Sunday, September 11th, 2016
শুভ জন্মদিন মিস্টার হেনরি
September 11th, 2016 at 6:00 pm
শুভ জন্মদিন মিস্টার হেনরি

ডেস্ক: রসিকতা, বিশেষ ধরনের চরিত্রায়ন ও গল্পের শেষে চমকের জন্য বিখ্যাত ‘ও হেনরি’। তার আসল নাম উইলিয়াম সিডনি পোর্টার। ‘ও হেনরি’ ছিল লেখকের ছদ্মনাম। ১৮৬২ সালের ১১ সেপ্টেম্বর আমেরিকার নর্থ ক্যারোলিনায় জন্মগ্রহণ করেন জনপ্রিয় এই গল্পকার। আমেরিকান জীবনযাপন নিয়ে ছয় শতাধিক গল্প লিখেছেন। এক সময় কলেজ পাঠ্য হওয়ায় তার লেখা ‘দ্য গিফট অব ম্যাজাই’ গল্পটি বাংলাদেশে খুবই পরিচিত ও জনপ্রিয়।

ও হেনরি’র বাবার নাম এ্যালগারনন সিডনি পোর্টার, পেশায় চিকিৎসক। তিন বছর বয়সে মাকে হারিয়ে হেনরি বড় হন দাদী ও ফুফুর কাছে। ১৫ বছর বয়সে স্কুল ছাড়েন। এর পর ব্যাংকের কেরানিসহ নানান ধরনের চাকরি করেন। ব্যাংকে চাকরিকালে সাপ্তাহিক ‘দ্য রোলিং স্টোন’ এ কাজ করতেন। সেখানে তার ছোটগল্প ছাপা হয়। এ ছাড়া হিউস্টন পোস্টে কাজ করেন।

১৮৯৬ সালে অর্থ আত্মসাতে অভিযুক্ত হলে হেনরি ফেরারী জীবনে পা দেন। কিন্তু স্ত্রী মারা যাওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে পুলিশের কাছে ধরা দেন। বিচারে তার পাঁচ বছরের জেল হয়। ১৮৯৮ সালে ওহাইও রাজ্যের কলম্বাসের সংশোধনাগারে পাঠান হয়। বিভিন্ন ছদ্মনামে জেলে থাকাকালে চৌদ্দটি গল্প লেখেন হেনরি। অলিভার হেনরি নামটি প্রথম ব্যবহার করেন ১৮৯৯ সালের ম্যাকক্লারেস ম্যাগাজিনে প্রকাশিত ‘হুইসলিং ডিকস ক্রিস্টমাস স্টকিং’ গল্পে। পরে অলিভার হেনরি থেকে হন ও হেনরি। নিউ অরলিয়ন্সের এক বন্ধু গল্পটি পত্রিকায় পাঠান। পত্রিকা কর্তৃপক্ষের ধারণাই ছিল না লেখক জেলেবন্দী আসামি। ভাল আচরণের কারণে সাজার তিন বছর পূর্ণ হলে ১৯০১ সালের ২৪ জুলাই মুক্তি পান। এর পর পেনসিলভানিয়ায় গিয়ে মেয়ে মার্গারেটের সঙ্গে মিলিত হন। মার্গারেটকে কখনো বলা হয়নি তার বাবা জেলে ছিলেন। তিনি জানতেন ব্যবসার কারণে তিনি বাইরে আছেন।

ও হেনরি’র প্রথম গল্প সংকলনের নাম ‘ক্যাবাজেস এ্যান্ড কিংস’ (১৯০৪)। দ্বিতীয় সংকলনটির নাম ‘দ্য ফোর মিলিয়ন’ (১৯০৬)। অন্যান্য সংকলনের মধ্যে রয়েছে ‘রোডস টু ডেস্টিনি’ ও ‘সিক্সেস এ্যান্ড সেভেনস’। অধিকাংশ গল্পের চরিত্র সমাজের নিচুতলার মানুষ। তাদের নিঃসঙ্গতা এ সব গল্পে চমৎকারভাবে ফুটে উঠেছে হেনরির হাতে।

ও হেনরির গল্পাবলম্বনে তার জীবদ্দশায় মুক্তি পায় তিনটি নির্বাক ছবি- ‘দ্য স্যাক্রিসাইস’ (১৯০৯), ‘ট্রাইং টু গেট এ্যারেস্টেড’ (১৯০৯) ও ‘হিজ ডিউটি’ (১৯০৯)। তার লেখা অবলম্বনে নির্মিত আরও দুটি বিখ্যাত ছবি হলো ‘দ্য এ্যারিজোনা কিড’ (১৯৩১) ও ‘দ্য কিসকো কিড’ (১৯৩১)। ১৯৫২ সালে পাঁচটি গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে ‘ও হেনরিস ফুল হাউস’। এতে স্থান পেয়েছে ‘দ্য কপ এ্যান্ড দ্য এ্যান্থেম’, ‘দ্য ক্লারিওন কল’, ‘দ্য লাস্ট লিফ’, ‘দ্য রানসাম অব রেড চিফ’ ও ‘দ্য গিফট অব ম্যাজাই’।

১৯১০ সালের ৫ জুন নিউ ইয়র্ক সিটিতে মহান এই গল্পকার জীবনাবসান ঘটান।

গ্রন্থনা: বিধুনন জাঁ সিপাই, সম্পাদনা: তুসা


সর্বশেষ

আরও খবর

প্রয়াণের ২১ বছর…

প্রয়াণের ২১ বছর…


করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত

করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত


ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মজনুর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মজনুর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড


মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী

মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী


আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার

আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার


পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি

পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি


দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির

দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির


বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে

বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে


অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ

অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ


মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার

মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার