Monday, June 27th, 2022
সমৃদ্ধ এশিয়া গড়তে পাঁচ প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর
May 28th, 2022 at 12:09 am
সমৃদ্ধ এশিয়া গড়তে পাঁচ প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা: শান্তিপূর্ণ, টেকসই ও সমৃদ্ধ এশিয়া গড়তে পাঁচটি প্রস্তাব দিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এশিয়ার ভবিষ্যত বিষয়ক ২৭তম আন্তর্জাতিক নিক্কেই সম্মেলনে শুক্রবার এক ভিডিও বার্তায় তিনি এই প্রস্তাব দেন।

দুই দিনব্যাপী সম্মেলনটি জাপানের রাজধানী টোকিওতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে উল্লেখ করে বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস) জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী তাঁর প্রথম প্রস্তাবে এশিয়ার দেশগুলোকে একে অপরের প্রতি বন্ধুত্ব, বোঝাপড়া ও সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে হবে এবং বিভাজন মোকাবেলায় সংহতি প্রচার করার কথা বলেছেন।

দ্বিতীয় এবং তৃতীয় প্রস্তাবে তিনি জানান ‘আইসিটির সফট পাওয়ার’-কে এশীয় দেশগুলো কীভাবেন্যায্যতা, সম্মান, ন্যায়বিচার এবং অন্তর্ভুক্তি রক্ষার ব্যবধান পূরণের শক্তিশালী হাতিয়ার হিসেবে সর্বোত্তমভাবে ব্যবহার করতে পারে। একইসঙ্গে তাদের কাজের মধ্যে সমতা আনতে পারে।

চতুর্থ এবং পঞ্চম ধারনার ব্যক্ত করতে গিয়ে তিনি বলেন, “এশিয়ার ভবিষ্যত নির্ভর করবে টেকসই ও ভারসাম্যপূর্ণ উন্নয়ন, আন্তর্জাতিক শৃঙ্খলার উন্নতি এবং উভয় পক্ষের জন্য সুবিধাজনক আন্তর্জাতিক সম্পর্ক স্থাপনের উপর। এশিয়ার দেশগুলোর অভিন্ন উন্নয়ন চ্যালেঞ্জ রয়েছে এবং তাদের তা ঐক্যবদ্ধভাবে ও সম্মিলিতভাবে মোকাবেলা করা উচিত।”

“এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলেরে অভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় অনুশীলন, জ্ঞান ও প্রযুক্তি ভাগ করে নিতে আমাদের বাহিনীগুলোকে একত্রিত করতে হবে। ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি শান্তিপূর্ণ, টেকসই বিশ্ব নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ সব বন্ধু ও অংশীদারদের সঙ্গে কাজ করার জন্য সর্বদা সচেষ্ট থাকবে,” যোগ করেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, “আমরা গভীরভাবে কৃতজ্ঞ থাকবো, যদি জাপান এবং অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও উন্নয়ন সংস্থার (ওইসিডি) অন্যান্য দেশগুলো কমপক্ষে ২০২৯ সাল পর্যন্ত অগ্রাধিকার সুবিধাগুলো প্রসারিত করে। যাতে ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়নের সর্বোচ্চ লক্ষ্য অর্জন আমাদের পক্ষে সম্ভব হয়।”

বাংলাদেশের ২০২৬ সালে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী জানান, জাতিসংঘের প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বন্ধুদেশ ও অংশীদারদের প্রতি ২০২৬ সালের পরও বর্ধিত সময়ের জন্য অগ্রাধিকারমূলক সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোর কথা বিবেচনা করার আহবান জানানো হয়েছে।

ভিডিও বার্তায় প্রধানমন্ত্রী সম্মেলনে স্মরণ করিয়ে দেন, বাংলাদেশ মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে আতিথ্য দিচ্ছে এবং তাদের অবশ্যই মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে নিজ বাসভূমে নিরাপদ, নিরাপত্তা ও মর্যাদার সাথে ফেরত পাঠাতে হবে।

বিশ্বের অন্যান্য অংশের মতো বাংলাদেশও চলমান কোভিড-১৯ মহামারীতে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে উল্লেখ করে তিনি জানান, ২০১৯ সালে মহামারীর আগে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার ছিল আট দশমিক ১৫ শতাংশ। ২০২০ সালে এটি তিন দশমিক ৫১ এবং ২০২১ সালে ছয় দশমিক ৯৪ শতাংশ।

“আমরা চলতি অর্থবছরে সাত শতাংশের বেশি প্রবৃদ্ধির হার অর্জনের আশা করছি,” বলেন তিনি।


সর্বশেষ

আরও খবর

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব


আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন

আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন


চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ

চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ


ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার

ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার


তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন

তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন


অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?

অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?


যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার

যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার


আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০

আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০


সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি

সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি


চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার

চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার