Sunday, September 25th, 2022
রাশিয়ায় শপিং সেন্টারের আগুনে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৪
March 26th, 2018 at 12:25 pm
রাশিয়ায় শপিং সেন্টারের আগুনে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রাশিয়ার সাইবেরীয় শহর কেমেরোভোয় একটি বিপণি বিতানে বড় ধরনের অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ৬৪ জনের মৃত্যুর খবর দিয়েছে রয়টার্স। রুশ কর্মকর্তাদের বরাত দিযে বিবিসি জানিয়েছে, রোববার ছুটির দিনের বিকালে এ ঘটনায় নিহতদের অধিকাংশই অপ্রাপ্তবয়স্ক। আরও অন্তত ১০ জন নিখোঁজ রয়েছে।

‘উইন্টার চেরি কমপ্লেক্স’ নামের শপিং সেন্টারটির ওপরের একটি ফ্লোরে আগুনের সূত্রপাত হয়, যে ভবনে একটি মাল্টিপ্লেক্স সিনেমা হলও ছিল। সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়ায় রোববার বিকেলে ওই মার্কেটে বেশ ভিড় ছিল, বিশেষ করে সিনেমা হলটিতে। আর নিহতদের বেশিরভাগ ওই সিনেমা হলেই ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, জনপ্রিয় ওই শপিং সেন্টারের মধ্যে একটি চিড়িয়াখানাও রয়েছে। যেখানে গিনিপিগ, ছাগল, বিড়ালসহ নানা পশু রয়েছে।

আগুন লাগার পর শপিং সেন্টারটি ঘিরে ঘন ধোয়ার কুণ্ডলী দেখা যায়। সামাজিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যায়, বাঁচার জন্য লোকজন জানালা দিয়ে লাফিয়ে পড়ছে।

জানা গেছে ফায়ার সার্ভিসের প্রায় ৬৬০ জন কর্মী এ কাজে নিয়োজিত হন। এখন পর্যন্ত অগ্নিকাণ্ডের কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। তবে এ ঘটনায় তারা একটি তদন্ত শুরু করেছে।

গ্রন্থনা ও সম্পাদনা: এম কে রায়হান


সর্বশেষ

আরও খবর

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব


আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন

আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন


চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ

চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ


ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার

ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার


তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন

তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন


অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?

অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?


যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার

যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার


আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০

আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০


সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি

সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি


চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার

চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার