Tuesday, October 4th, 2016
‘শিক্ষামন্ত্রী বলছেন তোমাদের লজ্জা হওয়া উচিত’
October 4th, 2016 at 9:31 pm
‘শিক্ষামন্ত্রী বলছেন তোমাদের লজ্জা হওয়া উচিত’

মিশুক মনির, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি: ‘গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজে সহশিক্ষা কার্যক্রম? তোমাদের তো লজ্জা হওয়া উচিত।’ গত বুধবার কলেজটির তিনজন প্রতিনিধি শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি কোনো ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস না দিয়ে উল্টো শিক্ষার্থীদেরকেই তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করেন। আর শিক্ষামন্ত্রীর এই মন্তব্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী।

ওই শিক্ষার্থী বলেন, ‘গত ২১ সেপ্টেম্বর কলেজটিতে সহশিক্ষা কার্যক্রম চালুর দাবিতে শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর একটি স্মারকলিপি দিয়েছিলেন। তখন দাবি পূরণের আশ্বাস দেওয়া হলেও এখন পর্যন্ত কোনো কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। পরে আমরা শিক্ষামন্ত্রীর সাথে দেখা করি। উনিও আমাদেরকে তাচ্ছিল্য করলে বাধ্য হয়ে আমরা দাবী আদায়ে রাজপথে নেমেছি।’

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট করার দাবিতে ঢাকার নীলক্ষেত মোড়ে সড়ক অবরোধ করে মানববন্ধন করেছে কলেজটির শিক্ষার্থীরা। এসময় তাদেরকে হাতে লেখা বিভিন্ন প্লাকার্ড ও ব্যানার নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। ‘পুলিশ দিয়ে আন্দোলন বন্ধ করা যাবে না/ভয় দেখিয়ে আন্দোলন বন্ধ করা যাবে না/মোদের দাবি একটাই, মানতে হবে মানতে হবে’ মধ্যদুপুরে প্রচন্ড রোদের মধ্যে শিক্ষার্থীদের এমন স্লোগানে প্রকম্পিত হয় পুরো নীলক্ষেত ও নিউমার্কেট এলাকা।

তখন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষার্থী নিউজনেক্সটবিডি ডটকমের কাছে অভিযোগ করেন, ‘কলেজের প্রিন্সিপাল ম্যাডাম আমাদেরকে ভুলিয়ে-ভালিয়ে রাখছে। আমাদের দাবীর বিষয়টা তিনি সমর্থন করেন না। এজন্যই তিনি কোনো পদক্ষেপ নিতে চান না।’

কলেজের প্রিন্সিপাল শামসুন্নাহার এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে বলেন, ‘আলোচনা চলছে। বিষয়টি আলোচনার মাধ্যমেই আমরা একটা সমাধানে নিয়ে আসার চেষ্টা করছি।’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে আরেক শিক্ষার্থী বলেন, ‘আমাদের কলেজের কিছু ম্যাডাম আছে যারা চায় না এটাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট করা হোক। মেয়েরা তাই রাস্তায় নেমেছে। মেয়েদেরকে আর থামানো যাবে না। আমরা আমাদের দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাব।’

সম্পদ ব্যবস্থাপণা ও উদ্যোক্তা বিভাগের শারমিন সুলতানা বৃষ্টি নামের এক শিক্ষার্থী হতাশা প্রকাশ করে বলেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোগো দেখেই এ কলেজে ভর্তি হই। ভর্তি হওয়ার পর দেখি এই কলেজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছুই না। ব্যাপারটা আগে জানলে আমি এখানে ভর্তি হতাম না।’

কলেজের নানাবিধ সমস্যার কথা উল্লেখ করে এই শিক্ষার্থী বলেন, ‘আমাদের কলেজের বাস নাই, ঢাবির আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট এ আমাদের ভর্তি হওয়ার কোনো সুযোগ নাই। কলেজে বিষয় ভিত্তিক কোনো টিচার নাই। ক্লাশ হয় না নিয়মিত। সারা বছর সেশন জট লেগেই থাকে। ২০০৮-০৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা ২০১৬ সালে পড়াশোনা কমপ্লিট করে বের হলো মাত্র। তাছাড়া আমাদের স্পেসিফিক কোনো বই নাই। আমাদের ইংলিশ ভার্সনে পড়ার ইচ্ছা থাকলেও টিচাররা আমাদের নিরুৎসাহিত করে। ইংরেজি ভার্সন না নিয়ে বাংলা ভার্সনে পড়তে বলে। এখন পড়াশোনা থেকে একেবারেই মন উঠে গেছে! কি যে করি!’

ইশরাত জাহান নামের আরেক শিক্ষার্থী বলেন, ‘ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছি কার্জন হলে, ভাইভা দিয়েছি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তাছাড়া আমাদের ভর্তি কার্যক্রম সব কিছুই করেছি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে। তাহলে আমরা কেনো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বলে পরিচয় দিতে পারব না। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়া স্বত্ত্বেও ঢাবির প্রতি মায়া থাকায় আমি সেখানে ভর্তি হয়নি। এখন কেনো আমাদেরকে এভাবে অবজ্ঞা করা হচ্ছে? আমরা এটা মানব না। দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে।’

সম্পাদনা: তুসা


সর্বশেষ

আরও খবর

করোনায় কমলো মৃত্যু ও শনাক্তের হার; মৃত্যু ৫০ আর শনাক্ত ১ হাজার ৭৪২

করোনায় কমলো মৃত্যু ও শনাক্তের হার; মৃত্যু ৫০ আর শনাক্ত ১ হাজার ৭৪২


১৬ মে পর্যন্ত লকডাউনের প্রজ্ঞাপন জারি

১৬ মে পর্যন্ত লকডাউনের প্রজ্ঞাপন জারি


২১ দিন পর বৃহস্পতিবার থেকে সড়কে গণপরিবহন

২১ দিন পর বৃহস্পতিবার থেকে সড়কে গণপরিবহন


দ্য ডেইলি হিলারিয়াস বাস্টার্ডস

দ্য ডেইলি হিলারিয়াস বাস্টার্ডস


করোনায় আরও ৬০ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৪৫২

করোনায় আরও ৬০ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৪৫২


শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডের জন্য ২৩ সদস্যের দল ঘোষণা

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডের জন্য ২৩ সদস্যের দল ঘোষণা


ঈদের আগে চালু হতে পারে গণপরিবহন: কাদের

ঈদের আগে চালু হতে পারে গণপরিবহন: কাদের


বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত ১৫ কোটি ছাড়াল

বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত ১৫ কোটি ছাড়াল


মামুনুলের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা কথিত স্ত্রীর

মামুনুলের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা কথিত স্ত্রীর


করোনার ঝুঁকিকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ঈদ শপিংয়ে ছুটছেন রাজধানীবাসী

করোনার ঝুঁকিকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ঈদ শপিংয়ে ছুটছেন রাজধানীবাসী