Saturday, July 23rd, 2016
সংক্ষেপে বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ
July 23rd, 2016 at 10:23 pm

ডেস্কঃ আজ বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদের ১২৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। হাজার হাজার বছরের শিল্প, সংস্কৃতি, সাহিত্য ও ঐতিহ্যের নিদর্শন আজ অবধি রয়ে গেছে এই বঙ্গভূমিতে। বিশ্বের ইতিহাসে একক, অদ্বিতীয় এই বাংলা ভাষা ও বাংলা ভাষায় রচিত সাহিত্যের প্রচার-প্রসারের উদ্দেশ্যে, উনবিংশ শতাব্দীর শেষভাগে, ১৮৯৩ সালের ২৩ জুলাই, ২/২ রাজা নবকৃষ্ণ স্ট্রিটে প্রতিষ্ঠিত হয় ‘বেঙ্গল আকাদেমি অফ লিটারেচার’।

বাংলা ভাষার বিভিন্ন বিষয়ে গবেষণা, অন্যান্য ভাষায় রচিত গ্রন্থের অনুবাদ, আট হাজার পুঁথি ও আড়াই লক্ষের বেশি গ্রন্থ পত্রিকাসহ  দুর্লভ বাংলা রচনা সংরক্ষণ, গবেষণাগ্রন্থ প্রকাশ প্রভৃতি ক্ষেত্রে এই পরিষদ উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করে। তাছাড়াও পরিষদে প্রাচীন মুদ্রা, প্রস্তরমূর্তি, ধাতুমূর্তি, তাম্রশাসন, প্রাচীন চিত্র, সাহিত্যিক ও বিশিষ্ট ব্যক্তিগণের ব্যবহৃত দ্রব্যাদি, হস্তলিপি পত্র ও দানপত্রাদি, প্রাচীন অস্ত্রশস্ত্র, পাণ্ডুলিপি (বিখ্যাত লেখকের রচনা) ও প্রাচীন দলিল প্রভৃতি বিভাগসমৃদ্ধ একটি চিত্রশালাও গঠিত হয়। পরিষদের নিজস্ব সঞ্চয়, উপহার প্রাপ্ত ও দানলব্ধ পুস্তকাদি ছাড়া ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, রমেশচন্দ্র দত্ত, সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত, বিনয়কৃষ্ণ দেব, ঋতেন্দ্রনাথ ঠাকুর, প্রেমসুন্দর বসু ও যতীন্দ্রনাথ পালের সাতটি মূল্যবান গ্রন্থ সংগ্রহ পরিষদ গ্রন্থাগারের অঙ্গীভূত হওয়ায় এটি হয়ে উঠেছে আরও সমৃদ্ধ। গ্রন্থাগারে মোট সংগৃহীত বইয়ের সংখ্যা প্রায় দেড় লক্ষ।

কলকাতার শোভাবাজারে বিনয়কৃষ্ণ দেব-এর বাসভবনে এল. লিউটার্ড ও ক্ষেত্রপাল চক্রবর্তীর উদ্যোগে বেঙ্গল একাডেমী অব লিটারেচার স্থাপিত হয়। প্রারম্ভিক কালে কার্যাবলী, সভা, মুখপত্র প্রভৃতি শুধুমাত্র ইংরেজি ভাষায় প্রকাশিত হতো। পরে বেশ কয়েকজন সদস্যদের আপত্তি প্রকাশ করলে উমেশচন্দ্র বটব্যালের প্রস্তাবানুসারে ১৮৯৪ সালের ২৯ এপ্রিলের সভায় একাডেমীর নাম পরিবর্তন করে ‘বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ’ করা হয়। এরপর থেকে পরিষদের মুখপত্রটি সাহিত্য পরিষদ পত্রিকা নামে ত্রৈমাসিক পত্রিকা হিসেবে বাংলায় প্রকাশিত হতে থাকে। ১৯০৮ সালে, তৎকালীন আপার সার্কুলার রোডে মহারাজা মণীন্দ্রচন্দ্র নন্দীর দান করা জমিতে নির্মিত হয় পরিষদের স্থায়ী ঠিকানা।

যাত্রা শুরুর সময় পরিষদের সভাপতি ছিলেন রমেশচন্দ্র দত্ত, সহ-সভাপতি ছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ও নবীনচন্দ্র সেন এবং সম্পাদক ছিলেন এল লিওটার্ড, দেবেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় ও রামেন্দ্রসুন্দর ত্রিবেদী।

নিউজনেক্সটবিডিডটকম/এসকেএস/টিএস


সর্বশেষ

আরও খবর

দ্য ডেইলি হিলারিয়াস বাস্টার্ডস

দ্য ডেইলি হিলারিয়াস বাস্টার্ডস


করোনা নিয়ে ওবায়দুল কাদেরের কবিতা

করোনা নিয়ে ওবায়দুল কাদেরের কবিতা


পাথর সময় ও অচেনা বৈশাখ

পাথর সময় ও অচেনা বৈশাখ


৭২-এর ঝর্ণাধারা

৭২-এর ঝর্ণাধারা


বইমেলায় আলতামিশ নাবিলের ‘লেট দেয়ার বি লাইট’

বইমেলায় আলতামিশ নাবিলের ‘লেট দেয়ার বি লাইট’


নাচ ধারাপাত নাচ!

নাচ ধারাপাত নাচ!


ক্রোকোডাইল ফার্ম

ক্রোকোডাইল ফার্ম


সামার অফ সানশাইন

সামার অফ সানশাইন


মুক্তিযুদ্ধে যোগদান

মুক্তিযুদ্ধে যোগদান


স্বাধীনতার ঘোষণা ও অস্থায়ী সরকার গঠন

স্বাধীনতার ঘোষণা ও অস্থায়ী সরকার গঠন