Saturday, February 25th, 2017
সিফাত হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির প্রত্যাশা
February 25th, 2017 at 5:54 pm
সিফাত হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির প্রত্যাশা

রাবি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী ওয়াহিদা সিফাত হত্যা মামলার রায় ঘোষণা হবে সোমবার। এদিকে হত্যাকাণ্ডে সঙ্গে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির প্রত্যাশা করছেন স্বজনসহ বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, গত বছরের ২৩ মার্চ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির জ্যেষ্ঠ সহকারী সুপার আহমেদ আলী চারজনের বিরুদ্ধে রাজশাহী মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে অভিযোগপত্র দেন। আসামীরা হলেন- সিফাতের স্বামী মোহাম্মদ আসিফ প্রিসলি, শ্বশুর হোসেন মোহাম্মদ রমজান, শাশুড়ি নাজমুন নাহার নজলী ও প্রথম ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ফরেন্সিক বিভাগের প্রধান চিকিৎসক জোবাইদুর রহমান।

রায় প্রসঙ্গে সিফাতের ছোট ভাইকে এম আসিফ-উল-ইসলাম বলেন, ‘আমাদের আদালতের প্রতি পূর্ণ আস্থা রয়েছে। আশা করি আপুর হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সকলের সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদান করবেন আদালত।’

সিফাতের সহপাঠী মেহেরুল সুজন বলেন, ‘প্রথম থেকেই এ হত্যাকাণ্ডকে বিভিন্ন ভাবে আত্মহত্যা বলে চালানোর অপচেষ্টা ছিলো আসামী পক্ষের। কিন্তু দ্বিতীয় ময়নাতদন্তের মাধ্যমে জানা যায় এটা আত্মহত্যা নয়, আঘাতজনিত কারণে মৃত্যু হয়েছে। আমাদের প্রত্যাশা আদালত হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের সর্বোচ্চ সাজা প্রদান করবেন।’

এদিকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. সাজ্জাদ বকুল বলেন, ‘প্রথম থেকেই এ হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচার দাবি করে এসেছি। আমরা চাই এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করবেন আদালত।’

২০১৫ সালের ২৯ মার্চ সন্ধ্যায় রাজশাহী মহানগরের মহিষবাথান এলাকায় আইনজীবী হোসেন মোহাম্মদ রমজানের বাড়িতে মৃত্যু হয় গৃহবধূ ওয়াহিদা সিফাতের। এ ঘটনায় মহানগরীর রাজপাড়া থানায় হত্যা মামলা করেন সিফাতের চাচা মিজানুর রহমান খন্দকার। প্রথমে সিফাত আত্মহত্যা করেছে বলে তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন দাবি করে। পরে দ্বিতীয় ময়নাতদন্তে হত্যার প্রমাণ মিলে।’

প্রতিবেদন: আলী ইউনুস, সম্পাদনা: সজিব ঘোষ


সর্বশেষ

আরও খবর

দেশে আরও ৯৫০০ জনের করোনা শনাক্ত, হার ২৫ ছাড়াল

দেশে আরও ৯৫০০ জনের করোনা শনাক্ত, হার ২৫ ছাড়াল


টানা তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হলেন আইভী

টানা তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হলেন আইভী


অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে বাস চলার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন

অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে বাস চলার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন


আগুনে পুড়ল রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ১২০০ ঘর

আগুনে পুড়ল রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ১২০০ ঘর


কমলো এলপিজির দাম

কমলো এলপিজির দাম


উন্নয়নশীল দেশ নিয়ে খুশি না হয়ে, উন্নত দেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

উন্নয়নশীল দেশ নিয়ে খুশি না হয়ে, উন্নত দেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির


জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম মারা গেছেন

জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম মারা গেছেন


ডিআরইউর নতুন সভাপতি মিঠু, সাধারণ সম্পাদক হাসিব

ডিআরইউর নতুন সভাপতি মিঠু, সাধারণ সম্পাদক হাসিব


ওমিক্রন খুবই ঝুঁকিপূর্ণ; সবাইকে প্রস্তুত থাকার আহ্বান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার

ওমিক্রন খুবই ঝুঁকিপূর্ণ; সবাইকে প্রস্তুত থাকার আহ্বান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার


আবার রক্তক্ষরণ হলে খালেদা জিয়ার মৃত্যুঝুঁকি বাড়বে

আবার রক্তক্ষরণ হলে খালেদা জিয়ার মৃত্যুঝুঁকি বাড়বে