Tuesday, September 20th, 2016
সাপের কামড়ে মায়ের পর সন্তানের মৃত্যু
September 20th, 2016 at 6:03 pm
সাপের কামড়ে মায়ের পর সন্তানের মৃত্যু

চুয়াডাঙ্গা: জেলার সদর উপজেলার ভেমরুল্লায় বিষধর সাপের কামড়ে মায়ের মৃত্যুর এক সপ্তাহ পর সন্তানেরও একই কারণে মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও সাপের কামড়ে আহত হয়েছে গ্রামের আট নারী-পুরুষ। গ্রাম জুড়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে সাপ আতঙ্ক বিরাজ করছে।

মঙ্গলবার সকালে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সজিব হোসেনের (২১) মৃত্যু হয়। সাপে কাটা রোগীর স্বাজনরা বলছেন, চিকিৎসকদের অবহেলা ও প্রয়োজনীয় ভ্যাকসিন না থাকায় মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে।

স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে সরকারি ভাবে ভ্যাকসিন সরবরাহ না থাকায় সাপে কাটা রোগীদের চিকিৎসা দেয়া সম্ভব হচ্ছে না।

জেলায় হঠাৎ করে বিষধর সাপের উপদ্রব বৃদ্ধি পেয়েছে। নিহত সজিব হোসেন চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার ভেমরুল্লা পুরাতন মসজিদ পাড়ার নজরুল ইসলামের ছেলে ও পরিবহনের হেলপার।

জানা যায়, চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার ভেমরুল্লা পুরাতন পাড়ার সজিব বাড়িতে নিজ ঘরে রাতে ঘুমিয়ে ছিল। সোমবার দিবাগত রাত ৩টার সময় বিষধর সাপ তার পায়ে কামড় দেয়। রাতেই তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপতালে ভর্তির পর কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দেয় এ রোগীর চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় ভ্যাকসিন নেই। তাই অন্যত্র কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার কথা বলা হয়। পরিবাররে সদস্যরা অনুপায় হয়ে সকালে স্থানীয় এক কবিরাজের কাছে নেন। সেখানে জাড়-ফুঁক দিয়ে কোনো কাজ না হওয়ায় আশঙ্কাজনক অবস্থায় আবার সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। পরে একটি ওষুধের দোকান থেকে সজিবের পিতা দশ হাজার টাকা দিয়ে একটি ভ্যাকসিন কিনে নিয়ে আসে। এ সময় ডা. পরিতোষ কুমার ঘোষের তত্ত্বাবধানে ভ্যাকসিন পুশ করা হয়।ভ্যাকসিন পুশ করার পরপরই সজীবের মৃত্যু হয়।

গত ১২ সেপ্টেম্বর সোমবার রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় সজীবের মা চম্পা ওরফে পান্তি খাতুনের সাপে কাটে। রাতেই সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু হাসপাতালে ভ্যাকসিন না থাকায় সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মুত্যু হয়। সাপে কেটে মা-ছেলের মৃত্যুর ঘটনায় গ্রাম জুড়ে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

গ্রামের হাসান আলি শহিদুল মোল্লা, রশিদা বেগম জানান, চিকিৎসকদের অবহেলায় মা ও ছেলের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনার আমরা বিচার চাই। গ্রামে সাপের উপদ্রব বৃদ্ধি পেয়েছে হঠাৎ করে।সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন ডা: সিদ্দিকুর রহমান জানান, এন্টি স্নেকভেনম সরকারি ভাবে সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। তাই আমাদের পক্ষে সাপে কাটা রোগীর চিকিৎসা দেয়া কঠিন হয়ে পড়ছে। বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে আমরা লিখিত ভাবে জানিয়েছি।

গত সাত দিনে গ্রামে আট জনকে সাপে কাটে।

উল্লেখ্য, গত আগস্ট মাসের ২০ তারিখ থেকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে এন্টিস্নেকভেনম ইনজেকশনের স্টক শেষ হয়ে যায়।

প্রতিনিধি, সম্পাদনা- জাহিদুল ইসলাম

 


সর্বশেষ

আরও খবর

করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত

করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, ৭৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত


ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মজনুর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মজনুর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড


মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী

মানুষের জন্য কিছু করতে পারাই আমাদের রাজনীতির লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী


আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার

আনিসুল হত্যা: মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার


পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি

পাওয়ার গ্রিডের আগুনে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট, ব্যাপক ক্ষতি


দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির

দুইদিনের বিক্ষোভের ডাক বিএনপির


বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে

বাস পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে


অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ

অবশেষে পাঁচ বছর পর নেপালকে হারালো বাংলাদেশ


মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার

মাইন্ড এইড হাসপাতালে তালা, মালিক গ্রেপ্তার


অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর

অবশেষে গ্রেফতার হলো এসআই আকবর