Tuesday, February 11th, 2020
শরিয়ত বাউল গ্রেপ্তার হলে আজহারী কেন নয়? –সংসদে মেনন
February 11th, 2020 at 12:58 am
অন্যদিকে, ওয়াজের নামে ‘ইসলামবিরোধী’ প্রচারে জড়িত ‘তথাকথিত আলেমদের’ তালিকা করার পরামর্শ দিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক
শরিয়ত বাউল গ্রেপ্তার হলে আজহারী কেন নয়? –সংসদে মেনন

বিশেষ প্রতিনিধি, ঢাকাঃ

একই ধরনের অপরাধে শরিয়ত বাউলকে আইসিটি আইনে গ্রেপ্তার ‍করে জেলে আটকে রাখা হলেও, বিতর্কিত ওয়াজকারী মিজানুর রহমান আজহারীর নির্বিঘ্নে বিদেশ চলে যাওয়া নিয়ে সংসদে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের জোট শরিক ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন।

সোমবার (১০ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের উপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় মেনন একথা বলেন।

শরিয়ত বাউলকে গ্রেপ্তারে ক্ষোভ জানিয়ে তিনি বলেন, “যুদ্ধাপরাধী সাঈদীর পক্ষে ওয়াজকারী  আজহারী সম্পর্কে ধর্মমন্ত্রী বলেছেন যে সে জামাতের পক্ষ হয়ে সে কাজ করেছে। আইসিটি আইনে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় নাই, বরং তাকে নির্বিঘ্নে মালয়েশিয়ায় চলে যেতে দেওয়া হয়েছে। আর শরিয়ত বাউলকে আইসিটি আইনে গ্রেপ্তার করে জেলখানায় রাখা হয়েছে। আমাদের দেশে শরিয়ত ও মারফতের দ্বন্দ্ব অনেক পুরাতন। এখন সৌদী-পাকিস্তানি ও জামাতিদের ওহাবিবাদের প্রাধান্য প্রতিষ্ঠিত করতে এ ধরনের দ্বন্দ্বের সম্পর্কে যখন রাষ্ট্রীয় আইন ব্যবহার করা হয়, তখন উদ্বেগের বিষয়।”

গণতন্ত্র ও অসাম্প্রদায়িক রাজনীতির বিরুদ্ধে ডানপন্থিদের পাশাপাশি ‘তথাকথিত বামপন্থিরা’ও ষড়যন্ত্র করছে বলেও সরকারকে সতর্ক করেন রাশেদ খান মেনন। তিনি বলেন, “ধর্মবাদী তো বটেই, ওই ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নে ডান ও তথাকথিত বামও এক হচ্ছে। তারা স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তির আগেই মরিয়া আক্রমণ করবে।”

সংসদে এই আলোচনায় সরকারের বিভিন্ন দিক নিয়েও সমালোচনাও করেন আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন বিগত সরকারের মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন, “এটা সত্য যে ঐ নির্বাচনে ভোটাররা ভোট দিতে খুব কম এসেছে। কিন্তু সেটা কেবল এ (বিএনপির) কারণেই নয়। আওয়ামী লীগ তথা চৌদ্দ দলের সমর্থকরাও ভোট দিতে আসে নাই। ভোট থেকে মানুষের এই দূরত্ব গণতন্ত্রের জন্য বিপদ ডেকে আনবে। নির্বাচন তো বটেই, রাজনৈতিক দলগুলোকেও অপ্রাসঙ্গিক করে তুলবে।”

রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র বাতিলের দাবি তুলে মেনন বলেন, “প্রধানমন্ত্রী ধরিত্রীকন্যা উপাধি পেয়েছেন, কিন্তু সুন্দরবনের পাশে রামপালে কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্র, এলপিজি কারখানাসহ বিপজ্জনক সব কারখানার যখন ভিড়, তখন সুন্দরবন থাকবে কি না তা নিয়ে উদ্বেগ হয়। কিছু মুনাফালোভীর দল পরিবেশ সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীর সব উদ্যোগকে ব্যর্থ করে দিচ্ছে। আমরা নেপাল ও ভুটানের সহযোগিতায় বিদ্যুৎ পাওয়ারপথ ছেড়ে কিছু ব্যক্তির মুনাফা লোভের কাছে আত্মসমর্পণ করছি।”

পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা এখনও তুলে না দেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে মেনন বলেন, “পিইসি নামক পাবলিক পরীক্ষার ভয় তাদের প্রথম থেকেই কোচিংনির্ভর করেছে। এটা ২০১০ সালের জাতীয় শিক্ষানীতিতে ছিল না। এটা তুলে দেওয়ার কথা উঠলেও, উঠছে না। পাঠ্য বইয়ে হিন্দু লেখকদের লেখা তুলে দেওয়া, গল্প-কথা-চিত্রে ধর্মভাবের প্রতিফলনের নতুন সব ব্যবস্থা আমাদের আতঙ্কিত করে। সেই ছোট বেলায় আমাদের মধ্যে পাকিস্তানি ভাব আনতে ‘সকালে উঠিয়া আমি মনে মনে বলি’ কে ‘সুবেহ সাদেকে উঠে দিলে দিলে বলি, হররোজ আমি যেন ভালো হয়ে চলি’ পড়ানো হত। সেই ভাবটাই নিয়ে আসা হচ্ছে পাঠ্যবইগুলোতে।”

