Monday, July 25th, 2016
সৈয়দ আলী আহসানের চতুর্দশ মৃত্যুবার্ষিকী
July 25th, 2016 at 9:00 pm
সৈয়দ আলী আহসানের চতুর্দশ মৃত্যুবার্ষিকী

ডেস্ক: আজ ২৫ জুলাই, ২০১৬, জনপ্রিয় কবি, সাহিত্যিক, সমালোচক, অনুবাদক, প্রাবন্ধিক, গবেষক, সম্পাদক, শিক্ষাবিদ এবং বাংলাদেশ সরকার স্বীকৃত ‘জাতীয় অধ্যাপক’ সৈয়দ আলী আহসানের চতুর্দশ মৃত্যুবার্ষিকী।

১৯২২ সালের ২৬ মার্চ, বর্তমান মাগুরা জেলার আলোকদিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন সৈয়দ আলী আহসান। আরমানিটোলা সরকারি হাইস্কুল থেকে এন্ট্রান্স এবং তৎকালীন ঢাকা ইন্টারমিডিয়েট কলেজ  থেকে এফএ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন যথাক্রমে ১৯৪৩ এবং ১৯৪৪ সালে। 

১৯৪৯ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন তিনি। ১৯৫৩ সালে নিযুক্ত হন করাচি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রধান নিযুক্ত হন। ১৯৬০ সালে পর্যন্ত এ পদে কর্মরত ছিলেন। ১৯৬০ থেকে ১৯৬৭ সাল পর্যন্ত বাংলা একাডেমীর প্রধান নির্বাহী পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। কিছুদিন পর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ও অধ্যক্ষ হিসেবে যোগদান করেন তিনি। ১৯৭১ এ মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে সৈয়দ আলী আহসান সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। তিনি স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শব্দসৈনিক হিসেবে বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করেন। এ সময় তিনি ‘চেনাকণ্ঠ’ ছদ্মনামে পরিচিত ছিলেন।

১৯৭২ থেকে ১৯৭৫ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। এরপ কিছুদিন পর পুনরায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা বিভাগের অধ্যাপক হিসেবে প্রত্যাবর্তন করেন। ১৯৭৫ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে ১৯৭৭ সালের প্রারম্ভ পর্যন্ত তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৭৭ থেকে ১৯৭৮ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা, সংস্কৃতি, ক্রীড়া ও ধর্ম সম্পর্কিত মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টা পদে নিযুক্ত ছিলেন। সুইডেনের নোবেল কমিটির সাহিত্য শাখার উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করেন ১৯৭৬ সাল থেকে ১৯৮২ সাল পর্যন্ত। ১৯৮৯ সালে তিনি জাতীয় অধ্যাপক হিসাবে অভিষিক্ত হন এবং সে বছরই বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান নিযুক্ত হন। শেষ জীবনে দারুল ইহসান ইউনিভার্সিটির উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

২০০২ সালের ২৫ জুলাই তিনি ঢাকায় ইন্তেকাল করেন। তাকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদ সংলগ্ন কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হয়।

সৈয়দ আলী আহসানের লেখা প্রকাশিত উল্লেখযোগ্য গ্রন্থসমূহ 

কাব্যগ্রন্থ: অনেক আকাশ (১৯৬০), একক সন্ধ্যায় বসন্ত (১৯৬২), সহসা সচকিত (১৯৬৮), উচ্চারণ (১৯৬৮), আমার প্রতিদিনের শব্দ (১৯৭৩), প্রেম যেখানে সর্বস্ব

প্রবন্ধ গ্রন্থ: বাংলা সাহিত্যের ইতিবৃত্ত (আধুনিক যুগ) (১৯৫৬), কবিতার কথা (১৯৫৭), কবিতার কথা ও অন্যান্য বিবেচনা (১৯৬৮), আধুনিক বাংলা কবিতা: শব্দের অনুষঙ্গে (১৯৭০), রবীন্দ্রনাথ: কাব্য বিচারের ভূমিকা (১৯৭৩), মধুসূদন: কবিকৃতি ও কাব্যাদর্শ (১৯৭৬), আধুনিক জার্মান সাহিত্য (১৯৭৬), যখন কলকাতায় ছিলাম, আহমদ পাবলিশিং হাউজ, ২০০৪ বাংলা সাহিত্যে ইতিহাস মধ্যযুগ, শিল্পবোধ ও শিল্পচৈতন্য

সম্পাদিত গ্রন্থ: পদ্মাবতী (১৯৬৮), মধুমালতী (১৯৭১)

অনূদিত গ্রন্থ: ইকবালের কবিতা (১৯৫২), প্রেমের কবিতা (১৯৬০), ইতিহাস (১৯৬৮)

ইসলামী গ্রন্থ: মহানবী, আল্লাহ আমার প্রভু

 অন্যান্য: যখন সময় এলো, রক্তাক্ত বাংলা, পাণ্ডুলিপি, বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থা, রজনীগন্ধা

নিউজনেক্সটবিডিডটকম/এসকেএস/টিএস


সর্বশেষ

আরও খবর

প্রয়াণের ২১ বছর…

প্রয়াণের ২১ বছর…


বীর উত্তম সি আর দত্ত আর নেই, রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শোক

বীর উত্তম সি আর দত্ত আর নেই, রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শোক


সংগীতের ভিনসেন্ট নার্গিস পারভীন

সংগীতের ভিনসেন্ট নার্গিস পারভীন


সিরাজগঞ্জে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে কামাল লোহানীকে

সিরাজগঞ্জে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে কামাল লোহানীকে


জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান আর নেই

জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান আর নেই


ওয়াজেদ মিয়ার ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

ওয়াজেদ মিয়ার ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ


একুশে পদকপ্রাপ্তদের হাতে পুরষ্কার তুলে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

একুশে পদকপ্রাপ্তদের হাতে পুরষ্কার তুলে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী


প্রধানমন্ত্রীর হাতে রান্না করা খাবার সাকিবের বাসায়

প্রধানমন্ত্রীর হাতে রান্না করা খাবার সাকিবের বাসায়


জাতীয় কবির মৃত্যুবার্ষিকী আজ

জাতীয় কবির মৃত্যুবার্ষিকী আজ


জাপানে হেইসেই যুগের অবসান হচ্ছে আজ

জাপানে হেইসেই যুগের অবসান হচ্ছে আজ