Sunday, June 5th, 2016
নিয়মিত নামাজ পড়তেন পর্দানশীল মিতু
June 5th, 2016 at 10:34 pm
নিয়মিত নামাজ পড়তেন পর্দানশীল মিতু

ঢাকা: নিয়মিত পর্দানশীল থাকা মাহমুদা খানম মিতু পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়তেন। নিউজনেক্সটবিডি ডটকমকে রোববার রাতে এমনটাই জানিয়েছেন তার বাবা মোহাম্মদ মোশারফ হোসেন, খালা নাসরিন সুলতানা লিপি এবং মামা তরিকুল ইসলাম।

‘মেয়েটা সব সময় পর্দা করত, পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ত’– এমনটা উল্লেখ করে তার খালা লিপি নিউজনেক্সটবিডি ডটকমকে আরো বলেন, ‘অদৃষ্টে কি লেখা থাকে তা আল্লাহই ভালো জানেন। মিতুর মতো ভালো মানুষকেও কেউ খুন করতে পারে তা আমরা ভাবতেও পারছি না। মেয়েটা কোনো দিন কারো সাথে উঁচু স্বরে কথাও বলেনি। কারো সাথে সে কখনো দুর্ব্যবহার করেছে, এমনটা কেউ বলতে পারবে না।’

পরে মিতুর পিতা মোশারফ হোসেন নিউজনেক্সটবিডি ডটকমকে বলেন, ‘ও (মিতু) একজন এসপির স্ত্রী, একজন ওসির মেয়ে। কিন্তু বিশ্বাস করুন, তার কোনো ব্যাংক একাউন্টও ছিলো না।’ মেয়ের পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ার বিষয়টি তিনিও উল্লেখ করেন। আরো বলেন, ‘মিতু অত্যন্ত ধর্মপ্রাণ ছিলো। কথাও বলতো কম।’ রাতেই মেরাদিয়া কবরস্থানে তাকে দাফনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলেও মোশারফ জানান।

বর্তমানে মিতুর বাবার ঢাকার বাসভবনে অবস্থান করছেন তার চাচা, মামা, খালাসহ অসংখ্য আত্বীয়-স্বজন। মেরাদিয়া ভূইয়া পাড়ার ২২০/এ নম্বরের শোকাচ্ছন্ন এই বাসাটিতে সকাল থেকেই তারা আসতে শুরু করেছেন। ইতোমধ্যে বাসাটির নিরাপত্তা জোরদার করেছে স্থানীয় থানা পুলিশ। বাসায় জড়ো হয়েছেন পুলিশের উর্ধ্বতন অনেক কর্মকর্তাও। বর্তমানে সেখানে অবস্থান করছেন নিউজনেক্সটবিডি ডটকম –এর প্রতিবেদক প্রীতম সাহা সুদীপ। সর্বশেষ রাত সাড়ে নয়টা ৫০ মিনিটে বার্তাকক্ষকে জানিয়েছেন, মাত্রই মিতুর মরদেহ সেখানে এসে পৌঁছেছে।বাড়ি জুড়ে কান্নার মাতম চলছে।

বাড়িটির কেয়ারটেকার ফোরকান নিউজনেক্সট ডটকমকে জানান, গত মাসেও এখানে এসেছিলেন মিতু। এর আগে নিহতের মামা তরিকুল ইসলাম নিউজনেক্সটবিডি ডটকমকে বলেন, ‘কেউ ভাবতেও পারেনি এমন ঘটনা ঘটবে। মিতুর কোনো শত্রু ছিলো না। স্বামীর সততা আর পেশাদারিত্বের জন্যই তাকে জীবন দিতে হলো।’তিনি জানান, বড় মেয়ে মিতুই ছিলো বাবার সবচেয়ে আদরের।

জানা গেছে, মিতুর আদি বাড়ি পটুয়াখালীর বাউফলের কাশীপাড়ায়। তার জন্ম যশোরের ফাতেমা হাসপাতালে। দুই বোনের মধ্যে তিনিই ছিলেন বড়। পিতার চাকরির সুবাদে বেড়ে উঠেছেন দেশের বিভিন্ন জেলায়। তার পিতা মোশারফ হোসেনের সাথে বাবুলের পিতা আব্দুল ওয়াদুদের পরিচয়ও হয়েছে চাকরির সুবাদে। তারা দুজনে একই সময়ে ওসি এবং এসআই ছিলেন। এরই সুবাদে ২০০২ সালে তাদের সম্পর্ক আত্মীয়তায় গড়ায়। বাবুলকেও নিজের সন্তানের মতোই জানতেন মোশারফ।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামে জঙ্গিবাদ বিরোধী অভিযানে সফলতা দেখিয়ে আলোচনায় আসা পুলিশ কর্মকর্তা (এসপি) বাবুল আক্তারের নিহত স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতুকে রোববার সকালে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করা হয়।

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/এসকে/জাই


সর্বশেষ

আরও খবর

করোনা: আরও ২৩ মৃত্যু, শনাক্ত ১৩০৮

করোনা: আরও ২৩ মৃত্যু, শনাক্ত ১৩০৮


সেনাপ্রধান ফেইসবুকে নেই: আইএসপিআর

সেনাপ্রধান ফেইসবুকে নেই: আইএসপিআর


করোনায় আরও ১৯ জনের মৃত্যু

করোনায় আরও ১৯ জনের মৃত্যু


সাগরে ৪ নম্বর সংকেত, বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে আরও দুই দিন

সাগরে ৪ নম্বর সংকেত, বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে আরও দুই দিন


দু-তিন দিনের মধ্যে আলুর দাম কমবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

দু-তিন দিনের মধ্যে আলুর দাম কমবে: বাণিজ্যমন্ত্রী


করোনায় প্রাণ গেল আরও ২১ জনের

করোনায় প্রাণ গেল আরও ২১ জনের


দেশে করোনায় আরও ২৩ জনের মৃত্যু

দেশে করোনায় আরও ২৩ জনের মৃত্যু


ভোট সুষ্ঠু হয়েছে; দাবি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের

ভোট সুষ্ঠু হয়েছে; দাবি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের


বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার খসড়া তালিকায় গ্লোব বায়োটেকের ভ্যাকসিন

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার খসড়া তালিকায় গ্লোব বায়োটেকের ভ্যাকসিন


মিরপুর চিড়িয়াখানা খুলছে ১ নভেম্বর

মিরপুর চিড়িয়াখানা খুলছে ১ নভেম্বর