Monday, February 27th, 2017
সরকারী জমিসহ সংখ্যালঘুদের বসতবাড়ি দখল, প্রশাসন নিরব
February 27th, 2017 at 10:57 am
সরকারী জমিসহ সংখ্যালঘুদের বসতবাড়ি দখল, প্রশাসন নিরব

শরীয়তপুর: সিকদার মেডিকেল কলেজ এবং ন্যাশনাল ব্যাংকের চেয়ারম্যান জেড.এইচ সিকদারের বিরুদ্ধে তিনটি সংখ্যালঘু পরিবারের বসত বাড়ি এবং পরিত্যক্ত সাব রেজিস্ট্রি অফিসের সরকারী জমি দখল করে পল্লী কুটির নামে একটি বিলাস বহুল প্রমোদশালা নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। শুধু তাই নয়, যে সকল সংখ্যালঘু পরিবার তার কথা শুনছেন না তাদেরকে জোর করে সড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিচ্ছেন। এ ব্যাপারে সংখ্যালঘু রূপা রাণী দে জেলা প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। আর এদিকে স্থানীয় প্রশাসন এক অদৃশ্য কারণে নিরব রয়েছেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলার কার্তিকপুরের মধুপুর গ্রামে প্রায় ২০ একর জমি নিয়ে পল্লী কুটির নামে একটি বিলাস বহুল প্রমোদশালা নির্মাণ করছেন। সেখানে যে জমি ব্যবহার করা হয়েছে তার কিছু জমি জেড.এইচ সিকদারের বাপ দাদার আমলের পৈত্রিক সম্পত্তি। কিছু জমি রয়েছে যা তিনি বিভিন্ন সময়ে ভয়-ভীতি দেখিয়ে কিনে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। আর যে সকল জমির মালিক তার কাছে জমি বিক্রি করতে সম্মত হয়নি, সে সকল জমির মালিক থেকে জোর পূর্বক দখল করে নিয়েছেন। এজন্য তিনটি সংখ্যালঘু পরিবার তাদের বসত বাড়ি হারিয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছে বিচারের আশায়। এর পাশাপাশি পরিত্যক্ত সরকারী সাব রেজিস্ট্রি অফিসের জমিও দখল করে নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

কার্তিপুরের স্থানীয় তুহিন খান, আবদুল মান্নান সিকদার এবং ফারুক চৌধুরীর সাথে আলাপ কালে জানা যায়, জেড.এইচ সিকদার শিক্ষাকে প্রসারিত করার জন্য কার্তিকপুরের মধুপুর গ্রামে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং সিকদার মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নামে দুইটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেন। তার পাশাপাশি মধুপুর গ্রামে হেলিকপ্টার পাইলট ট্রেনিং স্কুল প্রতিষ্ঠা করার নাম করে প্রায় ১শ একর ফসলী জমি কিনে নিয়েছেন। সে প্রতিষ্ঠানটি বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন এখনও না পাওয়ায় নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা সম্ভব হয়নি। আর এ প্রতিষ্ঠান গুলোর সৌন্দর্য্য বৃদ্ধির এবং প্রতিষ্ঠান গুলোতে পরিচ্ছন্ন ভাবে ঢোকার জন্য কার্তিকপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে জরিনা সিকদার গেইট নামে একটি অত্যাধুনিক বিলাস বহুল গেইট নির্মাণ করেছেন। পল্লী কুটিরের নির্মাণ কাজ এখনও শেষ হয়নি। কাজ শেষ হলে এলাকাটি একটি দর্শণীয় স্থানে পরিণত হবে।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগকারী সংখ্যালঘু পরিবারের মেয়ে রূপা রাণী দে বলেন, এটা আমাদের পৈত্রিক ভিটা বাড়ি। আমরা এ বাড়ি হারাতে চাই না। আমরা এখানেই থাকতে চাই। জেড.এইচ সিকদার আমাদের বাড়িটি জোর পূর্বক দখল করতে চায়। তিনি এখানে পল্লী কুটির নামে একটি প্রমোদশালা নির্মাণ করছেন। আর এ প্রমোদশালা নির্মাণ করতে গিয়ে আমাদের মতো আরো দুইটি সংখ্যালঘু পরিবারের জমি দখল করে নিয়েছেন। আমাদের বাড়ির চারপাশ দিয়ে এমন ভাবে রাস্তা নির্মাণ করেছেন যাতে আমরা তাকে ইচ্ছাকৃত ভাবে বাড়িটা দিয়ে দেই। আমাদের বাড়িটিতে ৩৯ শতাংশ জমি ছিল। জেড.এইচ সিকদার আমাদের জমি দখল করতে করতে এখন ৮/১০ শতাংশে এনে ঠেকিয়েছে। এখন এ জমি টুকুও দখল করতে চায়। আমাদের জমি যাতে দখল করতে না পারে সে জন্য শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের কাছে আমি লিখিত অভিযোগ করেছি। তাতে কোন ফল পাইনি। আর এ দিকে জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করায় প্রতিনিয়ত আমাদেরকে প্রাণ নাশের হুমকি দিচ্ছে। আমরা যাতে এ বাড়ি ছেড়ে চলে যাই। কিন্তু আমরা আমাদের পৈত্রিক বসত বাড়ি হারাতে চাই না। আমরা এ অন্যায়ের বিচার চাই।

