Monday, January 7th, 2019
৮ বছরেও বিচার হয়নি ফেলানী হত্যার
January 7th, 2019 at 7:53 pm
৮ বছরেও বিচার হয়নি ফেলানী হত্যার

কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার অনন্তপুর সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে নির্মমভাবে নিহত বাংলাদেশি কিশোরী ফেলানী খাতুন হত্যার আজ আট বছর। তবে এখনো ন্যায় বিচার পায়নি নিহতের পরিবার।

রবিবার রাতে লালমনিরহাট-১৫ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্নেল আনোয়ার-উল-আলম নুর ইসলামের পরিবারের খোঁজখবর নেন। বিজিবি’র পক্ষ থেকে দোয়া মাহফিল পরিচালনা ও নতুন কাপড়-চোপড়ের জন্য আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়। এছাড়াও কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন পরিবারটিকে বিভিন্ন সময়ে সহযোগিতা করা ছাড়াও তাদের দেকভালের দায়িত্বের কথা জানান।

ফেলানীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে সকালে নাগেশ্বরী উপজেলার রামখানা ইউনিয়নে অবস্থিত নিজ বাড়ি কলোনীটারীতে মিলাদ মাহফিল ও কাঙালি ভোজের আয়োজন করে তার পরিবার।

২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি ফুলবাড়ী উপজেলার অনন্তপুর সীমান্ত দিয়ে বাবা নুর ইসলামের সঙ্গে মই দিয়ে কাঁটাতার টপকে বাংলাদেশে ফেরার সময় বিএসএফের গুলিতে নিহত হয় ফেলানী। ফেলানীর নিথর দেহ কাঁটাতারে ঝুলে ছিল চার ঘণ্টা। এ হত্যাকাণ্ডে দেশ-বিদেশের গণমাধ্যমসহ মানবাধিকার কর্মীদের মাঝে সমালোচনার ঝড় উঠলে ২০১৩ সালের ১৩ আগস্ট বিএসএফের বিশেষ আদালতে ফেলানী হত্যার বিচার শুরু হয়।

২০১৩ সালের ৬ সেপ্টেম্বর অভিযুক্ত বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষকে বেকসুর খালাস দেয় ভারতের কোচবিহারের সোনারী ছাউনিতে স্থাপিত বিএসএফের বিশেষ আদালত। পুনরায় বিচারের দাবিতে ফেলানীর বাবা নুর ইসলাম ভারতীয় হাইকমিশনের মাধ্যমে ভারত সরকারের নিকট আবেদন করেন। পরে বিজিবি-বিএসএফের দ্বি-পাক্ষিক বৈঠকে ফেলানী হত্যার বিচার পুনরায় করা সিদ্ধান্ত হয়।

২০১৪ সালের ২২ সেপ্টেম্বর পুনরায় বিচার শুরু করে বিএসএফ। ওই বছরের ১৭ নভেম্বর ফেলানীর বাবা নুর ইসলাম বিএসএফের বিশেষ আদালতে অমিয় ঘোষকে অভিযুক্ত করে পুনরায় সাক্ষ্য দেন এবং অমিয় ঘোষের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেন।

পরে ২০১৪ সালের ২০ নভেম্বর বিচারিক কাজ চলার সময় বিএসএফ আদালতে অভিযুক্ত অমিয় ঘোষ অসুস্থ হয়ে পড়ায় চার মাসের জন্য বিশেষ আদালতের কার্যক্রম মুলতবি করা হয়েছে।

এরপর ২০১৫ সালের ১৩ জুলাই ভারতীয় মানবাধিকার সুরক্ষা মঞ্চ (মাসুম) ফেলানী খাতুন হত্যার বিচার ও ক্ষতিপূরণের দাবিতে দেশের সুপ্রিম কোর্টে রিট আবেদন করে। ২০১৭ সালের ২৫ অক্টোবর শুনানির পর ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টে বারবার তারিখ পিছিয়ে যায়। ফলে থমকে গেছে ফেলানী খাতুন হত্যার সুষ্ঠু বিচার ও ক্ষতিপূরণের দাবি।

নিজস্ব প্রতিবেদক, সম্পাদনা: এম কে রায়হান


সর্বশেষ

আরও খবর

আফ্রিকার গ্যাবনে সেনা অভ্যুত্থানে প্রেসিডেন্টেকে ক্ষমতাচ্যুতের দাবি

আফ্রিকার গ্যাবনে সেনা অভ্যুত্থানে প্রেসিডেন্টেকে ক্ষমতাচ্যুতের দাবি


টানা তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হলেন শেখ হাসিনা

টানা তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হলেন শেখ হাসিনা


প্রধানমন্ত্রীর হাতে থাকছে যে ৬ মন্ত্রণালয়

প্রধানমন্ত্রীর হাতে থাকছে যে ৬ মন্ত্রণালয়


বিকালে বঙ্গভবনে শপথ

বিকালে বঙ্গভবনে শপথ


সংসদ সদস্যদের প্রায় ৬২ শতাংশ পেশায় ব্যবসায়ী

সংসদ সদস্যদের প্রায় ৬২ শতাংশ পেশায় ব্যবসায়ী


চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সৈয়দ আশরাফ

চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সৈয়দ আশরাফ


যেসব হেভিওয়েট মন্ত্রী বাদ পড়লেন

যেসব হেভিওয়েট মন্ত্রী বাদ পড়লেন


গঠিত হচ্ছে ৪৬ সদস্যের মন্ত্রিসভা

গঠিত হচ্ছে ৪৬ সদস্যের মন্ত্রিসভা


সৈয়দ আশরাফের প্রথম জানাজা সম্পন্ন, দাফন বিকালে

সৈয়দ আশরাফের প্রথম জানাজা সম্পন্ন, দাফন বিকালে


আ.লীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১

আ.লীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১