Friday, July 29th, 2016
সারাদেশে বজ্রপাতে শিশুসহ ১৪ জনের মৃত্যু
July 29th, 2016 at 10:01 pm
সারাদেশে বজ্রপাতে শিশুসহ ১৪ জনের মৃত্যু

ডেস্ক: দেশের সাত জেলায় বৃষ্টির সময় বজ্রপাতে দুই শিশুসহ ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে রংপুরে ছয়, শেরপুর ও নেত্রকোণায় দুই, গাইবান্ধা, মেহেরপুর, নোয়াখালী ও লক্ষ্মীপুরে একজন করে মারা গেছেন।

বৃহস্পতিবার রাত ও শুক্রবার পৃথক সময়ে এ ঘটনা ঘটে। নিউজনেক্সটবিডি ডটকম’র প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্যের ভিত্তিতে ডেস্ক রিপোর্ট।

রংপুর

জেলার পীরগাছা ও কাউনিয়ায় বজ্রপাতে দুই শিশুসহ চার জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার কল্যাণি ও কুর্শা ইউনিয়নে বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- কল্যাণি ইউনিয়নের বিহারি গ্রামের বাদল চন্দ্র বর্মণের ছেলে বিজয় চন্দ্র্র বর্মণ (৮) ও তার চাচাত ভাই দীলিপ চন্দ্র বর্মণের ছেলে পরিতোষ চন্দ্র বর্মণ (১২)। কুর্শা ইউনিয়নের গোপাল গ্রামে কৃষক মনিরুজ্জামান মিয়া (৬০) ও একই এলাকার সবুর মিয়ার ছেলে শাকিল মিয়া (১৬)। এরআগে বৃহস্পতিবার রাতে পীরগঞ্জে বজ্রপাতে আবদুর রাজ্জাক ও সুমন মিয়া নামে দুজন মারা যান।

শেরপুর

জেলায় পৃথক বজ্রপাতে দুই কৃষক নিহত হয়েছেন। শুক্রবার এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানায়, দুপুরে নালিতাবাড়ী উপজেলার উত্তর কালিনগর গ্রামে জমি চাষ করার সময় বজ্রপাতে মিয়া হোসেন (৪৫) নামে এক কৃষক ঘটনাস্থলেই নিহত হন। তিনি ওই গ্রামের মৃত হামিদ আলীর ছেলে।

এদিকে একই সময় শেরপুর সদর উপজেলার লছমনপুর ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর দড়িপাড়া গ্রামে জোসনা (৫০) বজ্রপাতে নিহত হন।

গাইবান্ধা

জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার তালুককানুপুর ইউনিয়নের নুনদহ সমসপাড়া গ্রামে বজ্রপাতে শরিফুল ইসলাম (৩০) নামে এক কৃষক মারা গেছেন। শুক্রবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানায়, দুপুরে শরিফুল জমিতে কাজ করছিল। এ সময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলে তিনি মারা যান।

লক্ষ্মীপুর

সদর উপজেলার চররুহিতা ইউনিয়নের চরমণ্ডল এলাকায় বজ্রপাতে সজিব হোসেন নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, সকালে ইছমাইল হোসেন ও তার ভাগিনা সজিব হোসেন জমিতে কাজ করছিল। এ সময় বজ্রপাতে তারা দুই জন আহত হন। তাদের লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে আনার পথে সজিব হোসেন মারা যান।

নেত্রকোণা

কেন্দুয়া উপজেলার বাট্টা মধ্যপাড়া গ্রামের বালিয়ান বিলে শুক্রবার মাছ ধরার সময় বজ্রপাতে আলম মিয়া নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। আর বৃহস্পতিবার পূর্বধলা উপজেলার হুগলা ডোলকর গ্রামের মেরাজ আলী মাঠে কাজ করার সময় বজ্রপাতে মারা যান।

মেহেরপুর

গাংনী উপজেলার গাড়াবাড়িয়া গ্রামে শুক্রবার বজ্রপাতের ঘটনায় আয়েশা খাতুন নামের এক গৃহবধূর মৃতু হয়। তিনি ওই গ্রামের কালু সেখের স্ত্রী এবং মুক্তিযোদ্ধা সদর উদ্দীনের পুত্রবধূ।

নোয়াখালী

সুবর্ণচর উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের ইসরাফিল (৩৫) নামে এক ব্যক্তি বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন। নিহত ইসরাফিল ওই এলাকার মৃত আব্দুল আহাদের ছেলে।

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/প্রতিনিধি/এসজি


সর্বশেষ

আরও খবর

বাঁশখালীতে বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে ৪ জন নিহত

বাঁশখালীতে বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে ৪ জন নিহত


আলেমদের ওপর জুলুম আল্লাহ বরদাশত করবেন না: বাবুনগরী

আলেমদের ওপর জুলুম আল্লাহ বরদাশত করবেন না: বাবুনগরী


ছেলেকে উদ্ধারে সেপটিক ট্যাংক নেমে বাবারও মৃত্যু

ছেলেকে উদ্ধারে সেপটিক ট্যাংক নেমে বাবারও মৃত্যু


যুবলীগের এক নেতাকে কোপাল আরেক যুবলীগে নেতা

যুবলীগের এক নেতাকে কোপাল আরেক যুবলীগে নেতা


কুমিল্লায় বাসে লাগা আগুনে ১৪ জন বার্ন ইনস্টিটিউটে ভর্তি

কুমিল্লায় বাসে লাগা আগুনে ১৪ জন বার্ন ইনস্টিটিউটে ভর্তি


নোয়াখালীর বসুরহাটে ১৪৪ ধারা জারি

নোয়াখালীর বসুরহাটে ১৪৪ ধারা জারি


শিক্ষার্থীকে নির্মম নির্যাতন; শিক্ষককে ছাড়িয়ে নিল শিক্ষার্থীর বাবা-মা

শিক্ষার্থীকে নির্মম নির্যাতন; শিক্ষককে ছাড়িয়ে নিল শিক্ষার্থীর বাবা-মা


একদিনেই সড়কে ঝড়ল ১৯ প্রাণ

একদিনেই সড়কে ঝড়ল ১৯ প্রাণ


নামাজ পড়ানোর সময় সিজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু

নামাজ পড়ানোর সময় সিজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু


ডুবে যাওয়ার ২৫ ঘণ্টা পর মিলল লাশ

ডুবে যাওয়ার ২৫ ঘণ্টা পর মিলল লাশ