Monday, July 4th, 2022
সাঁওতালদের জন্য আ’লীগের যত প্রতিশ্রুতি
November 13th, 2016 at 7:09 pm
সাঁওতালদের জন্য আ’লীগের যত প্রতিশ্রুতি

গাইবান্ধা: উচ্ছেদ হওয়া সাঁওতালদের সরকারি জমিতে ঘরবাড়ি নির্মাণের পাশাপাশি তাদের আয়ের সুযোগ করে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের নেতারা। রোববার দুপুরে গোবিন্দগঞ্জে সাঁওতাল পল্লীর উচ্ছেদের ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে এই আশ্বাস দেন সরকার দলীয় নেতারা।

তারা বলেন, ‘কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে উৎপাদনমুখী কাজের প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। যারা ব্যবসা করতে আগ্রহী তাদেরকে বিনা জামানতে ঋণ দেয়া হবে। আর সন্তানদের শিক্ষার জন্য প্রাথমিক স্কুল করে দেয়া হবে।’

ভোরে ঢাকা থেকে গাইবান্ধার পথে রওয়ানা হন আওয়ামী লীগ নেতারা। দুপুরের আগেই তারা পৌঁছেন ঘটনাস্থলে। ক্ষমতাসীন দলের নেতারা আসছেন- জেনে ক্ষতিগ্রস্ত সাঁওতালরা তাদের সঙ্গে দেখা করতে অপেক্ষা করছিলেন আগে থেকেই।

প্রতিনিধি দলের সদস্যরা হলেন- আওয়ামী লীগের রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পদক বিএম মোজাম্মেল হক, রাজশাহী বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, অর্থ ও পরিকল্পনা সম্পাদক টিপু মুন্সি, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, কার্যনির্বাহী সদস্য রেমণ্ড আরেং।

ঘটনাস্থলে গিয়ে আওয়ামী লীগ নেতারা ক্ষতিগ্রস্তদের সঙ্গে কথা বলেন। সার্বিক খোঁজখবর নেন। এ সময় বিএম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে সাঁওতাল পল্লী গুঁড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় জড়িতদের কোনো ছাড় দেয়া হবে না। শেখ হাসিনা সরকারের আমলে কেউ নির্যাতিত হবে না। সাঁওতালরাও এর বাইরে থাকবে না।’

প্রতিনিধি দলের সদস্য খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘উচ্ছেদ হওয়া মানুষদেরকে সরকারি জমিতে ঘরবাড়ি নির্মাণের পাশাপাশি তাদের আয়ের সুযোগ করে দেয়া হবে। কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে উৎপাদনমুখী কাজের প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। যারা ব্যবসা করতে আগ্রহী তাদেরকে বিনা জামানতে ঋণ দেয়া হবে। আর সন্তানদের শিক্ষার জন্য প্রাথমিক স্কুল করে দেয়া হবে।’

জমি থেকে উচ্ছেদ হওয়া সাঁওতালরা ক্ষমতাসীন দলের নেতাদেরকে কাছে তারা তাদের ওপর চালানো নির্যাতনের কথা তুলে ধরেন। জানান, কীভাবে তাদেরকে নিঃশ্ব করা হয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগ নেতারা বলেন, ‘কেউ অন্যায় করলে তাকে অবশ্যই সাজা পেতে হবে’।

ছয় নভেম্বর গোবিন্দগঞ্জে রংপুর চিনিকলের সাহেবগঞ্জ আখ খামারের নামে অধিগ্রহণ করা জমিতে উচ্ছেদ অভিযানের সময় সাঁওতালদের সঙ্গে চিনিকলের কর্মকর্তা-কর্মচারী, স্থানীয় প্রভাবশালী ও পুলিশের সংঘর্ষ হয়। এতে তিন জন সাঁওতাল নিহত এবং বেশ কয়েকজন আহত হন। পুলিশের উপস্থিতিতেই সেদিন লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করা হয় শতাধিক বাড়িতে। এরপর চিনিকল কর্তৃপক্ষ ট্রাক্টর দিয়ে মাটি সমান করে দিয়েছে।

এই ঘটনায় হতদরিদ্র সাঁওতালরা আরো দুর্বিষহ অবস্থার মধ্যে পড়ে গেছে। খোলা আকাশের নিচে তিন বেলা খাওয়া পড়াই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে তাদের জন্য। ঘটনাটি গণমাধ্যমে প্রকাশ হলে নিন্দার ঝড় উঠে। আর এই পরিপ্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগ ঘটনাস্থলে নেতা পাঠিয়ে তদন্ত করার কথা জানায়।

১৯৬২ সালে সাঁওতাল অধ্যুষিত মাদারপুরসহ গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার এক হাজার ৮৪০ একর জমি অধিগ্রহণ করে আখ চাষের জন্য সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামার গড়ে তুলেছিল রংপুর চিনিকল কর্তৃপক্ষ।

দুই বছর আগে এসব জমি পূর্বপুরুষদের সম্পত্তি দাবি করে এগুলো ফেরত চেয়ে আন্দোলনে নামে সাঁওতালরা। তখন তারা নানা কর্মসূচিও পালন করে। আর বিরোধপূর্ণ জমিতে ঘর তুলে বসবাস করতে থাকে। আর এগুলো উচ্ছেদ অভিযানে গেলে একাধিকরার পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষও হয় তাদের।

গ্রন্থনা: ইয়াছিন রানা, সম্পাদনা: সজিব ঘোষ


সর্বশেষ

আরও খবর

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব

সংসদে ৬,৭৮,০৬৪ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব


আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন

আ’লীগ নেতা বিএম ডিপোর একক মালিক নন


চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ

চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চায় বাংলাদেশ


ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার

ভোজ্যতেল ও খাদ্য নিয়ে যা ভাবছে সরকার


তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন

তৎপর মন্ত্রীগণ, সীতাকুণ্ডে থামেনি দহন


অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?

অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?


যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার

যে গল্প এক অদম্য যোদ্ধার


আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০

আফগান ও ভারতীয় অনুপ্রবেশ: মে মাসে আটক ১০


সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি

সীমান্ত কাঁটাতারে বিদ্যুৎ: আলোচনায় বিজিবি-বিজিপি


চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার

চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর সরকার