এ ব্যাপারে পল্লী কুটির নির্মাণের দায়িত্ব প্রাপ্ত প্রকৌশলী কামরুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে আলাপ কালে তিনি বলেন, পল্লী কুটির নির্মাণের ক্ষেত্রে আমরা কারো জমি জোর করে দখল করিনি। আমরা জমি কিনে নিয়েছি। আর যে মেয়েটি আমাদের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকের কাছে অভিযোগ করেছে আমরা তাদের জমি কিনতে চেয়েছিলাম। কিন্তু তাদের জমির দাম বেশী চাওয়ায় কেনা সম্ভব হয়নি। আমরা তাদেরকে কোন ভয়-ভীতি দেখাইনি। তারা আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেছে। পল্লী কুটিরের পাশে যে সরকারী জমি রয়েছে আমরা তা দখল করিনি। এলাকার নিরাপত্তার জন্য আমরা সেই সরকারী জমিতে পুলিশ ফারী নির্মাণ করে দিচ্ছি।

এ ব্যাপারে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক মোঃ মাহামুদুল হোসাইনের সাথে মুঠোফোনে আলাপ কালে তিনি বলেন, আমি এ ব্যাপারে তেমন কিছুই জানি না। তবে আমি ব্যাপারটি খোঁজ নিচ্ছে। আর আমার কাছে কেউ যদি লিখিত অভিযোগ করে থাকেন তাহলে তার সেই লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে অবশ্যই ঐ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানানো হয়েছে। তিনি তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দেয়ার পরই ব্যবস্থা নেয়া হবে। যদি কেউ সরকারী জমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই দখল করে কোন ইমারৎ নির্মাণ করেন তাহলে তার বিরুদ্ধে ঐ কর্তৃপক্ষ আইনগত ব্যবস্থা নেবে।

প্রতিনিধি: ওয়াদুদ মিয়া


সর্বশেষ

আরও খবর

বগুড়ায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে নিহত ৫

বগুড়ায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে নিহত ৫


টানা তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হলেন আইভী

টানা তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হলেন আইভী


আগুনে পুড়ল রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ১২০০ ঘর

আগুনে পুড়ল রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ১২০০ ঘর


নির্বাচনী সহিংসতায় ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু

নির্বাচনী সহিংসতায় ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু


সহিংসতায় নিহত ৬ রোহিঙ্গা, ইউএন বলছে ৭

সহিংসতায় নিহত ৬ রোহিঙ্গা, ইউএন বলছে ৭


ইকবালকে জেরা করছে পুলিশ, সারাদেশে গ্রেফতার ৫৮৪

ইকবালকে জেরা করছে পুলিশ, সারাদেশে গ্রেফতার ৫৮৪


ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জনের মৃত্যু


ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুই ট্রলারের সংঘর্ষে ১৭ মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুই ট্রলারের সংঘর্ষে ১৭ মরদেহ উদ্ধার


বৃষ্টিতে আবারও ডুবল চট্টগ্রাম শহরের অধিকাংশ এলাকা

বৃষ্টিতে আবারও ডুবল চট্টগ্রাম শহরের অধিকাংশ এলাকা


কাঠগড়ায় ওসি প্রদীপের ফোনালাপের ঘটনায় ৪ পুলিশকে প্রত্যাহার

কাঠগড়ায় ওসি প্রদীপের ফোনালাপের ঘটনায় ৪ পুলিশকে প্রত্যাহার