টিকে ‘জনগণের প্রতি রাজনীতিবিদদের উদাসীনতা’ বলে চিহ্নিত করে বলেন, “নির্বাচন আসে, নির্বাচন যায়, কিন্তু ভোটারদের চাওয়া-পাওয়ার সমন্ময় বলতে কিছুই হতে দেখি না। এদেশে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব নতুন কিছু নয়, এটা যে কোনো সময় ভয়াবহ আকার নিতেই পারে। কিন্তু এটা নিয়ে ঢাকার সিটি কর্পোরেশনগুলো কোনো ধরনের পূর্বপরিকল্পনা বা প্রস্তুতি কখনোই থাকে না, যার খেসারত দিতে হলো এবার শুধু ঢাকাতেই আড়াইশো মানুষের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে”।

নির্বাচনের আগে ভোটারদের সমস্যার দিকে আলোকপাত না করে শুধুই রাজনৈতিক বিষয়ে পরস্পরবিরোধী তর্কে জড়িয়ে পড়ার বিষয়টিকে বিশ্লেষকরা রাজনীতিবিদদের জনগণের প্রতি কমিটমেন্টের অভার হিসেবে চিহ্নিত করছেন। বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে সুশাসনের জন্য নাগরিক, সুজন-এর সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার নিউজনেক্সটবিডি ডটকমকে বলেন, “পূর্বের অভিজ্ঞতা থেকেই আসন্ন ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে আশাবাদী হবার কিছু নেই। রাজনৈতিক দলগুলো এই নির্বাচনকে অন্যান্য সব নির্বাচনের মতোই এলাকা দখলের খেলা হিসেবে দেখেন। ভোটার কিংবা জনগণের জন্য নানাবিধ প্রতিশ্রুতি তাদের বক্তব্যে স্থান পেলেও, তাদের মাথায় থাকে কেবল নির্বাচনী বৈতরনী পার হয়ে হারজিতের প্রসঙ্গটি। এবার সেটিই বেশি সামনে চলে এসেছে, ফলে ঢাকাবাসীর দুর্দশাগুলো নিয়ে সুনির্দিষ্ট আলোচনা সামনেই আসছে না।” মেয়র বা কাউন্সিলর পদে নতুন মুখ দেখা গেলেও, গত কয়েক বছর ধরে ডেঙ্গু, জলাবদ্ধতা, ওয়াসার পানি, যানজটসহ ঢাকাবাসীর সমস্যাগুলো সামনের দিনে একই রূপে বিদ্যমান থাকবে বলেও শঙ্কা প্রকাশ করেন বদিউল আলম মজুমদার।

বিশেষ প্রতিবেদন/এফ.এ


সর্বশেষ

আরও খবর

রিজভী-দুলুর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

রিজভী-দুলুর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি


অপারেশনের পর সুস্থ আছেন খালেদা জিয়া: ফখরুল

অপারেশনের পর সুস্থ আছেন খালেদা জিয়া: ফখরুল


বঙ্গবন্ধু হত্যার নেপথ্যে জড়িতদের খোঁজার নির্দেশনা চেয়ে রিট

বঙ্গবন্ধু হত্যার নেপথ্যে জড়িতদের খোঁজার নির্দেশনা চেয়ে রিট


সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস: প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ, আশ্বাস আইনমন্ত্রীর

সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস: প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ, আশ্বাস আইনমন্ত্রীর


বিএফইউজের নতুন সভাপতি ফারুক, মহাসচিব দীপ

বিএফইউজের নতুন সভাপতি ফারুক, মহাসচিব দীপ


কালীপূজায় হবে না দীপাবলি!

কালীপূজায় হবে না দীপাবলি!


রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ঠেকাতেই মুহিবুল্লাহকে হত্যা: পুলিশ

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ঠেকাতেই মুহিবুল্লাহকে হত্যা: পুলিশ


সহিংসতায় নিহত ৬ রোহিঙ্গা, ইউএন বলছে ৭

সহিংসতায় নিহত ৬ রোহিঙ্গা, ইউএন বলছে ৭


ইকবালকে জেরা করছে পুলিশ, সারাদেশে গ্রেফতার ৫৮৪

ইকবালকে জেরা করছে পুলিশ, সারাদেশে গ্রেফতার ৫৮৪


সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস, সংবিধান এবং আশাজাগানিয়া মুরাদ হাসান

সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস, সংবিধান এবং আশাজাগানিয়া মুরাদ হাসান