Thursday, June 30th, 2022
৫৪ ধারায় গ্রেফতার, ১২ ঘণ্টার মধ্যে জানাতে হবে
November 11th, 2016 at 9:47 am
৫৪ ধারায় গ্রেফতার, ১২ ঘণ্টার মধ্যে জানাতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক: কাউকে আটক (অ্যারেস্ট) করা হলে তার নিকট আত্মীয়, নিকট আত্মীয় না থাকলে তার বন্ধুকে অবশ্যই ১২ ঘণ্টার মধ্যে জানাতে হবে বলে জানিয়েছেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা।

বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতার ও পুলিশি রিমান্ড নিয়ে ১৩ বছর আগে দেয়া হাইকোর্টের রায় বহাল রেখে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করা হয় বৃহস্পতিবার।

রায় প্রকাশ করার পর অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়ে এক প্রতিক্রিয়ায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা সাংবাদিকদের সঙ্গে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আরেকটা বিশেষ নির্দেশনা হলো- বিশেষ ক্ষমতা আইনে কাউকে যদি ডিটেনশনে নেওয়া হয় তাহলে তাকে ৫৪ ধারায় অ্যারেস্ট করা যাবে না।

তিনি আরও বলেন, “হাই কোর্টের রায়টি মোডিফাই করে আপিল বিভাগের প্রকাশিত রায়ে কিছু নির্দেশনা দিয়েছে।” একই সঙ্গে রায়ের বিষয়টি পুলিশ প্রধান, র‌্যাব প্রধানসহ সংশ্লিষ্টদের সাথে সাথে সবাইকে জানিয়ে দেয়ার জন্য প্রধান বিচারপতির নির্দেশনা দেওয়া আছে পর্যবেক্ষনে।

তিনি বলেন, “বেশ কিছুদিন আগে বাংলাদেশের পেনাল কোডের কয়েকটি ধারাকে চ্যালেঞ্জ করে রিট করেছিল। সেই রিটের রায় প্রকাশের পর ওই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল হয়েছিল। সেই রায়টাকে মোডিফাই করে রায় দিয়েছেন আপিল বিভাগ।”

৫৪ ধারা এবং ১৬৭ ধারার রায়ে কী কী গাইডলাইন এসেছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “গাডলাইনে প্রথমেই বলা হয়েছে, আইন প্রয়োগকারী সংস্থায় যারা আছেন, তারা যেন অতি উচ্চ মানের দায়-দায়িত্ব পালন করেন। সে বিষয়ে যথাযথ সক্ষমতা তাদের দেখাতে হবে। যাকে গ্রেফতার করা হবে তাদের ক্ষেত্রে যেন মানবাধিকার ক্ষুন্ন না হয়। আরও বলা হয়েছে যে, যে আসামিকে ধরা হবে তাকে যেন কোনো ধরণের নির্যাতন বা হেয় পতিপন্ন করা না হয়।”

“তবে দেশে যদি যুদ্ধ থাকে বা যুদ্ধাবস্থা বিরাজ করে, জাতীয় নিরাপত্তা যদি বিঘ্নিত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয় অথবা রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা থাকে, সে সব পরিস্থিতিকে ব্যতিক্রম হিসেবে ধরা হয়েছে।” বলেন মুরাদ রেজা।

রায়ে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার প্রতি কিছু নির্দেশনা তুলে ধরেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল। তিনি বলেন, “এই নির্দেশনার বিশেষ কয়েকটি দিক হচ্ছে, যাকে গ্রেফতার করা হবে তার মেমোরেন্ডাম অব অ্যারেস্ট দেখাতে হবে এবং তাতে তার সাক্ষর নিতে হবে। পাশাপাশি কখন কোথায় কিভাবে তাকে অ্যারেস্ট করা হয়েছে সে সব বিষয় উল্লেখ থাকতে হবে।”

এছাড়া কাউকে অ্যারেস্ট করা হলে তার নিকট আত্মীয়, নিকটাত্মীয় না থাকলে তার বন্ধুকে অবশ্যই ১২ ঘন্টার মধ্যে জানাতে হবে। আরেকটা বিশেষ নির্দেশনা হলো; বিশেষ ক্ষমতা আইনে কাউকে যদি ডিটেনশনে নেওয়া হয় তাহলে তাকে ৫৪ ধারায় অ্যারেস্ট করা যাবে না।” প্রতিক্রিয়ায় উল্লেখ করেন মুরাদ রেজা।

তিনি আরও বলেন, “রায়ে বলা হয়েছে, কাউকে ১৫ দিনের বেশি রিমান্ড দেয়া যাবে না। আসামি যদি কাস্টডিতে থাকে, যদি আসামিকে শোন অ্যারেস্ট দেখাতে হয়, তাহলে তাকে আদালতে হাজির করতে হবে এবং ডায়রি এনে সেখানে (আদালতকে) শোন অ্যারেস্ট দেখাতে হবে”

রায়ে কয়েক রকম নির্দেশনা আছে উল্লেখ করে মুরাদ রেজা আরও বলেন, “নির্দেশনা আছে বিচারপতি, ট্রাইব্যুনালের বিচারক এবং ম্যাজিস্ট্রেটদের প্রতি। কিছু নির্দেশনা আছে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার প্রতিও। কিছু গাইডলাইন আছে আসামিদের সাথে কী ধরণের ব্যবহার করা যাবে, সে বিষয়েও।”

এ দুই রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ রিভিউ করবে কিনা জানতে চাইলে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, “রায় পুরোপুরি পর্যারলোচনা, যথাযথ কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ-আলোচনা করে রিভিউয়ের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।”