উচ্চ শিক্ষার নামে বাণিজ্য, উপাচার্যদের দুর্নীতি, গবেষণায় দুর্নীতির চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, এসব বিষয়ে রাষ্ট্রপতির বক্তব্য উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্রে ভয়াবহ চিত্র তুলে ধরছে।

অর্থনীতির হাল নিয়ে এই বাম নেতা বলেন, “অর্থমন্ত্রী সংসদে অর্থনীতির ভালো অবস্থার কথা বললেও বাইরে স্বীকার করেছেন যে রপ্তানিসহ অর্থনীতির বিভিন্ন সূচক নেতিবাচক। আয় বৈষম্য এখন বিপজ্জনক পর্যায়ে পৌঁছেছে। ঋণ খেলাপি বাড়বে না বলে অর্থমন্ত্রী যে দাবি করেছিলেন, তা মিথ্য প্রমাণ করে গত এক বছরে ২২ হাজার কোটি টাকার উপর খেলাপি ঋণ বেড়েছে। বাংলাদেশ ঋণ খেলাপিতে দক্ষিণ এশিয়ার দেশসমূহের শীর্ষে ।”

এছাড়া, ঋণ খেলাপিদের মতো অর্থ পাচারকারীদের তালিকাও সংসদে প্রকাশের দাবি জানান মেনন।  পাশাপাশি, ‘ব্যাংক লুটেরাদের অর্থসম্পদ বাজেয়াপ্ত করার দাবিও জানান তিনি। আর তৈরি পোশাক শিল্পে শ্রমিক ছাঁটাইয়ের ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়ে  মেনন বলেন, এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে হবে। নারী শ্রমিকদের কাজের স্থানে নিরাপত্তা, ৬ মাসের মাতৃত্ব ছুটির ব্যবস্থা করতে হবে।

‘তথাকথিত আলেমদের’ তালিকা করার পরামর্শ মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রীর

এদিকে, ওয়াজের নামে ‘ইসলামবিরোধী’ প্রচারের বিষয়ে ধর্ম ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়ে ‘তথাকথিত আলেমদের’ তালিকা করার পরামর্শ দিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। সোমবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের উপর আলোচনায় সম্প্রতি কিছু ওয়াজ মাহফিলে বিতর্কিত বক্তব্য বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে তিনি েই পরামর্শ দেন।

মোজাম্মেল বলেন, “ধর্মীয় সভা হওয়া উচিত, কিন্তু ধর্মসভার নামে ইসলামবিরোধী যেসব অপপ্রচার হচ্ছে, সেদিকে ধর্ম  ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে সজাগ থাকতে হবে। তথাকথিত আলেমনামধারীদের তালিকা তৈরি করে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে হবে।”

বাংলাদেশে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে একমাত্র আওয়ামী লীগই ইসলামের পৃষ্ঠপোষকতা করে এসেছে দাবি করে তিনি বলেন, “আওয়ামী লীগ ইসলামবিরোধী- এই মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে সচেতন হওয়া উচিৎ।” একইসঙ্গে স্বাধীনতাবিরোধী ভূমিকার জন্য জামায়াতে ইসলামীকে নিষিদ্ধ করতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।


সর্বশেষ

আরও খবর

এবার করোনায় আক্রান্ত ইসরাইলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী, আইসোলেশনে প্রধানমন্ত্রী

এবার করোনায় আক্রান্ত ইসরাইলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী, আইসোলেশনে প্রধানমন্ত্রী


মক্কা-মদিনায় ২৪ ঘণ্টার কারফিউ জারি

মক্কা-মদিনায় ২৪ ঘণ্টার কারফিউ জারি


করোনা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার, গ্রেফতার ১

করোনা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার, গ্রেফতার ১


সাহায্য বিতরণের আগে জানাতে হবে পুলিশকে

সাহায্য বিতরণের আগে জানাতে হবে পুলিশকে


বাংলাদেশকে ৩ হাজার কোটি টাকা অনুদান দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক

বাংলাদেশকে ৩ হাজার কোটি টাকা অনুদান দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক


সর্দি-কাশি নিয়ে ভর্তি, ঢামেকের আইসোলেশনে ২ জনের মৃত্যু

সর্দি-কাশি নিয়ে ভর্তি, ঢামেকের আইসোলেশনে ২ জনের মৃত্যু


আক্রান্ত না হলে মাস্ক ব্যবহার নয়: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

আক্রান্ত না হলে মাস্ক ব্যবহার নয়: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা


করোনাভাইরাসে নতুন শনাক্ত ২, সংখ্যা ছাড়াল ৫০

করোনাভাইরাসে নতুন শনাক্ত ২, সংখ্যা ছাড়াল ৫০


মৃত শ্বশুরকে দেখতে যাওয়ার পথে জামাই-মেয়েসহ নিহত ৩

মৃত শ্বশুরকে দেখতে যাওয়ার পথে জামাই-মেয়েসহ নিহত ৩


সাধারণ ছুটি বাড়ল ১১ এপ্রিল পর্যন্ত

সাধারণ ছুটি বাড়ল ১১ এপ্রিল পর্যন্ত