Thursday, September 29th, 2016
৫ বছরেও শেষ হয়নি সয়দাবাদ-বেলকুচি-এনায়েতপুর প্রকল্পের কাজ
September 29th, 2016 at 11:47 am
৫ বছরেও শেষ হয়নি সয়দাবাদ-বেলকুচি-এনায়েতপুর প্রকল্পের কাজ

সিরাজগঞ্জ: নির্ধারিত মেয়াদের ৪ বছর অতিক্রম করলেও সিরাজগঞ্জের সয়দাবাদ-বেলকুচি-এনায়েতপুর বাইলেন প্রকল্পের কাজ শেষ হয়নি। অথচ ঠিকাদারকে পুরো বিল পরিশোধ করা হয়েছে। ২০১২ সালের এপ্রিলের মধ্যে কাজটি শেষ করার কথা থাকলেও এখনও তা শেষ হয়নি।

কাজ শেষ করতে ৫ দফায় মেয়াদ বাড়ানো হলেও চলতি সেপ্টম্বর মাসেও তা শেষ হয়নি। বর্তমানে মুখ থুবড়ে পড়েছে এই প্রকল্পের কাজ। সিরাজগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের পক্ষ থেকে এ ব্যপারে কোন ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়নি। বরং ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হচ্ছে সড়ক ও জনপথ বিভাগকে।

ঠিকাদারের গড়িমসি ও বৃষ্টির কারণে প্রকল্পে খানাখন্দের সংখ্যা বাড়ছে। সড়কের পাশে সঠিক অনুপাতে ঢালু না রাখায় সামান্য বৃষ্টির পানিতে তৈরিকৃত রাস্তা ভেঙ্গে বিশাল বিশাল গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

সিরাজগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগের দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের অব্যবস্থাপনা, দায়িত্ব অবহেলা এবং ঠিকাদারদের দুর্নীতির কারণে সয়দাবাদ-বেলকুচি-এনায়েতপুর বাই লেন প্রকল্পের ২০ কিলোমিটার রাস্তাটি এখন প্রায়ই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে । 

সিরাজগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ২০১০ সালে সয়দাবাদ-বেলকুচি-এনায়েতপুর বাইলেন প্রকল্পের টেন্ডার আহবান করা হয়। ২০১১ সালের ৯ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন।

২০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে এই সড়কটির নির্মান কাজের দায়িত্ব পান ঢাকার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশন লিমিটেড। এজন্য ২৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। শুরু থেকেই কাজের ধীর গতি লক্ষ্য করা গেছে।

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পাড়ে সয়দাবাদ মহাসড়ক মোড় থেকে এনায়েতপুর পর্যন্ত আঞ্চলিক সড়কের পাশে বাইলেন বা পাশ্ববর্তী বাই লেনের নির্মাণকাজে নিম্নমানের খোয়া এবং সঠিক অনুপাতে বিটুমিন ও বালু ব্যবহার না করার অভিযোগ উঠেছে।

কাজের গড়িমসি ও ধীরগতি জন্য ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে সড়ক ও জনপথ বিভাগ থেকে বেশ কয়েকবার সতর্ক করা হলেও কোনো লাভ হয়নি।  একারণে গত ৫ বছরেও শেষ হয়নি এই প্রকল্পের কাজ। কিন্তু জানা যায়, উল্টো ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে পুরো কাজের বিল পরিশোধ করেছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ।

বেলকুচি উপজেলার বারাকান্দি গ্রামের শহীদুল ইসলাম জানান, নিম্নমানের উপকরণ ব্যবহার করার ফলে রাস্তাটি যানবাহন চলাচলের উপযোগী হয়ে উঠেনি। তাছাড়াও সামান্য বৃষ্টি নামলে রাস্তায় বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়। সিরাজগঞ্জ এবং ঢাকার সাথে যোগাযোগের বড় মাধ্যম এই সড়ক। সরকার এই সড়কে কোটি কোটি টাকা খরচ করলেও তা স্থানীয় জনগনের কোন কাজে আসছে না।

প্রতিবেদক: শরীফ আহমদ ইন্না, সম্পাদনা: শিপন আলী

 


সর্বশেষ

আরও খবর

ফেরিতে যাত্রীদের চাপে ৫ জনের মৃত্যু

ফেরিতে যাত্রীদের চাপে ৫ জনের মৃত্যু


২৬ জনের মৃত্যুর ঘটনায় সেই স্পিডবোট মালিক গ্রেফতার

২৬ জনের মৃত্যুর ঘটনায় সেই স্পিডবোট মালিক গ্রেফতার


বিজিবি মোতায়েনের পরও ঘাটে কোনভাবেই বন্ধ হচ্ছে না যাত্রী পারাপার

বিজিবি মোতায়েনের পরও ঘাটে কোনভাবেই বন্ধ হচ্ছে না যাত্রী পারাপার


বাঁশখালীতে বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে ৪ জন নিহত

বাঁশখালীতে বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে ৪ জন নিহত


আলেমদের ওপর জুলুম আল্লাহ বরদাশত করবেন না: বাবুনগরী

আলেমদের ওপর জুলুম আল্লাহ বরদাশত করবেন না: বাবুনগরী


ছেলেকে উদ্ধারে সেপটিক ট্যাংক নেমে বাবারও মৃত্যু

ছেলেকে উদ্ধারে সেপটিক ট্যাংক নেমে বাবারও মৃত্যু


যুবলীগের এক নেতাকে কোপাল আরেক যুবলীগে নেতা

যুবলীগের এক নেতাকে কোপাল আরেক যুবলীগে নেতা


কুমিল্লায় বাসে লাগা আগুনে ১৪ জন বার্ন ইনস্টিটিউটে ভর্তি

কুমিল্লায় বাসে লাগা আগুনে ১৪ জন বার্ন ইনস্টিটিউটে ভর্তি


নোয়াখালীর বসুরহাটে ১৪৪ ধারা জারি

নোয়াখালীর বসুরহাটে ১৪৪ ধারা জারি


শিক্ষার্থীকে নির্মম নির্যাতন; শিক্ষককে ছাড়িয়ে নিল শিক্ষার্থীর বাবা-মা

শিক্ষার্থীকে নির্মম নির্যাতন; শিক্ষককে ছাড়িয়ে নিল শিক্ষার্থীর বাবা-মা