হাইকোর্টের অপর আইনজীবী শাহদীন মালিক বলেছেন, ৫৪ ধারার মামলাটি আমরাই করেছিলাম। ১৯৯৮ সালে এ মামলাটি শুরু হয়েছিল। আজ দীর্ঘ ১৮ বছরপর এটা শেষ হলো। এখানে প্রধান বিচারপতি লম্বা জাজমেন্ট দিয়েছেন। সেখানে অনেকগুলি ভাল কথা বলেছেন। এখানে শোন অ্যারেস্ট করে হেনস্থা করার যে একটি ব্যাপার আছে সেটির বিষয়ে রায়ে উল্লেখ আছে। পুলিশি হেফাজতে মৃত্যু নিবারণ আইন ২০১৩। এতে ম্যাজিস্ট্রেটের যদি কোন সন্দেহ হয় আটককৃত ব্যক্তিকে পুলিশি হেফাজতে নির্যাতন করা হয়েছে। তাহলে সাথে সাথে জড়িত ওই পুলিশের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নিতে পারবেন এবং পুলিশি হেফাজতে যদি কারো মৃত্যু হয় তাহলে মেডিকেল বোর্ড করে মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধান করে দেখতে হবে।

প্রমাণ পেলে সাথে সাথে মামলা করতে হবে। ব্যক্তির যদি কবরও হয়ে যায় তাহালে কবর থেকে তুলে মেডিকেল করে দেখতে হবে তার স্বাভাবিক না অস্বাভাবিক ভাবে মৃত্যু হয়েছে।

রিমান্ডের কথাও বলেছেন, পুলিশ রিমান্ড চাইলে তার কেস ডায়েরী, অপরাধের সঙ্গে কি প্রমাণ আছে তা কোর্টে উল্লেখ করতে হবে। কোর্ট বিস্তারিত দেখে সিদ্ধান্ত নেবে। এ ভাবে বিস্তারিত তথ্য প্রমান না থাকলে তাকে ছেড়ে দিতে হবে। আমাদের অধিকার সংরক্ষণের জন্য রায়টি একটি মাইলফলক হয়ে থাকবে।

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার(এসকে)সিনহাসহ আপিল বিভাগের নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বিভাগের বিচারপতিদের স্বাক্ষরের পর রায়টি সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। এর আগে গত ২৪ মে আপিল বিভাগ ফৌজদারি কার্যবিধির ৫৪ ধারা অনুযায়ী বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতার এবং ১৬৭ ধারায় পুলিশ রিমান্ড প্রশ্নে রাষ্ট্রের আপিল খারিজ করে দেন।

১৯৯৮ সালে ডিবি পুলিশ ঢাকার সিদ্ধেশরী এলাকা থেকে ইনডিপেন্ডেন্ট ইউনির্ভাসিটির ছাত্র শামীম রেজা রুবেলকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার করে। পরে পুলিশ হেফাজতে থাকা অবস্থায় রুবেল মারা যায়। পুলিশ হেফাজতে রুবেলের মৃত্যুর ঘটনায় বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড এন্ড সার্ভিসেস ট্রাষ্ট্র (ব্লাষ্ট) সহ কয়েকটি মানবাধিকার সংগঠন রিট আবেদন দায়ের করে। ২০০৩ সালের ৭ এপ্রিল বিচারপতি মো. হামিদুল হকের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ ফৌজদারি কার্যবিধির ৫৪ ধারায় গ্রেফতার ও রিমান্ড সংক্রান্ত ১৬৭ ধারার বিধান ৬ মাসের মধ্যে সংশোধনে এক যুগান্তকারী রায় দেন

প্রতিবেদক: ফায়েজ, সম্পাদনা: প্রণব


সর্বশেষ

আরও খবর

অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?

অত আগুন, এত মৃত্যু, দায় কার?


মহামারিতেও থেমে নেই সংখ্যালঘু পীড়ন

মহামারিতেও থেমে নেই সংখ্যালঘু পীড়ন


বরিশালে সংকটের নেপথ্যে ক্ষমতার সংঘাত

বরিশালে সংকটের নেপথ্যে ক্ষমতার সংঘাত


বঙ্গবন্ধুকে দাফনের আগেই দুই রাষ্ট্রপতি,স্পীকারসহ ২১ মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী হয়ে যান খুনী মোশতাকের!

বঙ্গবন্ধুকে দাফনের আগেই দুই রাষ্ট্রপতি,স্পীকারসহ ২১ মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী হয়ে যান খুনী মোশতাকের!


দ. আফ্রিকা: গুলিতে নিহত বাংলাদেশি দোকানি, সর্বহারা দেড় শতাধিক

দ. আফ্রিকা: গুলিতে নিহত বাংলাদেশি দোকানি, সর্বহারা দেড় শতাধিক


শিয়াল ও জোনাকি যুগ

শিয়াল ও জোনাকি যুগ


আইসক্রিম সেলার

আইসক্রিম সেলার


গার্ডিয়ান এঞ্জেল সরিয়ে জেমস বন্ডের কুরুস্থাপন

গার্ডিয়ান এঞ্জেল সরিয়ে জেমস বন্ডের কুরুস্থাপন


দ্য ডেইলি হিলারিয়াস বাস্টার্ডস

দ্য ডেইলি হিলারিয়াস বাস্টার্ডস


আসামে বন্দী রোহিঙ্গা কিশোরীকে কক্সবাজারে চায় পরিবার

আসামে বন্দী রোহিঙ্গা কিশোরীকে কক্সবাজারে চায় পরিবার