Thursday, October 6th, 2022
শামসুল ইসলামের জানাজা সম্পন্ন
April 27th, 2018 at 12:20 pm
শামসুল ইসলামের জানাজা সম্পন্ন

ঢাকা: বিএনপি নেতা এম শামসুল ইসলামের প্রথম নামাজে জানাজা সকাল ১০টায় জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় এবং দ্বিতীয় নামাজে জানাজা বেলা সোয়া ১১টার দিকে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সম্পন্ন হয়। ওলামা দলের সভাপতি হাফেজ মাওলানা এমএ মালেক জানাজা নামাজ পড়ান।

জানাজায় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, আহমদ আজম খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, হাবিবুর রহমান হাবিব, মিজানুর রহমান মিনু, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবীর খোকন, সহসাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, ইমরান সালেহ প্রিন্স।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এম শামসুল ইসলাম ইন্তেকাল করেন। তিনি দীর্ঘদিন দুরারোগ্য ক্যান্সারে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৭ বছর।

এম শামসুল ইসলাম ১৯৩২ সালের ১ জানুয়ারি মুন্সীগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। ছাত্রজীবন থেকেই তিনি সক্রিয় রাজনীতিতে যুক্ত ছিলেন। তিনি হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর নেতৃত্বাধীন তৎকালীন জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্টের (এনডিএফ) ঢাকা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এবং ওই ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যকরি সদস্য ছিলেন। ১৯৬৮ থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান পরিবার পরিকল্পনা সমিতির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন শামসুল ইসলাম। বিভিন্ন মেয়াদে তিনি লায়ন্স ক্লাবের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও ডেপুটি গভর্নরের দায়িত্বে ছিলেন।

শামসুল ইসলাম বাংলা একাডেমি, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি, বাংলাদেশ বক্ষব্যাধি সমিতি, বাংলাদেশ পরিবার পরিকল্পনা সমিতি, লায়ন্স ফাউন্ডেশন, বিক্রমপুর ফাউন্ডেশন ও মুন্সীগঞ্জ-বিক্রমপুর সমিতির আজীবন সদস্য ছিলেন।

১৯৯১ সালের মার্চ থেকে ১৯৯১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী এবং সেপ্টেম্বর ১৯৯১ থেকে সেপ্টেম্বর ১৯৯৩ পর্যন্ত খাদ্যমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর তিনি ১৯৯৩ থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত বাণিজ্যমন্ত্রী এবং একই সঙ্গে তথ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া ২০০১ সালের ১০ অক্টোবর থেকে ২০০২ সাল পর্যন্ত সরকারের ভূমিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন শামসুল ইসলাম। এরপর ২০০২ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত তথ্যমন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন।

গ্রন্থনা ও সম্পাদনা: এম কে রায়হান


সর্বশেষ

আরও খবর

দেশের পথে প্রধানমন্ত্রী

দেশের পথে প্রধানমন্ত্রী


দাম কমলো এলপিজির 

দাম কমলো এলপিজির 


বিমানবন্দর সড়কের পানি সেঁচলো ট্রাফিক পুলিশ


রক আইকনের জন্মদিনে !

রক আইকনের জন্মদিনে !


ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ২৪ ঘণ্টায়  ৬৩৫ জন দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে !

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ২৪ ঘণ্টায়  ৬৩৫ জন দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে !


একুশে পদকপ্রাপ্ত বর্ষীয়ান সাংবাদিক তোয়াব খান আর নেই 

একুশে পদকপ্রাপ্ত বর্ষীয়ান সাংবাদিক তোয়াব খান আর নেই 


রাজনৈতিক সহিংসতায় ৯ মাসে মৃত্যু ৫৮ আসকের প্রতিবেদন

রাজনৈতিক সহিংসতায় ৯ মাসে মৃত্যু ৫৮ আসকের প্রতিবেদন


ইউক্রেন নিয়ন্ত্রিত চার অঞ্চলকে রুশ ফেডারেশনের অংশ ঘোষণা দিয়েছেন ভ্লাদিমির পুতিন।

ইউক্রেন নিয়ন্ত্রিত চার অঞ্চলকে রুশ ফেডারেশনের অংশ ঘোষণা দিয়েছেন ভ্লাদিমির পুতিন।


রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা টেকনাফে পাঁচ কৃষককে অপহরণ করল


বিদায় বেনজীর 

বিদায় বেনজীর